• বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ক্যানসার সংক্রান্ত যে পরীক্ষাগুলো এখনই করা উচিত আপনার

২৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৩:৫৮
ক্যানসার
যে কারও এই ক্যানসার হতে পারে (ছবি- প্রতীকী)

আজকে আপনি সুস্থ আছেন তার অর্থ কিন্তু এই নয় যে, আপনি পুরোপুরি সুস্থ। বর্তমান সময়ে যে কয়েকটি অসুখ মরণব্যাধির তকমা পেয়েছে, সেগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হলো ক্যানসার। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ক্যানসারের কোনো প্রতিষেধক আমাদের কাছে না থাকলেও কিছুক্ষেত্রে আগে থেকে জানতে পারলে এই ব্যাধি থেকে একজন নারীকে মুক্ত করতে পারেন চিকিৎসকরা। তবে তার জন্য অবশ্যই আপনার ক্যানসার আছে কি না সে সম্পর্কে জানা প্রয়োজন।

গত বছর কি ক্যানসারের স্ক্রিনিং করেছিলেন আপনি? না করে থাকলে, চলুন ২০২০ সালের শুরুতেই মারাত্মক এবং অহরহ আক্রমণ করে বসা কিছু ক্যানসারের সম্পর্কে জেনে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া যাক।

স্তন ক্যানসার

নারীদের, বিশেষ করে ৪০-৪৪ বছর বয়স্ক নারীদের নিয়মিত ব্রেস্ট ক্যানসারের সম্ভাবনা সম্পর্কে জানতে ম্যামোগ্রাম করা উচিত। ৪০ বছর বয়সের পর থেকে প্রতিটি নারীর বছরে একবার করে এই পরীক্ষাটি করা প্রয়োজন। ব্যাপারটি কিন্তু এমন নয় যে, যেসব পরিবারে আগে কেউ ব্রেস্ট ক্যানসারে ভুগেছে, তাদের ক্ষেত্রেই পরবর্তীকালে আবার এই সমস্যা দেখা দেয়।

যে কারও এই ক্যানসার হতে পারে। তাই এ ব্যাপারে ঠিক কবে থেকে স্ক্রিনিং শুরু করতে হবে সেটা নিয়ে আগেই চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে নেওয়া ভালো।

সার্ভিকাল ক্যানসার

একজন নারীর ২১ বছর বয়সের পর থেকেই সার্ভিকাল ক্যানসার নিয়ে সচেতন হওয়া এবং এ সংক্রান্ত পরীক্ষা করা উচিত। ২১ থেকে ২৯ বছর বয়সের মধ্যে প্রতি তিন বছরে এই পরীক্ষা করুন। ৩০ থেকে ৬৫ বছর বয়সের মধ্যে ৫ বছর পরপর এই পরীক্ষা করা ভালো। তবে এ ক্ষেত্রে এইচপিভি টেস্টও করে নেওয়াটা বাঞ্ছনীয়। ৬৫ বছর বয়সের পর একজন নারী চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলার মাধ্যমে এই পরীক্ষা বন্ধ রাখতে পারেন।

ফুসফুসের ক্যানসার

সাধারণত, ব্রেস্ট, প্রোস্টেট ও সার্ভিকাল ক্যানসারের চাইতে বেশি মানুষ ফুসফুসের ক্যানসারের মাধ্যমে মৃত্যুবরণ করেন। এই ক্যানসারের ঝুঁকিতে আছেন এমন ব্যক্তিদের সিএটি স্ক্যান করার মাধ্যমে সহজেই তাদের ফুসফুসের ক্যানসারের পরীক্ষা করে ফেলা যায়। ৫৫ থেকে ৭৪ বছর বয়সী মানুষ, যারা অনেকদিন যাবত ধূমপান করেছেন, তাদের ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই ৫০ বছর বয়সের পর এ সংক্রান্ত পরীক্ষা সম্পন্ন করুন।

কোলোন ক্যানসার

কোলোন ক্যানসারের পরীক্ষা করার মাধ্যমে আপনি যে শুধু এই ক্যানসারকে প্রাথমিক অবস্থায় চিহ্নিত করতে পারবেন তাই নয়, ইতোমধ্যে সেখানে বিদ্যমান থাকা মাংসপিণ্ডকে চিহ্নিত করে (যেটা পরবর্তী সময়ে ক্যানসারে রূপ নিতে পারে) ক্যানসারকে প্রতিরোধও করতে সক্ষম হবেন।

আরও পড়ুন : নিশ্বাস পরীক্ষার মাধ্যমে সনাক্ত হবে ক্যানসার

আগে কোনো সমস্যা না হলে ৭৬ থেকে ৮৬ বছর বয়সের মধ্যে এই পরীক্ষা করা শুরু করুন এবং ৮৬ বছর বয়সের পর পরীক্ষা বন্ধ করে দিন। ৩-৫ বছরের বিরতিতে একবার করে আপনাকে কোলনোস্কোপি করতে পরামর্শ দিতে পারেন চিকিৎসকরা।

তবে হ্যাঁ, ক্যানসারের পরীক্ষা আগে থেকেই করে ফেলা ভালো বলে সেটা দরকারের চেয়ে বেশি করবেন না। এতে করে আপনার টাকা ও সময়ের পাশাপাশি শরীরের ওপরেও নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে।

তাই, চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং সঠিক পরিমাণে পরীক্ষা করে সুস্থ থাকার চেষ্টা করুন।

সূত্র- হেলথলাইন

ওডি/এনএম

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড