• সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হ্যান্ড পেইন্ট : আঁকিবুঁকির এক নতুন দিগন্ত

১০ অক্টোবর ২০১৯, ১২:৩৯
হ্যান্ড পেইন্ট
নানা মাধ্যমে হ্যান্ড পেইন্ট; (ছবি- আরে বাহ, টি-ব্যাগ স্টোরিজ, এ্যানিস ক্লোজেট, ফিনারি, গীতিকা)

বর্তমানে রাজত্ব চলছে হ্যান্ড পেইন্টের। একটা সময় হ্যান্ড পেইন্টের কাজ করতেন গুটিকয়েক শিল্পী। বিশেষত শাড়ি আর পোশাক নিয়েই কাজ ছিল তাদের। হ্যান্ড পেইন্টের বিষয়টিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিল আড়ং, দেশি দশের মতো বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। 

তবে হ্যান্ড পেইন্টের মতো বিষয়টিকে পোশাক ডিজাইনের মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রেখেছিলেন দেশের প্রয়াত ফ্যাশন ডিজাইনার শাহরুখ শহীদ। বর্তমানে অবশ্য তা ছড়িয়ে পড়েছে কাঠ, কাঁচের বোতলসহ অনেক মাধ্যমে। 

অনলাইন ব্যবসায়ের সূত্র ধরে নতুন করে হ্যান্ড পেইন্টিং পরিচিতি পেয়েছে সবার কাছে। স্বল্প পরিসরে ও স্বল্প পুঁজিতে শুরু করা যায় বলে অনেকেই ব্যবসার মাধ্যম হিসেবে বেছে নিচ্ছেন এটিকে। তবে তার জন্য রং, তুলি, আঁকাআঁকি সম্পর্কে কিছুটা জ্ঞান থাকা আবশ্যিক। 

হ্যান্ড পেইন্ট কী? 

দুটি শব্দের সমন্বয় রয়েছে হ্যান্ড পেইন্টে। হ্যান্ড মানে হাত আর পেইন্ট মানে রং। আর এর মাধ্যমে যে কাজগুলো করা হয় তাকে বলা হয় হ্যান্ড পেইন্টিং। 

কীভাবে করে? 

নির্দিষ্ট জিনিসের ওপর আঁকিবুঁকি করার নামই হ্যান্ড পেইন্ট। রং তুলির সাহায্যেই মূলত কাজটি করা হয়। 

হ্যান্ড পেইন্টিং কীসে করে? 

ক্যানভাস, কাগজ, কাঠ কিংবা কাপড়ে হ্যান্ড পেইন্ট করা হয়। আমাদের চারপাশে এগুলোর ব্যবহারই বেশি। 

হ্যান্ড পেইন্ট ও আমাদের ভুল ধারণা- 

অনেকেই হ্যান্ড মেইড আর হ্যান্ড পেইন্ট ব্যাপারটাকে গুলিয়ে ফেলেন। হাতে তৈরি শিল্পকে হস্তশিল্প বা হ্যান্ড মেইড বলা হয়। তারই একটি ছোট অংশ হলো হ্যান্ড পেইন্ট। অর্থাৎ, সব হাতে আঁকা জিনিসই হস্তশিল্প কিন্তু সব হস্তশিল্পই হাতে আঁকা নয়। 

এরপর আসা যাক, বেজ বা কীসের ওপর কাজ করছি। ওপরে বলেছি হ্যান্ড পেইন্ট বলতে আমরা ক্যানভাস, কাগজ, কাঠ আর কাপড়ে আঁকা বুঝি। অথচ এর বাইরে অনেক অনেক অনেক জিনিসেই হ্যান্ড পেইন্ট করা যায়। শুধু যে করা যায় তাই নয়, তা দিয়ে ব্যবসাও করা সম্ভব। 

আমরা পুরোনো পথে হাঁটতে পছন্দ করি। কারণ পায়ের ছাপ থাকায় রাস্তা ভুল হয় কম। কিন্তু সাহস করে নতুন পথে হাঁটলে যে আরও অনেকের জন্য নতুন পথ সৃষ্টি সম্ভব তা খেয়াল করি না। 

পানি পান শেষে যে বোতল ফেলে দেন তাতে হ্যান্ড পেইন্ট করতে পারেন আপনি। চাইলে হ্যান্ড পেইন্ট করা যায় ফেলনা অনেক কিছুতেই। এখানেই শেষ নয়। হ্যান্ড পেইন্ট নিয়ে কেউ কাজ করছেন টিপে। কেউবা কাজ করছে ফেলনা সসের বোতল, জেলির বয়ামে। এমন আরও অনেক জিনিস রয়েছে যা আমাদের ভাবনার বাইরে।

হ্যান্ড পেইন্ট

নানা মাধ্যমে হ্যান্ড পেইন্ট; (ছবি কৃতজ্ঞতা : ফিনারি, টি-ব্যাগ স্টোরিজ, আরে বাহ) 

এই যেমন 'টি-ব্যাগ স্টোরিজ' এর সাদিত। ব্যবহার করা টি-ব্যাগে অসাধারণ সব চিত্রকর্ম তার। এতকিছু ছেড়ে টি-ব্যাগে কেন কাজ করছেন জানতে চাইলে সাদিত বলেন, ‘আমি চারুকলার ছাত্র নই, ছবি আঁকাআঁকিতে আমার কোনো প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাও নেই। আমি যা আঁকি তা আহামরি কিছুও নয়। তাই সবার কাছে পৌঁছাতে আমি জোর দেই টি-ব্যাগে। ব্যতিক্রমী বলে মানুষ সহজেই সেটি গ্রহণ করে।’

আবার এক্ষেত্রে বলা যায় উদ্যোক্তা ড চিং চিংয়ের কথা। রিকশা পেইন্টকে অন্যরকম মাত্রায় নিয়ে গেছেন এই নারী। কাজ করছেন বোতল, মানিব্যাগ, সানগ্লাসের মতো হরেক রকম জিনিসে। 

আপনি কি হ্যান্ড পেইন্ট সম্পর্কে জানতে আগ্রহী? তবে নিশ্চয়ই এই আর্টিকেলে কিছুটা হলেও জানতে পেরেছেন এই সম্পর্কে। 

ওডি/এনএম 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড