• সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩ পৌষ ১৪২৬  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন

ইটের উপাদান মানব মূত্র!

  অধিকার ডেস্ক    ০১ নভেম্বর ২০১৮, ১২:২৩

মানব মূত্রে ইট
ছবি : সংগৃহীত

মাটি বিশেষ প্রক্রিয়ায় পুড়িয়ে তৈরি করা হয় ইট। আর সেই ইট দিয়ে গড়ে ওঠে দালান কোঠা। কিন্তু কখনও কি শুনেছেন মাটি নয় বরং মানুষের মূত্র দিয়ে তৈরি হয়েছে ইট? না শোনারই কথা। কেননা, এই প্রথমবারের মতো মানুষের মূত্র দিয়ে ইট বানানোর মতো অদ্ভুত ঘটনা সম্ভব করে দেখিয়েছেন গবেষকরা।

এ কাজে যুক্ত ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। তারা জানাচ্ছেন, বিশেষ বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অবলম্বনে তৈরি করা হয়েছে এই বায়ো ইট। বিজ্ঞানের ভাষায় এর নাম দেওয়া হয়েছে ‘মাইক্রোবায়াল কার্বোনেট প্রিসিপিটেশন’।

এই ইট বানানোর জন্য প্রথমে বালি ও বিশেষ ধরনের ব্যাকটেরিয়া ব্যবহার করে মূত্রের ইউরিয়া বের করে নেওয়া হয়। এরপর বিভিন্ন কেমিক্যাল প্রতিক্রিয়ার মাধ্যমে তৈরি করা হয় ক্যালসিয়াম কার্বোনেট। এরপর এই বালিকে যে কোনো আকার দিয়ে ইটে পরিনত করা যায়।

গবেষকরা বিভিন্ন আকারের ইট তৈরি করে তার শক্তি পরীক্ষা করেন। এতে খুঁটিয়ে দেখা হয়, এই ইট দিয়ে আদৌ বাড়ি তৈরি সম্ভব হবে কিনা। এ পরীক্ষাতেও উত্তীর্ণ হন তারা। সবচেয়ে মজার বিষয় হলো, এই ইট দিয়ে বাড়ি তৈরি করলে তাপমাত্রাও থাকবে তুলনামূলক কম। সবমিলিয়ে বিশ্ব উষ্ণায়নের যুগে এমন আবিষ্কার নিঃসন্দেহে চমকপ্রদ।

ব্যবহারকারী ঠিক যেমন চাইবেন তেমন তাপমাত্রার ইট তৈরি করে দেওয়া সম্ভব বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। এই ইটকে কী করে আরও শক্তিশালী করা যায়, তা লেখা রয়েছে এ বিষয়ের জার্নালে।

এর আগে আমেরিকায় সিন্থেটিক সলিউশন ব্যবহার করে ইট তৈরির চেষ্টা করা হলেও, মানুষের মূত্র দিয়ে বায়ো ইট তৈরির ভাবনা এই প্রথম। আর এই ভাবনা সম্পূর্ণরূপে সফলও হয়েছে।

এবার থেকে মানুষের মূত্র থেকে তৈরি ইট দিয়ে তৈরি হবে ঘরবাড়ি।

আপনার চোখে পড়া অথবা জানা অন্যরকম অথবা ভিন্ন স্বাদের খবরগুলোও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাই সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড