• শনিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ৫ মাঘ ১৪২৭  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হরিয়ানায় বন্ধ হচ্ছে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থা

  শিক্ষা ডেস্ক

১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৩:১১
প্রাক-প্রাথমিক
প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষার্থীরা (ছবি : সংগৃহীত)

প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থা বন্ধ করে দিচ্ছে হরিয়ানা সরকার। সম্প্রতি তারা এ ঘোষণা দিয়েছেন। ফলে বন্ধ হয়ে যাবে রাজ্যের সব বেসরকারি নার্সারি বা কিন্ডারগার্টেন (কেজি) স্কুল।

হরিয়ানায় প্রায় সাড়ে আট হাজার বেসরকারি স্কুলে এখন নার্সারি বা কেজি সেকশন চালু রয়েছে। প্রশ্ন উঠছে, কেন এসব স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে? 

সরকারের মতে, প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থা শিশুদের শৈশব চুরি করে নিচ্ছে। ভীষণ ক্ষতি হচ্ছে শিশুদের মানসিকতার। এ জন্য ঠিক করা হয়েছে, বাচ্চারা ভর্তি হবে সরাসরি প্রথম শ্রেণিতে। তবে খেলাধুলার মাধ্যমে কিছু শেখার জন্য প্লে স্কুল রাখা যেতে পারে।

এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে অনেকেই। কোনো কোনো মহল তুমুল সমালোচনাও করছে। হরিয়ানাতে শিক্ষাবিদ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিরা মোটামুটি দুই ভাগে বিভক্ত এ বিষয়ে।

হরিয়ানা সরকারের সিদ্ধান্তকে সমর্থন দিয়েছেন শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার। তার মতে, শিশুদের সাধারণভাবে বেড়ে ওঠার সুযোগ দেওয়া উচিত। ছোট অবস্থাতেই লেখাপড়ার চাপ দেওয়া ঠিক নয়, যে সময়টা তারা লেখাপড়ার কথা ভাববেই না। তবে সে ক্ষেত্রে প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থাকে আরও শক্তিশালী করতে হবে। এমন বন্দোবস্ত করতে হবে যাতে প্রাথমিক স্কুলগুলোতেই খেলাধুলা ও লেখাপড়ার মধ্যে সমন্বয় সাধন হতে পারে।

তবে হরিয়ানা সরকারের এ সিদ্ধান্তকে কাণ্ডজ্ঞানহীন বলে মনে করছেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অভীক মজুমদার। তিনি বলেন, ‘আমি আশ্চর্য হয়ে যাচ্ছি, রাইট টু এডুকেশন অ্যাক্ট-২০০৯ না মেনে হরিয়ানা সরকার কীভাবে এটা করল! জানি না, কোন শিক্ষাবিদের মাথায় এটা এসেছে। পৃথিবীর সব শিক্ষাবিদ প্রি-প্রাইমারি ও নার্সারি শিক্ষার কথা বলছেন।’

ওডি/জেআই 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড