• বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি পুনর্বহাল নয়, ইবির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দ্রুতই : রাব্বানী

  ইবি প্রতিনিধি

১৬ মে ২০১৯, ১১:৩৪
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ (ছবি : সংগৃহীত)

‘মেয়াদোত্তীর্ণ কোনো কমিটি পুনর্বহাল করে অচলায়তন চাই না’ বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সাংসদের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।

বুধবার (১৫ মে) সন্ধ্যায় মুঠোফোনে দৈনিক অধিকার প্রতিনিধিকে তিনি এ তথ্য জানান। এছাড়াও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগের কমিটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত খুব দ্রুতই নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের মেয়াদোত্তীর্ণ ও স্থগিতাদেশপ্রাপ্ত কমিটির ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘এই কমিটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত খুব দ্রুতই নেওয়া হবে। আমাদের কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হয়েছে, আমরা তিন থেকে চারদিনের মধ্যে মিটিং ডেকে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যদের দায়িত্ব ভাগ করে দেব, অর্থাৎ দায়িত্বপ্রাপ্ত এলাকার জন্য সদস্যদের পদ বিন্যাস করে দেব। সেক্ষেত্রে, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য যারা দায়িত্বপ্রাপ্ত থাকবে, তাদের সুপারিশের ভিত্তিতে আমরা সেই কমিটির ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন থেকে কোনো শাখা কমিটির ব্যপারে আমরা আর একাই (সভাপতি ও সেক্রেটারি) সরাসরি কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করব না। এতদিন পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকার কারণে আমাদের একাই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে এবং কিছু বিষয় ঝুলে ছিল। যেহেতু কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ হয়ে গেছে, এখন থেকে কেন্দ্রীয় কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা-কর্মীদের সুপারিশের ভিত্তিতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

রাব্বানী বলেন, ‘যেদিনই কেন্দ্র থেকে ইবি শাখা কমিটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য কেন্দ্রীয় সদস্যদের দায়িত্ব দেওয়া হবে, সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে, তাদের বর্তমান অবস্থান তুলে ধরার জন্য বলা হচ্ছে। পরে কেন্দ্রীয় সাংসদের দায়িত্বপ্রাপ্তরা খোঁজখবর নিয়ে আমাদের জানাবেন।

ইবি শাখা ছাত্রলীগের মেয়াদোত্তীর্ণ ও স্থগীতাদেশপ্রাপ্ত কমিটির ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘খুব সম্ভবত! ইবি শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি দেওয়ার সিদ্ধন্ত আসতে পারে। কারণ মেয়াদোত্তীর্ণ কোনো কমিটি পুনর্বহাল করে আমরা আর কোনো অচলায়তন চাই না।

জানা যায়, ইবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক অমিত কুমার দাসের কমিটির মেয়াদ শেষে, ২০১৭ সালের ৬ এপ্রিল সম্মেলন করে ১৫ এপ্রিল ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগে সাংসদের তৎকালীন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান সোহাগ এবং জাকির হোসেন। কমিটিতে বাংলা বিভাগের ২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষের শাহিনুর রহমান শাহিনকে সভাপতি ও একই বিভাগের ২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষের জুয়েল রানা হালিমকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এক বছর মেয়াদের জন্য গঠিত  হলেও দেড়  বছরেও  পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করতে পারেনি শাহিন ও হালিম, দুই নেতা  দিয়েই চলছিল সে কমিটি।পূর্ণাঙ্গ কমিটি আর হয়নি। এরই মাঝে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত টেন্ডারবাজি, শিক্ষক নিয়োগে বাণিজ্য ও মাদক সম্পৃক্ততা ও পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে না পারাসহ নানা অভিযোগের ভিত্তিতে গেল বছরের ২৯ অক্টোবর ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। অভিযোগের অধিকতর তদন্তে আল নাহিয়ান খান জয়, শাকিল ভূইয়া, জাহাঙ্গীর মঞ্জিল পিপাসকে সদস্য করে একটি কমিটিও করা হয়।

এ দিকে, স্থগিতাদেশ প্রাপ্ত কমিটির সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিন ও সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিম তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করে আসছে।

অন্যদিকে, ইবি শাখা ছাত্রলীগের নতুন পদ প্রার্থীরা স্থগিতাদেশপ্রাপ্ত কমিটি বাতিল করে, নতুন কমিটির ব্যাপারে পুরোপুরি আশাবাদী। তাদের বৃহদাংশের দাবি, যে কমিটির মেয়াদি এক বছর আগেই শেষ হয়েছে, সে কমিটি পুনর্বহালের কোনো প্রশ্নই আসে না। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে দেড় বছর দায়িত্বে থাকার পরেও তারা কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি, যা সবথেকে বড় ব্যর্থতা ও দায়িত্বে অবহেলার চরম উদাহরণ। তাই, তারা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকে পূর্বের কমিটি বাতিল করে নতুন কমিটি প্রদানের ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।

বর্তমান কমিটির স্থগিতাদেশের দীর্ঘদিন অতিবাহিত হওয়ায়, সাধারণ শিক্ষার্থী ও নেতাকর্মীরা ধরেই নিয়েছেন কমিটি পুনর্বহাল হচ্ছে না, সর্বত্র কানাঘুষা চলছে কে হচ্ছেন আগামী কমিটির নেতা? নতুন পদপ্রার্থীরা সেরা দুটি পদের জন্য কেন্দ্রের সঙ্গে ঘনঘন যোগাযোগ ও জৌড় তদবির চালাচ্ছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।

যারা ইতোমধ্যে সেরা দুই পদের জন্য কেন্দ্রে ও সিনিয়র নেতাদের কাছে দৌড় ঝাপ করছেন ও জৌর তদবির চালাচ্ছেন তাদের মধ্যে যেমন রয়েছেন ছাত্রলীগের জন্য  ত্যাগী ও ক্লিন আমেজধারি নেতারা, তেমনি রয়েছেন মাদকসম্পৃকতায় জড়িত, এক সময়ের ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত ও  বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত নেতা-কর্মীরাও।

ওডি/এএন 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
SELECT id,hl2,parent_cat_id,entry_time,tmp_photo FROM news WHERE ((spc_tags REGEXP '.*"location";s:[0-9]+:"ইবি".*')) AND id<>63681 ORDER BY id DESC LIMIT 0,5

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড