• বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

অর্থনৈতিক সমস্যা বাড়িয়ে দেয় বয়সের ছাপ!

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি

০২ অক্টোবর ২০১৯, ১৪:২৪
অর্থ
ছবি : প্রতীকী

টাকার প্রয়োজন আমাদের সবার। কিন্তু এর অভাবে অর্থনৈতিক দুরাবস্থায় আছেন এমন মানুষের সংখ্যাও কম নয়। কী হবে যদি আপনি সবসময় টাকা নিয়ে চিন্তা করতে থাকেন? সম্প্রতি জানা গিয়েছে যে, আরও অনেক সমস্যার সাথে সাথে অর্থনৈতিক চিন্তা বেশি করা এবং এ সংক্রান্ত সমস্যায় থাকা আমাদের শরীরের বয়সের ছাপ আরও দ্রুত ফেলতে সাহায্য করে। বিস্তারিত জেনে নিন।

এই গবেষণায় জানা যায় যে, যেসব প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি টানা চার বছর অর্থনৈতিক সমস্যার মধ্যে দিয়ে যান, তাদের শরীরের বয়সের ছাপ অন্যদের চাইতে, যারা এমন সমস্যায় পড়েননি, অনেক দ্রুত পড়ে। এক্ষেত্রে, বয়সের ছাপ বলতে বোঝানো হয়েছে যে, একই বয়সের অন্যান্য ব্যক্তির চাইতে শারীরিক ও মানসিকভাবে অতিরিক্ত দূর্বল হয়ে পড়া। এতে করে আক্রান্ত ব্যক্তি সঠিকভাবে যোগাযোগ না করতে পারা থেকে শুরু করে নানারকম শারীরিক প্রদাহের সম্মুখীন হওয়া- এমন সব সমস্যার মুখোমুখি হন। 

বিজ্ঞানীরা এমন ব্যক্তিদের মধ্যে সি-রইঅ্যাক্টিভ প্রোটিন এবং আইএল-৬ এর মতো প্রদাহ, সংক্রমণ ও ক্যানসার পর্যন্ত হওয়ার সম্ভাবনা অন্যদের চাইতে বেশি বলে জানিয়েছেন। মানসিক এই সমস্যাগুলোতে মানুষ সাধারণত চাকুরি শুরুর দিকে বা মাঝবয়সে পড়ে থাকেন। এক্ষেত্রে, পরবর্তীতে তাদের অসুস্থতা এবং চিকিৎসা নেওয়ার পরিমাণও বৃদ্ধি পায়। ফলে চলে আসে বাড়তি খরচের ঝামেলা। এই সবটা মাথায় রেখেই এমন একটি গবেষণা চালিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। 

তুলনামূলকভাবে নিন্ম আয়ের (জাতীয় গড় আয়ের চাইতে ৬০ শতাংশ কম আয়) ৫,৫৭৫ জন মানুষের উপরে এই গবেষণা চালানো হয়। মাঝবয়সী এই মানুষগুলোর মধ্যে শতকরা ১৮% মানুষ ১৯৮৭-২০০৮ সালের মধ্যে দারিদ্র্যতার মধ্য দিয়ে গিয়েছেন। 

এক্ষেত্রে শারীরিক ও মানসিক- দুটো দিক দিয়েই তাদের কার্যক্ষমতা যাচাই করা হয়। শারীরিক কার্যক্রমের মধ্যে হাতের মুঠো শক্ত করা, লাফ দেওয়া ইত্যাদি অন্তর্গত ছিল। এক্ষেত্রে অর্থনৈতিক সমস্যার মধ্যে দিয়ে অন্তত চার বছর পার করেছেন যারা এমন ব্যক্তিদের কার্যক্ষমতা খুব কম পাওয়া যায়। এছাড়া, তাদের রক্তে প্রদাহও ধরা পড়ে।  

গবেষকেরা এই ফলাফলে আসেন যে, অর্থনৈতিক সমস্যা থেকে দূরে গেলে যেকোন মানুষ বয়সের ছাপকে এড়িয়ে চলতে পারেন। অন্যদিকে, অর্থনৈতিক সমস্যা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে এর উল্টোটা হয়। আমাদের রক্তে সিআরপি-র মাত্রা বেড়ে আয়। তবে, জীবনের প্রথমভাগে কিছু সময়ের জন্য দারিদ্র্যতার মধ্যে থাকলে অবশ্য এই লক্ষণগুলো একজন ব্যক্তির মধ্যে দেখা যায় না। 

অন্যদিকে, পরবর্তী জীবনে কাজ না থাকার কারণে হুট করে যে অর্থনৈতিক সমস্যা তৈরি হয়, সেটা এক্ষেত্রে অনেক বড় ভূমিকা পালন করে। তাই, আপনি যদি পড়াশোনার সময় বা এর কিছুদিন পরে চরম অর্থ সংকটে থাকেন, সেটা আপনাকে খুব বেশি প্রভাবিত করবে না। অন্যদিকে, বয়স বাড়ার সাথে সাথে অর্থনৈতিক এই সমস্যাগুলো মানুষের উপরে অনেক বড় প্রভাব রাখতে শুরু করে। 

কিন্তু, এই গবেষণাটি কতটা সঠিক? প্রতিটি গবেষণার কিছু ছোট ছোট সীমাবদ্ধতা থাকে। বয়স এবং অর্থনৈতিক অবস্থা সংক্রান্ত এই গবেষণাটিও ব্যতিক্রম কিছু না। এখানে অর্থনৈতিক সমস্যায় ভুগলে বয়সের ছাপ ও প্রভাব আমাদের উপরে বৃদ্ধি পায়, এমন সিদ্ধান্ত টানা হলেও, সেটির পাশাপাশি অন্যান্য কারণেও যে এমনটা হতে পারে সেগুলোকে যাচাই করা হয়নি। 

হতে পারে, শুধু বয়স বাড়ার কারণেই এমন সমস্যাগুলো মানুষের মধ্যে দেখা গিয়েছে, অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে নয়। ভিন্ন ভিন্ন সমাজের ও ভিন্ন ভিন্ন সময়ের বয়স্ক মানুষকেও এই গবেষণায় রাখা হয়নি। এতে করে গবেষণার ফলাফল কতটা সঠিক তা নিয়ে আরও চিন্তা করার এবং এ নিয়ে পরবর্তীতে আরও গবেষণা করার প্রয়োজনীয়তা বেড়েছে। 

তবে হ্যাঁ, গবেষকদের গবেষণার তথ্য একেবারে ফেলে দেওয়ার মতোও নয়। তাই, বয়স বাড়ার সাথে সাথে পরিকল্পনা রাখুন, অর্থনৈতিকভাবে স্থির থাকুন। এতে করে আপনার হুট করে কোনো বাজে শারীরিক সমস্যায় পড়ার সম্ভাবনা কমে যাবে।

সূত্র- মেডিকেল নিউজ টুডে 

ওডি/এনএম 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড