• বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

২৩ লাখ টাকার কালো ঘোড়া, পানি ঢালতেই লাল!

  ভিন্ন খবর ডেস্ক

১৭ মে ২০২২, ২০:০৫
কুচকুচে কালো ঘোড়া
কুচকুচে কালো ঘোড়া। (ছবি : সংগৃহীত)

গবাদিপশু ও উপকারী প্রাণী ছাড়াও আজকাল অনেকে শখ করে বাড়িতে কুকুর, বিড়াল, খরগোশ ইত্যাদি প্রাণী লালনপালন করেন। পাখিও পোষেন অনেকে। তবে পোষা প্রাণী হিসেবে বিড়াল ও কুকুরই সবচেয়ে জনপ্রিয়। তবে কেউ কেউ ঘোড়া পুষতেও পছন্দ করন। প্রাণীটি দামে বেশি ও স্থান বিবেচনায় অনেকেই পুষতে পারেন না। তবে কারও কারও কাছে এসব কোনো সমস্যাই নয়।

তেমনই একজন ভারতের পাঞ্জাবের রমেশ কুমার। ঘোড়াপ্রেমী এই মানুষটি এর জন্য ব্যয় করেছিলেন ২৩ লাখ টাকা। বিরল প্রজাতির কুচকুচে কালো ঘোড়াটি কেনার ইচ্ছে ছিল পাঞ্জাবের ওই ব্যবসায়ীর। তবে মারোয়ারি নামের ঘোড়াটি কিনতে গিয়েই ঘটে বিপত্তি।

জানা যায়, একদম কুচকুচে কালো ঘোড়ার সন্ধান চালাতে গিয়ে রমেশ কুমারের সঙ্গে আলাপ হয় তিন ঘোড়া ব্যবসায়ীর। রমেশের পছন্দের ঘোড়া তাকে জোগাড় করে দেওয়া যাবে বলে জানান ওই তিন জন। সেই মতো ঘোড়া নিয়ে হাজির হন জিতেন্দ্র পাল সিংহ সেখোঁ, লখিন্দর সিংহ এবং লাচরা খান নামের ওই তিন ব্যবসায়ী। দাম শুনেও পিছপা হননি রমেশ। ২৩ লাখ টাকা দিয়ে কিনে নেন সেই ঘোড়া।

এর কয়েক দিন পরেই ধাক্কা খেতে হয় তাকে। ঘোড়াকে গোসল করাতে যান রমেশ। আর তখনই তিনি দেখেন, ঘোড়ার গা থেকে কালো রং উঠছে। প্রথমে ভেবেছিলেন- হয়তো ঘোড়ার গায়ে ময়লা পড়েছে। কিন্তু একটু পরই ভুল টের পান। যতই তিনি পানি ঢালেন, ততই উঠতে থাকে রং।

এক সময়ে ঘোড়ার গায়ের রং বাদামি হয়ে যায়। রমেশ বুঝতে পারেন, তাকে জবরদস্ত ঠকানো হয়েছে। এরপরই পুলিশের দ্বারস্থ হন রমেশ কুমার। ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

ওডি/জেআই

আপনার চোখে পড়া অথবা জানা অন্যরকম অথবা ভিন্ন স্বাদের খবরগুলোও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাই সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড