• রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হলের বৈধ সিট ফিরে পেতে চবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

  চবি প্রতিনিধি

০২ অক্টোবর ২০১৯, ২০:৪৩
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
বৈধ সিটের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) আবাসিক হলে নিজেদের বৈধ সিট ফিরে পেতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে বিক্ষোভ করেছে ছাত্রলীগের একাংশ। বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহরাওয়ার্দী, আলাওল ও এফ রহমান হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা এই বিক্ষোভে অংশ নেন।

বুধবার (২ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে বেলা পৌনে একটার দিকে দাবি আদায়ে জড়ো হোন তারা। পরে বিকাল ৩টার দিকে প্রশাসনের আশ্বাস পেয়ে কর্মসূচি স্থগিত করা হয়।

শিক্ষার্থীদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয়ের যথাযথ নিয়ম মেনেই তারা হলে বৈধভাবে সিট পেয়েছেন। কিন্তু জামায়াত-শিবিরের সমর্থকরা তাদের ১৪০টিরও বেশি সিট ভাঙচুর করে দখলে নিয়েছে। ফলে ৪ মাসেরও অধিক সময় ধরে তারা বাহিরে অবস্থান করছেন। গত ১ মাস ধরে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে নিজেদের বৈধ সিট ফিরে পেতে আবেদন করলেও তারা কোনো ব্যবস্থা নেননি। তাই বাধ্য হয়ে তারা আন্দোলনে নেমেছেন। 

এ সময় তারা নিজেদের দাবি সংক্রান্ত স্লোগান দিতে থাকে। ‘প্রশাসনের গাফিলতি, হলের বাইরে থাকা আমাদের পরিণতি’, ‘আমার সিটে আমি নাই, সন্ত্রাসীদের দেখতে পাই’, সাধারণ-রাজনৈতিক ভাই ভাই, রাজনৈতিক বলেই কি সিট নাই?'

সোহরাওয়ার্দী হলের শিক্ষার্থী রেদোয়ানু জান্নাত রিপন বলেন, ‘আমাদের অন্তত ৩০টা রুমের ৭৫ জনের মতো এলোটেড শিক্ষার্থী হলে থাকতে পারছে না। যাদের জিনিসপত্র লুটপাট করা হয়েছে। বিজয় গ্রুপের ছেলেরা বহিরাগতদের নিয়ে হঠাৎ অতর্কিত হামলা চালায়। ইতোমধ্যে আমি আমার কাগজপত্রের সঙ্গে সার্টিফিকেটও হারিয়েছি। অথচ সামনে আমাদের অনেকের পরীক্ষা। যেখানে আমাদের থাকার কোনো নিশ্চয়তা নেই। সেখানে পরীক্ষার নিশ্চয়তা কে দিবে?’

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়ে চবি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা বৈধ দাবিতে আন্দোলন করছে। আমরা তাদের সাথে আছি। আর যারা হলে সিট দখল করে আছে তারা কারা? যারা এতই শক্তিশালী যে প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারছে না? কাজেই প্রশাসনের প্রতি শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে আমাদেরও একই দাবি রইল।’ 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী দৈনিক অধিকারকে জানান, ‘আমরা তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। আগামীকাল আবার ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকসহ এলোটেড শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বসে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব।’

ওডি/এমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড