• সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

নিজ দেশে ফিরে যেতে রোহিঙ্গাদের দুই শর্ত||এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী  ||উদ্বেগ থাকলেও ভারতের ওপর বিশ্বাস রাখতে চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ||ছাত্রলীগের চাঁদাবাজি ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ : রিজভী ||কাশ্মীরে জঙ্গি অনুপ্রবেশের অভিযোগে সীমান্তে‌ হাই অ্যালার্ট||ভারতের পর এবার বিশ্বকে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি পাকিস্তানের||সোমবার আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক||মেক্সিকোয় কুয়া থেকে ৪৪ মরদেহ উদ্ধার করল বিজ্ঞানীরা||অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না : কাদের    ||সৌদির তেল স্থাপনাতে হামলায় ইরানকে দায়ী করল যুক্তরাষ্ট্র

বরগুনার বেতাগী সরকারি কলেজের অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

  বরগুনা প্রতিনিধি

১৮ মে ২০১৯, ১২:১২
কলেজ
বেতাগী সরকারি কলেজ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের চিঠি উপেক্ষা করে বরগুনার বেতাগী সরকারি কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ফরম পূরণের নামে মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে।

জানা গেছে, বোর্ডের নির্ধারিত ফি ছিল ৮০০ টাকা সেখানে কলেজ কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন বিভাগ অনুযায়ী ১৬০০ থেকে ১৮০০ টাকা পর্যন্ত আদায় করেছে। একইসাথে কোনো নির্ধারিত বিষয় ছাড়া, এবং রিসিভবিহীন অতিরিক্ত ২০০ টাকা বেশি আদায় করছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজ থেকে পাওয়া তথ্যনুসারে, এবারে অনুষ্ঠিতব্য স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষ পরীক্ষায় বেতাগী সরকারি কলেজ থেকে ৪২৩ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করছে। এর মধ্যে বিভিন্ন বিভাগ থেতে ২৩৫ জন (১৬ মে পর্যন্ত) পরিক্ষার্থী ইতোমধ্যে ফরম পূরণ করেছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

তবে একাধিক অভিভাবক ও শিক্ষার্থীর অভিযোগ কলেজ কর্তৃক যে কোনো পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অধ্যক্ষ ও কেরানি দীর্ঘদিন ধরে অতিরিক্ত ফি আদায় করছে বলে তারা জানান। তারা বলেন সরকারি নিয়ম অনুযায়ী ৮০০ টাকার। যা কলেজ কর্তৃপক্ষ সর্বনিম্ন ১৪০০ থেকে ১৮০০ টাকা করে নিচ্ছে। যা সরকারি খাতে জমা দেওয়ার পরও ৫ লক্ষাধিক বেশি টাকা অধ্যক্ষের পকেট থাকে।

বেতাগী সরকারি কলেজে পড়ুয়া স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের মো. ফেরদাউস নামের এক পরিক্ষার্থী জানান, আমিসহ আমার বেশ কয়েকজন বন্ধু মিলে ব্যাংকের কলেজের একাউন্টে টাকা জমা দিয়ে রশিদ নিয়ে কেরানি দিপক সাক্ষাৎ করা হলে রসিদ জমা নেয়ার নাম করে কোনো রিসিভ ছাড়াই ২০০ টাকা নিয়েছে বলে জানান তারা । তারা আরও বলেন, ভর্তির সময় কলেজ কর্তৃপক্ষ সকল পরীক্ষার ফি আগেই নিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

রাসেল হোসেন নামক এক অভিভাবক বলেন, আমিও আমার স্ত্রীর ফরম পূরণের জন্য ব্যাংকে কলেজের একাউন্টে ১৪০০ টাকা জমা দেওয়ার পরও কেরানি ৪০০ টাকা কোনো রিসিভ ছাড়াই দাবি করলে আমি অনেক জোর ও তর্ক করে ২০০ টাকা দিয়ে এসেছি।

নাম না প্রকাশের শর্তে বেতাগী সদর ইউনিয়নের একজন জনপ্রতিনিধি বলেন, ‘বেতাগী সরকারি কলেজের দুর্নীতি নতুন নয়। কলেজটাকে অধ্যক্ষ নুরুল আমিন ও কেরানি দিপক চুষে খাচ্ছেন। এমন কোনো পরীক্ষা নেই যে পরীক্ষায় ফরম পূরণের নামে অতিরিক্ত টাকা আদায় না করছে। এ ব্যাপারে প্রশাসনের নজর নেই বললেই চলে।’

এ দিকে সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. নুরুল আমীন মুঠোফোনে দৈনিক অধিকারের প্রতিনিধিকে জানান আমরা বোর্ডের নিয়মনীতি মেনেই ফরম ফিলাপ করছি, অতিরিক্ত কোনো ফি আদায় করছি না। শিক্ষার্থীদের অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন শিক্ষার্থীদের অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। 

ওডি/এসজেএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড