• শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন

আত্মহত্যার হাত থেকে বাঁচালো ফেসবুক

  ভিন্ন খবর ডেস্ক

২৫ জুলাই ২০১৯, ২১:৩০
ফেসবুক
ছবি : প্রতীকী

ফেসবুক লাইভ নিয়ে মানুষের মাতামাতির শেষ নেই। এই লাইভের মাধ্যমে বেশ চমকপ্রদ ঘটনাও ঘটতে দেখা যায় পৃথিবীর নানা প্রান্তে। তবে ফেসবুক লাইভের কারণে কারও প্রাণ বেঁচে গেছে এমন ঘটনা সত্যিই বিরল। এমনই একটি ঘটনা ঘটে ভারতে। ফেসবুকের কল্যাণে আত্মহত্যার হাত থেকে বাঁচানো গেছে এক ব্যক্তিকে।

জানা যায়, কলকাতা শহরে বসবাসকারী এই ব্যক্তি একটি ফ্লাইওভারের ওপর ওঠে ফেসবুক লাইভে আসেন। সেখানে তিনি বলেন আর কিছুক্ষণের মধ্যেই এখান থেকে লাফ দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করবেন। তার এমন কথা শুনে ফেসবুক থেকে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। তার অবস্থানের আইপি এড্রেস ফেসবুক খুঁজে বের করে। আর দেরি না করেই ফোন দেয় কলকাতা পুলিশকে। কলকাতা পুলিশের সাইবার সেলে ফেসবুক লাইভের লিংকও পাঠানো হয় ফেসবুক থেকে।

এরকম ঘটনার মুখোমুখি এর আগে কলকাতা পুলিশ কখনো হয়নি। তবে তারা বুঝতে পারে হাতে সময় খুব কম। যা করার খুব দ্রুত করতে হবে। হুট করে ফ্লাইওভারে তার অবস্থান পাওয়া সম্ভব না। তাই ফেসবুক থেকেই এই ব্যক্তির দুটি মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করে পুলিশ। একটি নাম্বার পাওয়া যায় বন্ধ হিসেবে। অন্যটি ধরেন এক নারী। তিনি জানান, তার এখানে গাড়ি চালক হিসেবে কাজ করতেন একসময় এই লোক। আর তার কাছ থেকেই ঠিকানা সংগ্রহ করে পুলিশ।

এবার অভিযান শুরু হয় ওই ব্যক্তির সঠিক অবস্থান খুঁজে বের করার। তার বাড়ির ঠিকানায় এক অফিসার পৌঁছে তার মাকে দিয়ে ওই ব্যক্তিকে ব্যস্ত রাখেন আলাপে আলাপে। অন্য আরেকটি দল পৌঁছে যায় ফ্লাইওভারের কাছে। দক্ষিণ কলকাতার বালিগঞ্জ এলাকায় বন্ডেল রোড ফ্লাইওভারের ওপর দাঁড়িয়ে ফেসবুক লাইভে এসেছিলেন ওই ব্যক্তি। একজন অফিসার সাবধানে পৌঁছে যান ওই ব্যক্তির কাছে। আর তারপর তাকে নানাভাবে বুঝিয়ে নিরস্ত করা হয় আত্মহত্যার থেকে।

অবশেষে পুলিশই তাকে বাড়ি পৌঁছে দিয়ে আসে। এমন একটি ঘটনার জন্য সবার প্রশংসায় ভাসছে কলকাতার পুলিশ। বিশেষ করে কলকাতা পুলিশের সাইবার টিমের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছেন অনেকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বেশ আলোড়ন তুলেছে ঘটনাটি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে ফেসবুকের এমন ব্যবহার সবার প্রশংসা কুড়িয়েছে।

"এটি খুবই বিরল একটি ঘটনা। ফেসবুককে ধন্যবাদ। তারা দ্রুত না জানালে হয়তো একটি মৃত্যুর খবর শুনতে হতো আমাদের।" এমন ঘটনা সম্পর্কে আপ্লুত হয়েই বলছিলেন কলকাতা পুলিশের সাইবার অপরাধ সংক্রান্ত স্পেশ্যাল পাবলিক প্রসেকিউটার বিভাস চ্যাটার্জী। তিনি দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদেরকেও সাধুবাদ জানিয়েছেন এমন একটি কাজ করতে পারায়।

সুত্র : বিবিসি

ওডি/এসএম 

আপনার চোখে পড়া অথবা জানা অন্যরকম অথবা ভিন্ন স্বাদের খবরগুলোও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাই সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড