• সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

জাবির 'ছাত্র শৃঙ্খলা বিধি' বাতিল চায় ছাত্রদল

  জাবি প্রতিনিধি

২২ মে ২০১৯, ২০:৪৪
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (ছবি : দৈনিক অধিকার)

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) শিক্ষার্থীদের মত প্রকাশ ও প্রশাসনের সমালোচনার সীমানা বিমূর্তভাবে নির্ধারণ করে তৈরিকৃত ছাত্র শৃঙ্খলা বিধিকে দুরভিসন্ধিমূলক, স্বেচ্ছাচারী ও অগণতান্ত্রিক উল্লেখ করে তা বাতিল চেয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।

বুধবার (২২ মে) এক যৌথ বিবৃতিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সোহেল রানা ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম সৈকত স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই দাবি জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষার্থীদের আচরণবিধি অংশে উল্লিখিত ৫(ঞ) এবং ৫(থ) উপধারা দুটি বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩৯ (চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা ও বাক স্বাধীনতা) এবং অনুচ্ছেদ ৪০ (পেশা বৃত্তির স্বাধীনতা) এর পরিপন্থি। বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তচিন্তার বিকাশ এবং লালন-পালনের পীঠস্থান। এই উপধারা দুটি ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে ভীতি, শঙ্কা ও প্রশাসন বিরোধী মনোভাব তৈরিতে সহায়ক হবে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক সুষ্ঠু পরিবেশকে বিঘ্নিত করবে যা একটি গণতান্ত্রিক সংগঠন হিসেবে ছাত্রদল কামনা করে না। অন্যদিকে ক্যাম্পাসে কর্মরত সংবাদকর্মীদের অনুসন্ধানীমূলক সংবাদ বাধাগ্রস্ত হবে ও তাদের সংবাদ সংগ্রহের মাধ্যম সংকুচিত করবে এবং সাংবাদিকরা নিগ্রহের শিকার হতে পারেন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দুর্নীতি বৃদ্ধি পাবে এবং দুর্নীতিবাজরা এই উপধারা দুটি ব্যবহারের মাধ্যমে নিজেদের নিরাপদ ভাববেন। মাননীয় উপাচার্য এর বাইরে আপনিও নন বলে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় মনে করে। আপনি নিজেকে এবং আপনার প্রশাসন, বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট দুর্নীতিবাজদের আইনের বাইরে রাখার জন্যই এমন ধারা দুটি সংযোজন করেছেন বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস।

বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন কোনো পরিস্থিতির উদ্ভব হয়নি যেখানে ঢালাওভাবে উপধারায় উল্লিখিত কর্মকাণ্ড সংগঠিত হতে পারে। উপরন্তু, অসত্য, তথ্য বিকৃতি, আশালীন বার্তা বা অসৌজন্যতামুলক বার্তার কোনো সংজ্ঞা কিংবা ব্যাখ্যা না থাকার ফলে উপধারা দুটি নিপীড়নমূলক। এছাড়াও বাংলাদেশের প্রচলিত আইনে অসত্য কিংবা বিকৃত তথ্য প্রকাশ বা ছড়ানোর বিষয়ে যথাযথ আইন রয়েছে। সেগুলো তদন্তের মাধ্যমে আইন অনুযায়ী নিষ্পত্তি হবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এ ধরনের অপরাধ সংঘটনের বিষয়ে অস্পষ্ট ব্যাখ্যার ওপর ভিত্তি করে দোষী সাব্যস্ত করার এখতিয়ার রাখে না।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল-জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় দৃঢ়তার সঙ্গে জানাচ্ছে এই উপধারা দুটি শিক্ষার্থীদের মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ যা স্বাধীন দেশে পরাধীনতা। এই উপধারা দুটি ব্যবহার করে মাননীয় উপাচার্য আপনি নিজেকে এবং আপনার প্রশাসনকে সমালোচনার ঊর্ধ্বে নিয়ে যেতে চাচ্ছেন যা অগণতান্ত্রিক, স্বেচ্ছাচারী ও দুরভিসন্ধিমূলক। সেই সঙ্গে শিক্ষার্থী এবং সংবাদকর্মীদের ওপর এই উপধারা দুটি নিপীড়ন।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল অবিলম্বে এই উপধারা দুটির বাতিল এবং ছাত্রদলের সহঅবস্থান নিশ্চিত করে ক্যাম্পাসের সার্বিক সুষ্ঠু পরিবেশ বিরাজমান রেখে জাকসু নিবার্চনের মাধ্যমে নির্বাচিত ছাত্র প্রতিনিধিদের নিয়ে আইন প্রণয়নের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এবং সংবাদকর্মীদের পরামর্শের মাধ্যমে উপধারা দুটি প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে। 

ওডি/এসএসকে

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড