• মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চা আর কলা খেয়েই ২৭ বছর পার করছেন এই বৃদ্ধা!

  ভিন্ন খবর ডেস্ক

০২ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৩:১০
ঊর্মিলা চতুর্বেদী
ঊর্মিলা চতুর্বেদী; (ছবি- ইন্টারনেট)

মাঝেমধ্যেই সকালের নাস্তায় কলা রাখি আমরা। সঙ্গে হয়তো থাকে এক কাপ চা। কিন্তু ঊর্মিলা চতুর্বেদীর বেলায় গল্পটা একটু ভিন্ন। গত ২৭ বছর ধরে কেবল কলা আর চা খেয়েই বেঁচে আছেন এই বৃদ্ধা! বর্তমানে তার বয়স ৮৭ বছর। এই দুই খাবার খেয়েই এই বয়সেও সুস্থ আছেন তিনি। 

জানা যায়, ঊর্মিলা চতুর্বেদী ভারতের মধ্যপ্রদেশের জবলপুরের বাসিন্দা। ১৯৯২ সালে বাবরি মসজিদ ধ্বংস হওয়ায় ভারতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হয়। সেই ভয়াবহ দাঙ্গায় নিহত হন প্রায় ২ হাজার হিন্দু ও মুসলমান। তখন থেকেই উপোস থাকতে শুরু করেন ঊর্মিলা। কেবল কলা আর চা খেয়ে কাটিয়ে দিয়েছেন গত ২৭ বছর।  

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা যায়, অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের ব্রত হিসেবে এ খাদ্যাভ্যাস বেছে নিয়েছিলেন তিনি। এই সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি দেখেছিলাম হিন্দু আর মুসলিম ভাইয়েরা একে অন্যকে খুন করছে। দৃশ্যগুলো দেখার পর থেকে আমি খাওয়া ছেড়ে দিয়েছিলাম। এরপর কেটে গেছে ২৭ বছর।’

তিনি জানান, এত বছর ধরে তার এই খাদ্যাভ্যাস নিয়ে ঠাট্টা করেছেন অনেকেই। এই ব্রত থেকে সরে আসার পরামর্শও দিয়েছিলেন। কিন্তু নিজের অবস্থানে অনড় ছিলেন ঊর্মিলা। সম্প্রতি, অযোধ্যার রায় হওয়ার পরও তাকে জোর করে খাওয়ানোর চেষ্টা করে তার পরিবার। তাতেও রাজি করানো যায়নি তাকে। 

ঊর্মিলার পরিবার জানায়, তিনি যতদিন না অযোধ্যায় গিয়ে রামের আশীর্বাদ পাবেন; ততদিন পর্যন্ত খাবার গ্রহণ করবেন না। শরীরের জোর কমলেও মনের জোর এতটুকুও কমেনি এই বৃদ্ধার। গত ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের রায়ের সময় টেলিভিশনের দিকে তাকিয়ে ছিলেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত ৯ নভেম্বর স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টায়  ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ মামলা নিয়ে রায় ঘোষণা করে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। এই রায়ে বলা হয়, অযোধ্যার বাবরি মসজিদের স্থানে নির্মিত হবে রাম মন্দির। বিকল্প হিসেবে বাবরি মসজিদ নির্মাণের জন্য মুসলিম ওয়াকফ বোর্ডকে অন্যত্র দেওয়া হবে পাঁচ একর জমি।  

ওডি/এনএম 

আপনার চোখে পড়া অথবা জানা অন্যরকম অথবা ভিন্ন স্বাদের খবরগুলোও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাই সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড