• বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৭ ফাল্গুন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করায় শিক্ষককে স্ট্যান্ড রিলিজ

  শিক্ষা ডেস্ক

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬:৪৩
ছাত্রী উত্যক্ত
শিক্ষা মন্ত্রণালয় (ছবি : সংগৃহীত)

ক্লাসে ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তা সহকারী অধ্যাপক রশিদ আহমেদ তালুকদারকে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়েছে।

বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. ফরহাদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক চিঠির মাধ্যমে এ তথ্য জানা যায়। ওই শিক্ষককে নেত্রকোণা সরকারি মহিলা কলেজ থেকে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া সরকারি কলেজে বদলি করা হয়।  

চিঠিতে বলা হয়, ‘বৃহস্পতিবারের মধ্যে বর্তমান কর্মস্থল থেকে অবমুক্ত হবেন রশিদ আহমেদ। অন্যথায় একই তারিখ অপরাহ্নে তাৎক্ষণিকভাবে অবমুক্ত মর্মে গণ্য হবেন।’ ১২ ফেব্রুয়ারি বিকালে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এই নোটিশ প্রকাশ করা হয়।

এর আগে গত ১০ ফেব্রুয়ারি দুপুরে ছাত্রীদের ফেসবুকে অভিযুক্ত শিক্ষকের পাঠানো বিভিন্ন স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়। বিষয়টি সকলের নজরে এলে এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এলাকাবাসী। পরে সবার উপস্থিতিতে কলেজের অধ্যক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন এক ছাত্রী। এ সময় এলাকাবাসী অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনার সত্যতা মেলে। পরে তিনি ক্ষমাও চান।

প্রাথমিকভাবে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে একাধিক শিক্ষার্থীকে বিভিন্নভাবে হেনস্তা ও উত্ত্যক্তের অভিযোগ পাওয়া যায়। এর মধ্যে ছাত্রীদের মোবাইল নম্বর চাওয়া এবং তা না দিলে পরীক্ষার হলে দেখে নেওয়ার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া কবিতার বই বিক্রি করে দেওয়ার জন্যও তিনি ছাত্রীদের বাধ্য করতেন বলে অনেকের অভিযোগ।

এসব অভিযোগের প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়ায় পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে কলেজ কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত শিক্ষকের পরীক্ষার ডিউটি বন্ধ করে দেন।

আরও পড়ুন : এমপিওভুক্ত হচ্ছে আরও ২৪ প্রতিষ্ঠান

কলেজের উপাধ্যক্ষ কাজী ফারুক বলেন, মেয়েরা একাধিক সমস্যা না হওয়া পর্যন্ত কিছু বলে না। একাধিক মেয়ের সঙ্গে একই রকম আচরণ বার বার করে আসছেন ওই শিক্ষক।

ওডি/জেআই 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড