• বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

এন্ডোস্কোপিক আল্ট্রাসাউন্ড : যে ব্যাপারগুলো না জানলেই নয়!

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি

০২ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৫:৪৬
এন্ডোস্কোপিক আল্ট্রাসাউন্ড
ছবি : প্রতীকী

এন্ডোস্কোপিক প্রক্রিয়ার মধ্যে বর্তমানে অন্যতম উন্নত প্রক্রিয়াটির নাম হলো এন্ডোস্কোপিক আল্ট্রাসাউন্ড। আপনি বা আপনার কোনো পরিচিত মানুষ কি এই প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন? তাহলে এই প্রক্রিয়ার কিছু ব্যাপার নিয়ে আপনার অবশ্যই ধারণা থাকা প্রয়োজন। এক নজরে এন্ডোস্কোপিক আল্ট্রাসাউন্ড সম্পর্কে কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য জেনে নিন- 

এন্ডোস্কোপিক আল্ট্রাসাউন্ড কী?

আমাদের তলপেট এবং বুকের আভ্যন্তরীণ অবস্থা আর ভালোভাবে বোঝার জন্য এন্ডোস্কোপিক আল্ট্রাসাউন্ড ব্যবহার করা হয়। এ ক্ষেত্রে একটি নলের মাথায় ক্যামেরা ও স্ক্যানিং মেশিন বসিয়ে সেটি গলা দিয়ে প্রবেশ করানো হয়। মুখ থেকে পায়ুপথ পর্যন্ত চলে যেতে পারে এই নল। এরপর সেখান থেকে উচ্চমাত্রার আল্ট্রাসাউন্ড ওয়েভ ব্যবহার করে নির্দিষ্ট স্থানের বিস্তারিত চিত্র তৈরি করতে সাহায্য করে। ইইউএস বা এন্ডোস্কোপিক আল্ট্রাসাউন্ড 'ফাইন নিডল অ্যাসপিরিশন' এর মাধ্যমে বুক এবং পেটের তরল এবং টিস্যুও পরীক্ষার জন্য গ্রহণ করতে সক্ষম। এই সার্জারিকে ওপেন সার্জারির বিকল্প হিসেবে ধরা হয়।

ইইউএস কেন করবেন?

সাধারণত, আল্ট্রাসাউন্ড তরঙ্গ চিকিৎসকদের অনেকটা বিস্তারিত এবং স্পষ্টভাবে বুক ও পেটের গভীর পর্যন্ত দেখতে সাহায্য করে। মনে করুন, আপনার পেটে ব্যথা করছে। কেন করছে এমন? সেটা জানতে হলেও এই ইইউএস করার প্রয়োজন হবে। টিউমার, সিস্ট বা অন্য যে কোনো অভ্যন্তরীণ সমস্যার কারণ খুঁজে বের করতে ইইউএস সাহায্য করে। যেসব ক্ষেত্রে ইইউএস বেশি কার্যকরী ভূমিকা রাখে সেগুলো হলো-

● বাইল ডাক্ট স্টোন
● খাদ্যনালীর ক্যানসার
● প্যানক্রিয়েটিক সিস্ট ও টিউমার
● লিম্ফোমা
● পয়ঃনালী, পাকস্থলী ইত্যাদি স্থানে কোনো অংশের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি

শুধু তাই নয়, ইইউএসের মাধ্যমে শারীরিক কিছু সমস্যার সমাধান, এই যেমন-

● প্যানক্রিয়েটিক সিস্ট অপসারণ
● পেটের জমে থাকা বাড়তি তরল সরিয়ে আনা
● খাদ্যনালীর মধ্যকার রক্তপাত থামানো ইত্যাদি নিশ্চিত করা সম্ভব হয়। 

ইইউএস প্রক্রিয়ায় কি ব্যথাবোধ হয়?

না, হয় না। প্রক্রিয়াটি শুরুর আগে চিকিৎসক আপনার অস্বস্তি দূর করার জন্য হালকা সিডেটিভ দিয়ে দিবেন। এতে করে অস্বস্তি কাজ করে না। 

প্রক্রিয়াটি শুরু করার আগে আপনাকে কিছু নিয়ম মানতে বলা হবে। সেগুলো হলো-

১। প্রক্রিয়া শুরুর ৬ ঘণ্টা আগ থেকে খাবার না খাওয়া।
২। পায়ুপথে প্রক্রিয়াটি চালানো হলে পেট পরিষ্কার হওয়ার জন্য নির্দিষ্ট কিছু তরল পান করা।
৩। ফাইন নিডল অ্যাসপিরেশন প্রক্রিয়ার সময় রক্তকে তরল করে দেয় এমন কোনো ওষুধ সেবন না করা।
৪। প্রক্রিয়া পরবর্তী সময়ের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা করে রাখা।

এই ব্যাপারগুলো মেনে চললে এই পুরো প্রক্রিয়ায় কোনো সমস্যা বোধ করবেন না আপনি।

ইইউসি প্রক্রিয়াটি কতক্ষণ ধরে চলে?

সাধারণত, ইইউএসের পর রোগীকে হাসপাতালে থাকতে হয় না। একদিনের এই প্রক্রিয়ার দুই ঘণ্টা পরেই বাড়ি চলে যেতে পারবেন আপনি। পুরো প্রক্রিয়াটি পরিচালনায় সময় লাগতে পারে মাত্র ৪০ মিনিট। এই প্রক্রিয়ায় চিকিৎসক আপনার পায়ুপথ বা মুখ দিয়ে নল প্রবেশ করাবেন। আর ফাইন নিডল অ্যাসপিরেশনে এন্ডোস্কোপির সাথে একটি বাড়তি যন্ত্র সংযুক্ত থাকবে, যেটি থেকে প্রয়োজন অনুসারে সূচ বের করে নেওয়া যাবে। 

ইইউএস প্রক্রিয়াটি চালানোর জন্য চিকিৎসকদের কতটা দক্ষ হতে হয়?

অত্যন্ত দক্ষ চিকিৎসকেরাই শুধু ইইউএস প্রক্রিয়া পরিচালনা করতে পারেন। এজন্য তাদের অ্যাডভান্স এন্ডোস্কোপি টেকনিক এবং অ্যাডভান্স এন্ডোস্কোপিক ইকুইপমেন্ট সংক্রান্ত বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হতে হয়। এছাড়া, ফাইন নিডল অ্যাসপিরেশনে কোনো সমস্যা দেখা দিলে সেটিও বিশেষজ্ঞের দ্বারা পর্যবেক্ষণ করা হয়।

ইইউএসে কোনো শারীরিক ঝুঁকি আছে?

সাধারণত, ইইউএস প্রক্রিয়ায় ঝুঁকি থাকে না। তারপরেও, ইইউএস প্রক্রিয়ায় ১ শতাংশ এবং ফাইন নিডল অ্যাসপিরেশন প্রক্রিয়ায় ১-২ শতাংশ রোগীর মধ্যে রক্তপাত, সিডেটিভের ভয়াবহ প্রতিক্রিয়া, প্রদাহ, সংক্রমণ এবং অভ্যন্তরীণ অংশে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

তবে হ্যাঁ, সবকিছু মিলিয়ে দেখলে ওপেন সার্জারির চাইতে এই ইইউএস প্রক্রিয়াটি অনেক বেশি নিরাপদ এবং কার্যকরী। এমনকি, ত্বকে কোনো দাগও রেখে যায় না এটি ওপেন সার্জারির মতো। তাই, ভালোভাবে ভাবুন এবং চেষ্টা করুন চিকিৎসার ক্ষেত্রে সম্ভব হলে এন্ডোস্কোপিক আল্ট্রাসাউন্ড বেছে নিতে।

সূত্র- মাউন্ট এলিজাবেথ হসপিটাল

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড