• শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন

১৮ প্রস্তাবনায় বেরোবি উপাচার্যকে শিক্ষক সমিতির স্মারকলিপি

  বেরোবি প্রতিনিধি

১৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৯:৫৪
বেরোবি ক্যাম্পাস
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (ছবি : সংগৃহীত)

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) উপাচার্যকে ১৮টি প্রস্তাবনা সংবলিত স্মারকলিপি প্রদান করেছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। 

মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর ব্যক্তিগত সচিব (পিএস) আমিনুর রহমানের হাতে স্মারকলিপি তুলে দেন শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ।

তাদের প্রস্তাবনাসমূহ হলো-

১. উপাচার্য মহোদয়কে চ্যান্সেলর কর্তৃক প্রদত্ত নিয়োগশর্ত অনুযায়ী সার্বক্ষণিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান করতে হবে।
২. বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের দ্বিতীয় ফেজের কার্যক্রমের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে
৩. বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সিন্ডিকেট, নিয়োগ বোর্ড, অর্থ কমিটির সভাসহ সকল সভা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠান করতে হবে।
৪. নতুন যোগদানকৃত শিক্ষকবৃন্দের অনিয়মতান্ত্রিক ফাউন্ডেশন ট্রেনিং বন্ধ করে বিভাগের শিক্ষক স্বল্পতার সংকট লাঘব করতে হবে এবং শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীর সকল শিক্ষা ও পেশাগত ট্রেনিং ড. ওয়াজেদ রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের অধীনে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাসে যথাযথ প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন করতে হবে।
৫. শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে লিখিত পরীক্ষা নিয়োগ বোর্ডের সকল সদস্যদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতিতে সম্পন্ন করতে হবে।
৬. সিএসই, পরিসংখ্যান এবং রসায়ন বিভাগসহ বিভিন্ন বিভাগে কর্মরত আপগ্রেডেশন/প্রমোশনের যোগ্যতা অর্জনকারী শিক্ষকবৃন্দের আপগ্রেড/প্রমোশন আটকে রেখে শিক্ষাকার্যে স্পৃহাহীনতা সৃষ্টিকারী হয়রানি বন্ধ করতে হবে।
৭. অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী ইউজিসি থেকে জরুরি ভিত্তিতে শিক্ষক পদ অনুমোদন নিয়ে অস্থায়ী পদে চাকুরিরত শিক্ষকবৃন্দের চাকুরি স্থায়ী-করণসহ নতুন শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে সেশনজট দূর করতে হবে।
৮. বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চশিক্ষা ও গবেষণারত শিক্ষকবৃন্দের স্ব-বেতনে ৫ বছরসহ মোট শিক্ষা ছুটি ৭ বছর নির্ধারণ করে অতি দ্রুত শিক্ষা ছুটি নীতিমালা প্রণয়ন করতে হবে।
৯. এনওসি ও অভিজ্ঞ সনদসহ যাবতীয় জরুরি বিষয়াদির প্রক্রিয়া দুই থেকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে।
১০. সকল পরীক্ষার পারিতোষিক ফলাফল প্রকাশের এক মাসের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে।
১১. বিশ্ববিদ্যালয় ট্রেজারার ও প্রো-ভিসি নিয়োগ প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
১২. বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম ফলপ্রসূ করতে অনুষদে উপস্থিত যোগ্য শিক্ষককে ডিন ও বিভাগে উপস্থিত যোগ্য শিক্ষককে বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব প্রদান করতে হবে।
১৩. বিশ্ববিদ্যালয়ের গেজেট অনুযায়ী বিভাগের অ্যাকাডেমিক প্লানিং কমিটি গঠন করতে হবে।
১৪. সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য ধর্মীয় উপাসনালয় স্থাপনের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
১৫. অতিদ্রুত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের গম্বুজসহ দ্বিতীয় তলার কাজ শুরু করতে হবে।
১৬. গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধানের নিয়োগ অন্যান্য বিভাগের ন্যায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে জাতীয় সংসদ কর্তৃক প্রণীত ২৯ নম্বর আইনের ২৮ (২) ধারা মোতাবেক নিশ্চিত করতে হবে।
১৭. বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মহীয়সী নারী রোকেয়া সাখাওয়াতের প্রতিকৃতি স্থাপন করতে হবে।
১৮. বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাংকের স্থায়ী শাখা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট স্থাপন করতে হবে।

এ বিষয়ে উপাচার্যের পিএস আমিনুর রহমান বলেন, স্মারকলিপির বিষয়টি উপাচার্যকে অবহিত করা হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার বলেন, ১৮টি জরুরি বিষয় প্রস্তাবনা আকারে উপাচার্যের সামনে উপস্থাপন করা হয়েছে।

ওডি/এমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড