• সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন

কম আলোতে পড়লে কি সত্যিই চোখ খারাপ হয়?

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ০৮:১৮

কম আলো_অধিকার
ছবি : প্রতীকী

ছোটবেলা থেকে নিশ্চয়ই ‘সব্জি খেলে চোখ ভালো থাকবে’, ‘অন্ধকারে পড়লে চোখ খারাপ হবে’ এমন অনেক কথা শুনেছেন? এটা ঠিক যে, মানুষ নিজের চোখকে ঠিকঠাক ও সুস্থ রাখতে চায়। চোখ নিয়ে সবার বাড়তি মনোযোগের কারণটাও এটা। তবে আমাদের অতি পরিচিত চোখ ভালো রাখার এই নিয়মগুলো কতটা কার্যকরী? চলুন, জেনে নেওয়া যাক!

অল্প আলোতে পড়লে চোখ খারাপ হয় :

আসলেই কি তাই? উঁহু! চিকিৎসকদের মতে, আমাদের চোখের আলোর সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা আছে। আপনি যখন একটু অন্ধকারে পড়তে চাইবেন, চোখ তখন নিজ থেকেই আলোর সাথে মানিয়ে নেবে এবং মস্তিষ্ককে সংকেত জানাবে। চোখের কোনো সমস্যায় এতে করে হবে না।

এমন হতে পারে যে, বারবার চোখের পাতা ফেলার কারণে কম আলোতে পড়লে আপনার চোখ শুকিয়ে যেতে পারে। এসময় চোখের জন্য ড্রপ ব্যবহার করা ভালো। তবে, আপনার যদি অল্প আলোতে বই চোখের খুব কাছে এনে পড়ার অভ্যাস থাকে, সেক্ষেত্রে চোখের দীর্ঘস্থায়ী কোনো সমস্যা হতে পারে। অন্যথায়, আপনি কম আলোতেও বই পড়তেই পারেন!

টেলিভিশন দেখলে চোখ নষ্ট হবে :

টেলিভিশন দেখার সময় চোখের ওপরে যে চাপ পড়ে সেটা কোন বই পড়ার সময় বা চারপাশে তাকানোর সময়েও আপনার চোখের ওপরে পড়বে। ব্যাপারটি এমন নয় যে, আপনি টেলিভিশন দেখছেন বলেই চোখ খারাপ হবে।

টেলিভিশন বেশি দেখলে চোখ ক্লান্ত হয়ে পড়তে পারে। যেটা কিনা একটা চমৎকার ঘুম দিলেই ঠিক হয়ে যাবে। তবে হ্যাঁ, টেলিভিশনও যদি খুব কাছে গিয়ে দেখেন সেক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হতে পারে। শিশুদের ক্ষেত্রে এমনটা করলে মায়োপিয়া হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।

গাজর খেলে চোখ ভালো থাকে :

গাজরে বিটা-ক্যারোটিন থাকে। যেটি শরীর ভিটামিন এ হিসেবে গ্রহণ করে। আর ভিটামিন এ চোখের জন্য ভালো। তবে তাই বলে এমন নয় যে, আপনি অনেক গাজর খেলে আপনার চোখ খারাপ অবস্থা থেকে ভালো হয়ে যাবে। সাধারণত, গাজর চোখের স্বাস্থ্যের জন্য খেতে বলা হয়, কারণ এটি আমাদের শরীরে দৈনন্দিন জীবনে দরকারী ভিটামিন এ নিশ্চিত করে। তবে একই ফল আপনি পনির, দুধ, যকৃত- ইত্যাদির মাধ্যমেও পেতে পারেন।

স্মার্টফোন চোখের ক্ষতি করে :

এই কথাটি আসলেই সত্যি। স্মার্টফোন এমন একটি জিনিস যেটি আপনি আপনার চোখের কাছ থেকে খুব দূরে রেখে ব্যবহার করতে পারবেন না। এটি আমাদের সারাক্ষণের ব্যবহার্য হওয়ায় এবং অতিরিক্ত ক্ষতিকারক নীল তরঙ্গ প্রবাহিত করায় স্মার্টফোন ব্যবহারে চোখ ক্ষতির সম্মুখীন হয়। ব্যাপারটি শুধু চোখের ক্লান্তি বা স্বল্প সময়ের জন্য হওয়া ক্ষতি নয়। দীর্ঘস্থায়ী ক্ষতিও হয়ে থাকে স্মার্টফোন ব্যবহারের কারণে।

ঠিক পাওয়ারের চশমা না পরলে চোখ তাড়াতাড়ি খারাপ হয় :

কথাটি খুব একটা সত্যি নয়। এমনিতেও আমাদের চোখের পাওয়ার কিছুদিন পরপর বদলে যায়। তাই, চশমার পাওয়ার যদি চোখের যতটুকু পাওয়ার প্রয়োজন তার চাইতে কম বা বেশি হয়, সেক্ষেত্রেও খুব একটা কিছু যায় আসে না। অল্প সময়ের জন্য হয়তো এতে করে আপনার চোখ ব্যথা হতে পারে, ক্লান্তি আসতে পারে, মাথাব্যথা করতে পারে। কিন্তু তারমানে এই নয় যে খুব বড় আকারে এই ব্যাপারটি আপনার চোখকে প্রভাবিত করবে।

ছানি বয়স্কদের হয়ে থাকে :

হ্যাঁ, এটা সত্যি যে ছানি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বয়স্কদের ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। তবে তার মানে এই নয় যে, এটি শিশুদের হয় না। চোখের ছানি সব বয়সেই হতে পারে।

আপনার চোখে কোনো সমস্যা যদি হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন। আমরা বহুকাল ধরে শুনে এসেছি এমন কথাগুলোকে সবসময় সত্যি মনে করার কোন কারণ নেই। তাই যেকোনো কাজ করার আগে এবং চোখের ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেওয়ার আগে ভালো করে আপনার সমস্যাটি সম্পর্কে জেনে নিন।

মূল লেখক- ডক্টর লিও সিও উই, মাউন্ট এলিজাবেথ হসপিটাল।

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড