• মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জাবিতে ‘ছাত্র-শৃঙ্খলা অধ্যাদেশ’ বাতিল চেয়ে মানববন্ধন

  জাবি প্রতিনিধি

১৮ জুন ২০১৯, ১৬:১৪
জাবি
মানববন্ধন করেছে ছাত্র ইউনিয়ন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সংসদ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) প্রশাসন কর্তৃক গৃহীত ‘ছাত্র-শৃঙ্খলা অধ্যাদেশ-২০১৯’ এর নিবর্তনমূলক ধারা বাতিল চেয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে ছাত্র ইউনিয়ন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) সংসদ।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভা চলাকালীন বেলা ১২টায় নতুন রেজিস্ট্রার ভবনের সামনে পালন করা হয় এ মানববন্ধন কর্মসূচি।

মানববন্ধন শেষে অনুষ্ঠিত হয় একটি সমাবেশ। সমাবেশে ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সভাপতি নজির আমিন চৌধুরী জয় বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এরূপ স্বেচ্ছাচারী, অগণতান্ত্রিক ও একরোখা সিদ্ধান্ত প্রত্যাখান ও তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করার পাশাপাশি অবিলম্বে এই শিক্ষার্থী স্বার্থবিরোধী ধারা দুটি বাতিল করে সকল মহলের মতামতের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীবান্ধব একটি যথাযথ, সময়োপোযোগী শৃঙ্খলা অধ্যাদেশ প্রণয়ন করার দাবি জানাচ্ছি।

এ সময় জাবি সংসদের কার্যকরী সদস্য রাকিবুল হক রনি জানান, শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা ছাড়াই এরূপ প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত ষড়যন্ত্রের পরিচায়ক।

কার্যকরী সদস্য মিখা পিরেগু জানান, অতি গোপনীয়তার সঙ্গে অনুমোদিত এই ধারাসমূহ  শিক্ষার্থীদের স্বার্থের চরমভাবে আঘাত করেছে। যার ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্যালোচনামূলক সাংবাদিকতা, মুক্তবুদ্ধির চর্চা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হবে।

উল্লেখ্য, গেল ৫ এপ্রিল বিশেষ সিন্ডিকেট সভায় গৃহীত এই অধ্যাদেশের ৫(ঞ) ধারায় বলা হয়েছে, ‘কোনো ছাত্র/ছাত্রী অসত্য এবং তথ্য বিকৃত করে বিশ্ববিদ্যালয় সংক্রান্ত কোনো সংবাদ বা প্রতিবেদন স্থানীয়/জাতীয়/আন্তর্জাতিক প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক সংবাদ মাধ্যমে/সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ/প্রচার করা বা এ কাজে সহযোগিতা করতে পারবে না।’

৫(থ) ধারায় বলা হয়েছে, ‘কোনো ছাত্র/ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো ছাত্র/ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীর উদ্দেশ্যে টেলিফোন, মোবাইল ফোন, ই-মেইল, ইন্টানেটের মাধ্যমে কোনো অশ্লীল বার্তা বা অসৌজন্যমূলক বার্তা প্রেরণ অথবা উত্যক্ত করবে না।’

অধ্যাদেশ মতে, ধারা দুইটির ব্যত্যয় ঘটলে তা বিশ্ববিদ্যালয়ের চোখে ‘অসদাচরণ’ বলে গণ্য হবে এবং এজন্য লঘু শাস্তি হিসেবে সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা, সতর্কীকরণ এবং গুরু শাস্তি হিসেবে আজীবন বহিষ্কার, বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার, সাময়িক বহিষ্কার ও পাঁচ হাজার টাকার উর্ধ্বে যেকোনো পরিমাণ জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে।

ওডি/আরএআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড