• সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩ পৌষ ১৪২৬  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন

ডান্স প্লেগ : নাচতে নাচতেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়া

  অধিকার ডেস্ক    ৩১ অক্টোবর ২০১৮, ১৪:৫৯

নাচতে নাচতে মৃত্যু
ছবি : প্রতীকী

হঠাৎ করেই শুরু হল উদ্দাম এক নাচ। নাচের তালে যোগ দিলেন আশেপাশের অন্যান্যরাও। নাচলেন তো বটেই কিন্তু নাচতে নাচতেই ঢলে পড়লেন মৃত্যুর কোলে। এ যেন মৃত্যুর নাচ! নাহ, কোনো রূপকথার গল্প নয়, বাস্তব ইতিহাসেই এমন ঘটনা ঘটেছিল। 

১৫১৮ সালের কথা। বর্তমান ফ্রান্সের স্ট্রসবার্গে প্রায় ৬০০ বছর আগে ‘ডান্স প্লেগ’ নামে অদ্ভুত এক কারণে মৃত্যু হয়েছিল অসংখ্য মানুষের। ইতিহাসবিদরা এ বিষয়ে নানা রকম তত্ত্ব দিয়েছেন, রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন মতও। 

ঘটনার সূত্রপাত- 

জুলাই মাস, গরমের সময়। এমনই একদিন রাস্তায় ত্রোফিয়া বা ত্রোউফিয়া নামের একজন নারী নাচতে শুরু করলেন। নাচা খুব একটা খারাপ নয়, কিন্তু তা যদি না থামে? এই নাচিয়ে নারীর ক্ষেত্রে তেমনটাই হলো। সারাদিন পেরিয়ে রাতের আঁধার নেমেছিল কিন্তু তার নাচ আর থামছিল না। 

সপ্তাহখানেক পর দেখা গেল, তার সঙ্গে নাচছেন অসংখ্য মানুষ। অদ্ভুত আর দুর্দমনীয় সে নাচ কিছুতেই থামানো যাচ্ছিল না। কেউ কেউ অজ্ঞান হলেও বাকিরা নাচ থামাচ্ছিল না। শহরের শাসকগোষ্ঠী ভাবলেন, এভাবে অবিরত আর বাধাহীনভাবে নাচতে দিলে একসময় ক্লান্ত হয়ে নাচ থামিয়ে দেবে নাচিয়েরা। আর তখন বন্ধ হবে এই উন্মাদ নৃত্য। তাই তারা শহরের টাউনহলে মানুষের নাচার ব্যবস্থা করে দিলেন। 

তাদের নাচের তাল দেখিয়ে দিতে ডাকা হলো শহরের নামকরা গায়ক, বাদ্যযন্ত্রী, পেশাগত নাচের শিক্ষকদের। কিন্তু শাসকদের পুরো পরিকল্পনার ফলাফল হলো বিপরীত। নাচের ঝোঁক তো কমলোই না উল্টো দুই একদিনের মধ্যে এই নাচিয়েদের মধ্যে যারা দুর্বলচিত্তের তারা হার্ট ফেইল, সেরেব্রাল স্ট্রোক কিংবা অবসাদের কারণে মারা যেতে শুরু করল। 

লোক মুখে প্রচলিত রয়েছে সে সময় প্রায় কয়েকশত মানুষ মারা যান। যদিও, সাম্প্রতিক এক গবেষণায় বলা হয়েছে এ ঘটনায় মাত্র ১২ জন মানুষ মারা গিয়েছিল। 

কেন এমন করেছিলেন তারা? 

শোনা যায় দীর্ঘদিন ধরে কিছু ব্যক্তিকে অন্ধকার আর বন্ধ ঘরে আটকে রাখা হয়েছিল। যাদের কেবল পানি আর পাউরুটি দেওয়া হতো। তাদের মধ্যে কিছু ব্যক্তিকে ছেড়ে দেওয়া হয়। আর তারপরি তাদের মধ্যে এই নাচের ঝোঁক দেখা যায়। 

অনেকে আবার মনে করেন টারান্টুলা মাকড়শার কামড়ের কারণেই এমন অদ্ভুত আচরণ করেছিলেন সে সময়ের একাধিক মানুষ। 

১৫২৬ সালে প্রথম বার প্যারাসেলসাস নামে এক জন অ্যালকেমিস্ট বলেন, ধারণা করা হয় স্বামীর বাধা না মেনেই নাচ শুরু করেছিলেন ত্রোফিয়া। পরবর্তী সময়ে অন্যান্যরাও এতে যোগ দেন। মূলত, স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ ভালো ছিল না এমন নারীরাই এ নাচে যোগ দিয়েছিলেন। এমনটাই উল্লেখ করেন তিনি। 

তবে এটিই প্রথম এবং একমাত্র নাচের মহামারী নয়। ১৫১৮ সালের পূর্বে ইউরোপের বিভিন্ন স্থানে কমপক্ষে ১০ বার এ মহামারীর দেখা পাওয়া গিয়েছিল। ১৩৭৪ সালের দিকে বর্তমান বেলজিয়াম অঞ্চলে, উত্তর-পূর্ব ফ্রান্সে এবং লুক্সেমবার্গে এ মহামারী দেখা গিয়েছিল। 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড