• বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

নির্বাচনের ১৯ মাস পর গবি ছাত্র সংসদের অভিষেক!

  মোহাম্মদ রনি খাঁ, গবি প্রতিনিধি

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৭:২০
গাকসু
গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

শিক্ষার্থীদের প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত হওয়ার প্রায় ১৯ মাস পর চমকপ্রদ অভিষেক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শপথ গ্রহণ করতে যাচ্ছে গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (গাকসু) নেতৃবৃন্দ।

আগামী বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সাভারের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পিএইচএ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিতব্য অভিষেক অনুষ্ঠানে শপথ গ্রহণ করবেন তারা।

উক্ত অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকতে সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ. ক. ম. মোজাম্মেল হক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঢাকা-২০ (ধামরাই) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা বেনজীর আহমেদ।

এছাড়াও এ অভিষেক অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) ও গাকসুর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. লায়লা পারভিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখবেন গাকসুর সহসভাপতি (ভিপি) মো. জুয়েল রানা। এছাড়াও অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় থাকবেন গাকসুর সাধারণ সম্পাদক (জিএস) মো. নজরুল ইসলাম রলিফ।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ৬টি পদে তৃতীয় কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে শিক্ষার্থীদের সরাসরি ভোটে দুই বছরের জন্য সহসভাপতি (ভিপি) হিসেবে মো. জুয়েল রানা ও সাধারণ সম্পাদক (জিএস) মো. নজরুল ইসলাম রলিফ নির্বাচিত হন।

গাকসু কার্যালয় (ছবি : দৈনিক অধিকার)

নির্বাচিত অন্যরা হলেন- কোষাধ্যক্ষ খাদিজা আক্তার সেতু, ক্রীড়া সম্পাদক মাহতাবুর রহমান সবুজ, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক রকিবুল হাসান শিপন এবং প্রচার ও সমাজসেবা সম্পাদক অর্জুন রাজ বংশী। এছাড়াও এ নির্বাচনের পরে ১৭টি বিভাগের ২৩ জন বিভাগীয় প্রতিনিধি নিয়ে গঠিত হয় গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (গাকসু)।

কিন্তু নির্বাচনের প্রায় ৬ মাস পর ২০১৮ সালের ৯ আগস্ট অনিবার্য কারণে ছাত্র সংসদসহ সকল সংগঠনের কার্যক্রম এক মাসের জন্য নিষিদ্ধ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। 

এরপর, এ সময় শেষ হওয়ার পর অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সব সংগঠনের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পরবর্তীতে সাড়ে তিন মাস পর ছাত্র সংসদ ব্যতীত সব সংগঠনের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়। অবশেষে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ছাত্র সংসদের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পরে ছাত্র সংসদের সংসদের সদস্য ও শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের অভিষেক দিতে সম্মত হয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এ বিষয়ে গাকসুর সহ-সভাপতি (ভিপি) মো. জুয়েল রানা বলেন, ‘দেরিতে হলেও অভিষেক অনুষ্ঠান হওয়ায় আমরা খুশি। শপথ গ্রহণের মাধ্যমে আমরা শিক্ষার্থীদের কল্যাণে কাজ করতে চাই। আমাদের অভিষেক অনুষ্ঠানকে সফল করতে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।’

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের মধ্যে একমাত্র গণ বিশ্ববিদ্যালয়েই নির্বাচিত ছাত্র সংসদ রয়েছে। শিক্ষার্থীদের ন্যায্য দাবি আদায়ে প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে সংগঠনটি।

ওডি/এমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড