• শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ঘুমের মধ্যেই কমবে ওজন

  স্বাস্থ্য ডেস্ক

২৯ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:৩৩
ঘুম
পর্যাপ্ত ঘুমান (ছবি : সংগৃহীত) 

ওজন বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অনেকেই চিন্তায় পড়ে যান। তাদের চিন্তা এতটাই প্রকট আকার ধারণ করে যে, রাতেও ঠিক মতো ঘুমাতে পারেন না।  কিন্তু আপনি কি জানেন, পরিমাণ মতো ঘুমই আপনাকে ওজন কমাতে সাহায্য করবে? নিশ্চয় অনেকেই অবাক হচ্ছেন। সাম্প্রতিক এক সমীক্ষা বলছে, রাতের ঘুমেই লুকিয়ে আছে ওজন কমার চাবিকাঠি। তাই চিন্তা মুক্ত ঘুমান। এতে ওজন কমতে শুরু করবে।

ঘুম বিষয়ে গবেষকরা বলছেন, ঘুমানোর মধ্যে বেশ কিছু কার্যকলাপ রয়েছে। যেমন- সেল রিপেয়ার ও গ্রোথ বৃদ্ধি পায়, মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা অনেকগুণ বেড়ে যায়। যদি সঠিক পদ্ধতি মেনে ঘুমান তাহলে আপনার শরীরও ঘুমের মধ্যে বেশ কিছুটা ক্যালোরি বার্ন করতে সক্ষম। কীভাবে ঘুমাচ্ছেন, কতক্ষণ ঘুমাচ্ছেন, কী খাচ্ছেন- এসব ফ্যাক্টর অবশ্য কাজ করে ক্যালোরি বার্ন করার পরিমাণের ওপর। এছাড়া ওজন কমার ক্ষেত্রে শরীরে তাপমাত্রা কত ও ঘরের অবস্থান প্রভাব ফেলে।

অন্ধকারে ঘুমান : একেবারে অন্ধকার ঘরে ঘুমান। কারণ এতে করে মস্তিষ্ক রিল্যাক্স করার সুযোগ পায়। মানুষের শরীর মেলাটোনিন নামে এক হরমোন উৎপাদন করে, যা মানুষের ঘুমের ক্ষেত্রে সহায়ক হয়। এই হরমোনের প্রভাবেই আমাদের ঘুম পায় ও গভীরভাবে ঘুমাতে পারি আমরা। মূলত রাত ১১টা থেকে রাত ৩টা পর্যন্ত এই হরমোন উৎপাদিত হয়। ফলে এই সময়টা ঘুমের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত।

ঘুমানোর ঘরের তাপমাত্রা আরামদায়ক রাখুন : সমীক্ষা বলছে অতিরিক্ত গরম বা অতিরিক্ত ঠান্ডা শরীরের জন্য ভালো নয়। ফলে ঘুমের সমস্যা হয়। যদি ঘরের তাপমাত্রা ১৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি থাকে, তবে আপনার শরীর ৭ শতাংশ অতিরিক্ত ক্যালোরি বার্ন করতে সক্ষম।

পর্যাপ্ত ঘুমান : একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের জন্য ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। পর্যাপ্ত ঘুম না হলে শারীরিক ক্লান্তি বোধ হয়, চেপে ধরে মানসিক ক্লান্তিও, ক্ষুধা বেশি পায়। এতে ওজন বাড়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়। তাই নির্দিষ্ট সময় ও পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান। অনেক সমীক্ষা বলছে, ঠিক মতো ঘুম না হলে শরীরের কোষগুলো কার্যক্ষমতা হারায় ও ইনসুলিনের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। এতেই জন্ম নেয় ওবেসিটি।

ঘুমের সময় কোনো যন্ত্র ব্যবহার নয় : ঘুমের সময় মোবাইল ফোন, ট্যাব, ল্যাপটপ, টেলিভিশন থেকে দূরে থাকুন। কেননা, এসব যন্ত্র থেকে যে নীল রশ্মি বের হয়, তা মেলাটোনিন উৎপাদন কমিয়ে দেয়। যার কারণে ঘুম আসে না।

ওডি/টিএএফ

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড