• বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ফাহাদ হত্যাকারীদের ফাঁসি চায় বেরোবি শিক্ষার্থীরা (ভিডিও)

  বেরোবি প্রতিনিধি

০৮ অক্টোবর ২০১৯, ১৫:৩০

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে হত্যার প্রতিবাদে ও হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে নগরীর মডার্ন মোড়ে মহাসড়কে অবস্থান করে শিক্ষার্থীরা। এ সময় আবরারের খুনিদের ফাঁসির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। পরে বিক্ষোভ মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক সংলগ্ন পার্কের মোড়ে এসে মানববন্ধনে রূপ নেয়।

এ সময় মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা আবরার ফাহাদ হত্যার সঙ্গে জড়িত ছাত্রলীগ নেতাদের ফাঁসির দাবি করে বলেন, ‘আবরার হত্যার পেছনে ছাত্রলীগের অতিমাত্রায় ভারত প্রেম প্রেরণা জুগিয়েছে। দেশপ্রেমিক আবরারের ভারত বিদ্বেষী স্ট্যাটাস দেয়ার কারণে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।’

তারা আরও বলেন, ‘আমরা চাইনা কোনো কুলাঙ্গারের হাতে আর কোনো বাবা-মায়ের বুক খালি হোক। প্রতিটি ক্যাম্পাসে এই মানুষরূপী হায়েনাদের চিহ্নিত করে বহিষ্কারেরও দাবি জানান তারা।’

প্রসঙ্গত, ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেওয়ার জেরে রবিবার (৬ অক্টোবর) আবরার ফাহাদকে রাতে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এরপর রাত ৩টার দিকে শেরেবাংলা হলের নিচতলা ও দুইতলার সিঁড়ির করিডোর থেকে তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হল প্রশাসন। সোমবার (৭ অক্টোবর) হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এই ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে রাজধানীর চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ৯ জন ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করে পুলিশ।

ওডি/এমএ

jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড