• মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯, ৪ আষাঢ় ১৪২৬  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন

অনেক মিষ্টি খেয়ে ফেলেছেন?

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি ০১ নভেম্বর ২০১৮, ১৩:১২

মিষ্টি খাবার
ছবি : সম্পাদিত

অতিরিক্ত মিষ্টি খেয়ে ফেলেছেন? আমরা মিষ্টিজাতীয় খাবার গ্রহণ করলে মস্তিষ্কে ডোপেমিন হরমোন নিঃসরিত হয় প্রচুর পরিমাণে। এতে করে আমাদের ভালো লাগে। আর এই ভালোলাগা থেকেই আবার মিষ্টি গ্রহণের ইচ্ছে তীব্র হয়। খাবার হজম হয় খুব দ্রুত। একটু একটু করে অনেকটা মিষ্টিজাতীয় খাবার খেয়ে ফেলি আমরা। কিন্তু যা হবার তো হয়ে গেছে। মিষ্টি তো অনেকটা ইতোমধ্যেই খেয়ে ফেলেছেন আপনি। তাহলে এবার? এমন অনেক বেশি মিষ্টি গ্রহণের পর ঠিক কী করবেন সেটা জেনে নেওয়া যাক। 

পিনাট বাটার খেয়ে নিন- 

মিষ্টি গ্রহণের পর যেহেতু আমাদের হজমক্ষমতা বেড়ে যায়, তাই এই ব্যাপারটিকে একটু ধীর করার জন্য দরকার পড়ে পিনাট বাটারের মতো ভারী কোন খাবারের। এতে ভালো পরিমাণে প্রোটিন মজুদ থাকে। তাই এটি আপনার হজমের প্রক্রিয়াকে ধীর করে দেবে। আবার মিষ্টি খাওয়া থেকে একটু হলেও বিরত হবেন আপনি। 

প্রচুর পরিমাণ হাঁটুন- 

অতিরিক্ত মিষ্টি খাওয়ার পর মোটেও ঘুমিয়ে যাবেন না বা বসে থাকবেন না। শারীরিক পরিশ্রম করুন। সিঁড়ি দিয়ে উঠুন, হাঁটুন, দৌড়ান। তবে নিজেকে একটু কম বিশ্রাম দিন। এতে করে আপনার শরীর বাড়তি এই চিনিকে জমা করার সুযোগ পাবে না। যতোটা সহজে সেটা গ্রহণ করেছিলেন, ঠিক তততা সহজ না হলেও দ্রুত এর প্রভাব কমে যাবে।

গ্রীন টি আর লেবু মিশিয়ে পান করুন-

মিষ্টি খাওয়ার পর এক কাপ গ্রীন টিতে খানিকটা লেবু মিশিয়ে পান করুন। এতে করে আপনার কিডনি আরও দ্রুত কাজ করবে। ফলে প্রশ্রাব হবে অনেক বেশি। বেশিবার বাথরুম হবে এবং আপনি সহজেই চিনি বের করে দেওয়ার একটা সুযোগ পাবেন।

হালকা নাশতা করুন- 

যেদিন অনেক বেশি মিষ্টিজাতীয় খাবার খেয়ে ফেলেছেন, তারপর একটু হালকা নাশতা করুন। প্রোটিনের উপরে বেশি জোর দিন এবং চেষ্টা করুন যেন সেখানে শর্করার পরিমাণ কম থাকে। ফল রাখতে পারেন ইচ্ছে করলে। তবে হ্যাঁ, ফলেও কিন্তু চিনি থাকে। তাই চেষ্টা করুন নাশতায় ফল না খাওয়ার। আর খেলেও যেন তাতে চিনি কম থাকে।

সাজসজ্জা নয়, খাবারে মন দিন- 

সাধারণ এক টেবিল চামচ টমেটো সসে এক চা চামচ চিনি থাকে। আর সাধারন সালাদে এই সস বাদেও আরও নানারকম ড্রেসিং তো করা হয়ই। এতে করে সাধারণ স্বাস্থ্যসম্মত খাবার হয়ে পড়ে অনেক ভারী আর অস্বাস্থ্যকর। তাই যতটা সম্ভব খাবারের এই বাড়তি সাজসজ্জাগুলো এড়িয়ে চলুন।

স্মুদি পান করুন- 

অবাক হচ্ছেন? না, এটা সাধারণ কোন স্মুদি না। আঁশসমৃদ্ধ ও শাকসবজির স্মুদির কথা বলছি। মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়ার প্রভাবকে একটু কমাতে চিনিবিহীন এই স্মুদি খেয়ে দেখতে পারেন আপনি। হয়তো এমনিতে আপনার খেতে মোটেও ভালো লাগবে না। তবে হ্যাঁ, এতে করে আপনার শরীরে অতিরিক্ত চিনির প্রভাব কমে যাবে।

বাদবাকি মিষ্টি খাবার সরিয়ে ফেলুন- 

আপনি যতই চেষ্টা করুন না কেন, একটা সময় পর সামনে মিষ্টিজাতীয় খাবার দেখলে আপনার খেতে ইচ্ছে করবেই। তাই মিষ্টি খাবারগুলো অন্য কাউকে দিয়ে দিন। সেগুলোকে চোখের সামনে থেকে সরিয়ে ফেলুন। এতে করে আপনার মিষ্টি খাওয়ার পরিমাণ অনেকটা কমে যাবে। 

নিজের জন্য শাস্তি নয়-

অনেকটা বেশি মিষ্টি গ্রহণ করেছেন, সেজন্য খাবারের দিকে একটু বাড়তি খেয়াল রাখতে হবে। তবে তারমানে এই নয় যে, নিজেকে মানসিকভাবে বা শারীরিকভাবে কষ্ট দেওয়াটা ঠিক। যতটুকু খাবার খাওয়া উচিত সেটা খেয়ে ফেলুন। প্রয়োজনে পরিমিত পরিমাণে মিষ্টিও খান। তবে হ্যাঁ, তার আগে অবশ্যই একটু হিসেব করে নিবেন। 

সূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট
 

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড