• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন

প্রকৃতিতে হেমন্তের রাজত্ব, আসি আসি করছে শীত

  অধিকার ডেস্ক    ০৩ নভেম্বর ২০১৮, ১৫:৪৪

হেমন্ত
ফুলে শিশিরের উপস্থিতি জানান দিচ্ছে শীতের আগমনীর (ছবি : নিশীত মিতু)

প্রকৃতিতে রাজত্ব চলছে হেমন্ত কন্যার। ভোরের ঘাসে শিশিরের উপস্থিতি আর সকালের সোনা রোদ জানান দিচ্ছে, এরপরই আগমন ঘটবে শীতের। কার্তিক আর অগ্রহায়ণ— এ দুই মাস নিয়ে হেমন্তকাল। 

কৃত্তিকা ও আর্দ্রা এ দুটি তারার নাম অনুসারে ‘কার্তিক’ মাসের নামকরণ করা হয়। অন্যদিকে ‘অগ্রহায়ণ’ মাসের নামকরণ করা হয়েছে ‘অগ্র’ ও ‘হায়ণ’ দুটি শব্দের মেলবন্ধনে। যার অর্থ যথাক্রমে ‘ধান’ ও ‘কাটার মওসুম’। সম্রাট আকবর অগ্রহায়ণ মাসকে বছরের প্রথম মাস হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিলেন।  

হেমন্তের মূল সৌন্দর্য উপভোগ করা যায় গ্রাম বাংলায়। কুয়াশার চাদর ইতোমধ্যেই আলতো মায়ার চাদর বিছিয়ে দিয়েছে গ্রামের পথ প্রান্তরে। বর্ষায় লাগানো আমন ধানে ধরেছে সোনালি পাক। অধরে তৃপ্তির হাসি নিয়ে কাঁচি হাতে তাই ফসলের খেতে যাচ্ছেন কৃষকরা। এইতো কদিন বাদেই ঘরে তোলা হবে নতুন ফসল, শুরু হবে নবান্ন উৎসব। 

ফসলের মাঠ তার পুরো সৌন্দর্য নিয়ে সেজেছে। দিগন্ত বিস্তৃত মাঠ জুড়ে পাকা ধানের সোনালি আভাই জানান দিচ্ছে হেমন্তের শাসনকাল আর দিচ্ছে শীতের আগমনী বার্তা। 

হেমন্ত কন্যাকে সাজিয়ে রাখে নানা রঙের ফুল। সে দৃশ্যই ধরা পড়ছে প্রকৃতিতে। গন্ধরাজ, মল্লিকা, শিউলি, কামিনী, হিমঝুরি, দেব কাঞ্চন, রাজ অশোক, ছাতিম, বকফুলসহ আরো নানা প্রজাতির ফুল ছড়াচ্ছে নিজের সুরভি। গাঁয়ের পথের ধারে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানো ছাতিমের তীব্র ঘ্রাণে মোহিত হবে যে কেউ। 

ভোরের কুয়াশা, দখিনা বাতাস আর সোনা রোদ মিলে হেমন্ত। নিজের বৈশিষ্ট্যের মাধ্যমে প্রকৃতিতে দারুণ শাসন চালাচ্ছে সে। আর এরপরই আসবে শীত। 
 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড