• রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

গ্যাসের গাড়ি চালিয়ে তেলের বিল নেন তিনি!

  শিক্ষা ডেস্ক

২৭ মে ২০১৯, ১৬:৪৩
রেবেকা
জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা (ছবি : সংগৃহীত)

গাজীপুর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানার বিরুদ্ধে সিএনজি গ্যাসে গাড়ি চালিয়ে জ্বালানি তেলের বিল নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে এমপিও, টাইম স্কেলসহ বিভিন্ন ইস্যুতে শিক্ষকদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ ও করেছেন ভুক্তভোগী শিক্ষক-কর্মচারীরা। 

ভুক্তভোগীরা জানান, প্রতিষ্ঠানের নাম কর্তন, এমপিও, টাইম স্কেল, নিয়োগ, শ্রেণি অনুমোদন এবং শিক্ষকদের বিভিন্ন তদন্ত রিপোর্টে ঘাপলা করে তাদের চাপে ফেলে ঘুষ নেন শিক্ষা কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা। এই ঘুষের প্রস্তাব দিতে ও টাকার পরিমাণ নির্ধারণে তিনি পিয়ন নুরু ও অফিস সহকারী জালালকেও কাজে লাগান। ঘুষের একটি অংশের টাকা পান তারা। তবে শিক্ষা কর্মকর্তা নিজেই হাতে হাতে এই ঘুষের টাকা নিয়ে থাকেন।

ভুক্তভোগীরা আরও জানান, যেকোনো প্রয়োজনে শিক্ষকরা কর্মকর্তার দপ্তরে গেলে নুরুর মাধ্যমে অথবা রেবেকা সুলতানা নিজেই তাকে ফোন করে ডেকে নেন। এরপর বিভিন্ন ইঙ্গিতে তিনি ঘুষ দাবি করেন। কখনও কখনও নুরুর মাধ্যমে ঘুষের টাকা চান। টাকা না দিলে ফাইল আটকে দেন। বিভিন্ন কাজের জন্য ৫০০ থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত ঘুষ নেন এই কর্মকর্তা। এর বাইরে নিয়োগ সংক্রান্ত কোনো বিষয় হলে ঘুষের পরিমাণ কয়েক লাখ টাকা পর্যন্ত চলে যায়।

জানা যায়, অর্থ আত্মসাৎসহ নানা অনিয়মের কারণে বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা তার বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিলও করেছেন। ২০১০ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি তিনি গাজীপুর জেলা শিক্ষা অফিসে শিক্ষা কর্মকর্তা বদলি হয়ে আসেন। এরপর ২০১৪ সালের ৪ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে বদলি হলেও ‘উচ্চ পর্যায়ে লবিং করে’ ২০১৫ সালের ৩ ডিসেম্বর গাজীপুরে ফিরে আসেন। সেই থেকে তিনি গাজীপুরেই আছেন। অভিযোগ আছে, কর্মজীবনের শুরু থেকেই তিনি ঘুষ ও অর্থ আত্মসাৎ করে আসছেন।

ওডি/এমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড