• বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রাত হলেই অদৃশ্য কেউ হাঁটছে ‘হল’ ঘরে! (ভিডিও)

  ভিন্ন খবর ডেস্ক

০৯ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:৪৫
ভূত
অদৃশ্য কে যেন হাঁটছে (ছবি : সংগৃহীত) 

‘ভূত’ নিয়ে তর্ক-বিতর্ক বহু দিন ধরে চলে আসছে। কেউ বিশ্বাস করেন। আবার কেউ তুচ্ছ মনে করে উড়িয়ে দেন। কয়েকদিন আগেও এমনটিই মনে করতেন এক দম্পতি। বর্তমানে তারা ভূতের ভয়ে ঘর ছেড়ে আত্মীয়-স্বজনের বাসায় রাত কাটাচ্ছেন। ভুতুড়ে কাণ্ডে সূর্য ডুবলেই স্বেচ্ছায় ‘ঘর ছেড়ে’ বেরিয়ে পড়ছেন ওই দম্পতি। রহস্যময় এ ঘটনাটি ঘটেছে ফ্রান্সে।

রোমহর্ষক ভুতুড়ে কাণ্ডে কাতর স্টিফেন লি ও জেমস দম্পতি বলছেন, নিজের চোখ, কানকে কীভাবে অস্বীকার করি বলুন! অভিজ্ঞতার চেয়ে বড় শিক্ষক তো আর কেউ নেই।

জানা গেছে, স্টিফেন লি ও তার স্ত্রী জেমস তাদের দুইটি পোষা প্রাণী নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে একটি বাড়িতে থাকেন। কিছুদিন ধরে ওই বাড়ির পরিবেশ কেমন যেন রহস্যময় হয়ে উঠেছে।

অন্ধকার হলে বাড়িটি জুড়ে গায়ের লোম খাঁড়া হয়ে যাওয়ার মতো অবিশ্বাস্য কিছু ঘটনা ঘটছে। রাত হলেই কারা যেন অদৃশ্যভাবে হাঁটা-চলা করছেন ওই দম্পতির হল ঘরে! এই সন্দেহ থেকে হল ঘরের এক কোনায় সিসিটিভি ক্যামেরা লাগান তারা। পরে সিসিটিভি ফুটেজে ভয়াবহ দৃশ্য ধরা পড়ে। এরপর থেকে রাত হলেই ‘ঘর ছেড়ে’ বের হয়ে যেতে বাধ্য হচ্ছেন ওই দম্পতি।

সামনে আসছে ক্রিস্টমাস বা বড়দিন। বড়দিনকে ঘিরে নিজেদের বাড়ি সুন্দর করে সাজিয়ে তুলেছেন তারা। হল ঘরে টুনি বাল্বের পাশাপাশি ক্রিস্টমাস ট্রি এনেছেন ওই দম্পতি। সেই ক্রিস্টমাস ট্রি কে ঘিরে যত সব ভুতুড়ে কাণ্ড ঘটে চলেছে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যাচ্ছে- রাতে দম্পতি বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার পর হঠাৎ করেই বদলে যাচ্ছে ক্রিস্টমাস ট্রিতে থাকা টুনি বাল্বের আলোর রঙ! এমনকী তাদের বাড়ির পোষ্য বেড রুম ছেড়ে ভয়ানক চোখে বের হয়ে আসছে ঘর থেকে। অজানা আতঙ্কে পোষ্য দুটি হল ঘরের এদিকে ওদিকে ছুটে বেড়াচ্ছে। কে যেন অদৃশ্য ভাবে হাঁটছে। এখানেই শেষ নয়, মাঝে-মধ্যে হঠাৎ এদিক, ওদিক থেকে জিনিসপত্র শব্দ সহকারে মাটিতে পড়ে যাচ্ছে। অদৃশ্য কেউ যেন জিনিসপত্রগুলো ছুঁড়ে ফেলে দিচ্ছে।

স্টিফেন লি বলেন, এমন একাধিক ভুতুড়ে কাণ্ড দেখার পর রাতের বেলা আর বাড়িতে থাকার ঝুঁকি নিচ্ছি না। 

দম্পতি ইতোমধ্যে বাড়িটিকে ‘হন্টেড’ হিসেবে মেনে নিয়েছেন। খবর কলকাতা২৪।

এই ভুতুড়ে কাণ্ডের বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে ওই দম্পতি জানতে পারেন, বাড়িটির জায়গায় আগে একটি হাসপাতাল ছিল। ওই হাসপাতালে অসংখ্য রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ কারণে বাড়িতে ভুতুড়ে কাণ্ডের পেছনে হাসপাতালের রোগীদের মৃত্যুর যোগসাজস উড়িয়ে দিচ্ছেন না ওই দম্পতি।

ওডি/টিএএফ

 

আপনার চোখে পড়া অথবা জানা অন্যরকম অথবা ভিন্ন স্বাদের খবরগুলোও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাই সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড