• বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন

এমআইটির বৃত্তি পেলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইউসুফ

  শিক্ষা ডেস্ক

১৭ আগস্ট ২০১৯, ১৯:৪৫
ইউসুফ
বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইউসুফ (ছবি : সংগৃহীত)

ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটি থেকে প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন। কিন্তু কথায় আছে ভাগ্যের লিখন যায় না খণ্ডন। আর এই কথার বাস্তব উদাহরণ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মোহাম্মদ ইউসুফ আহমেদ (১৮)।

ক্যামব্রিজে চান্স না পেলেও ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে (এমআইটি) পড়ার সুযোগ পেয়েছেন। সেই সঙ্গে আড়াই লাখ পাউন্ডের বৃত্তিও পেয়েছেন।

ইউসুফের মা শিফা বেগম (৩৯)। ১৯৯৮ সালে তিনি বাংলাদেশ ত্যাগ করেন। লন্ডনে একজন অপটিশিয়ানের রিসিপশনিস্ট হিসেবে কাজ করছেন। তিনি এখন রত্নগর্ভা একজন মা। তার ছেলে আড়াই লাখ পাউন্ড বৃত্তি নিয়ে বিশ্বের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যাচ্ছেন। 

এমআইটিতে ইউসুফ পদার্থবিজ্ঞান ও মহাশূন্য বিষয়ক ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা করবেন। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের আরেকটি শীর্ষ স্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয় হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে ডাক পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তাদের ডাকে সাড়া না দিয়ে ইউসুফ এমআইটিকে বেছে নিয়েছেন।

মা শিফা বেগম ও ছোট দুই ভাইকে নিয়ে লন্ডনে তাদের বসবাস। এমআইটিতে পড়ার সুযোগ পেয়ে ইউসুফের যেন স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। কারণ, মহাশূন্য বিষয়ে তিনি সব সময়ই আগ্রহী। রাতের বেলা বেশির ভাগ সময় টেলিস্কোপ নিয়ে আকাশে চাঁদের দিকে তাকিয়ে থাকেন। এখন আর তা করতে হবে না। তার স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে। এ- লেভেলে ম্যাথ, ফারদার ম্যাথ, ফিজিক্স ও কেমিস্ট্রি পড়ার সময়ই তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাওয়া সম্পর্কিত পরীক্ষা দেন। এতেই জুটে যায় বৃত্তি।

এ সম্পর্কে ইউসুফ বলেন, ‘যখন ক্যামব্রিজ আমাকে প্রত্যাখ্যান করলো, হৃদয় ভেঙে গিয়েছিল। সত্যিকার অর্থে বলছি, আমি কখনো ভাবিনি যে, যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যাবো। এরপর এমআইটির চিঠি এলো। তারপর হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের চিঠি। মহাকাশ বিষয়ক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের জন্য যেহেতু এমআইটি বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বিশ্ববিদ্যালয়, তাই আমি এটিকেই বেছে নিলাম। এক্ষেত্রে আমাকে উৎসাহ দিয়েছেন আমার শিক্ষকরা। মানব জাতির জন্য অর্থবহ এমন কিছু আবিষ্কার করতে চাই।’

মায়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ইউসুফ বলেন, ‘আমার মা সব সময়ই আমাকে উৎসাহ দিয়েছেন। যখনই স্কুলে কোনো প্রয়োজন হতো, অথবা বইয়ের দরকার হতো, সবই মিটিয়েছেন মা।’

ওডি/এমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড