• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

সরকারী তিতুমীর কলেজ সংলগ্ন ফুটওভার ব্রিজ

'সময় কম তো, তাই ওঠা হয় না'

  জিটিসি প্রতিনিধি ২২ মার্চ ২০১৯, ১৭:১৬

ফুটওভার ব্রিজ
শিক্ষার্থীদের এবং পথচারীদের আড্ডার স্থল ফুটওভার ব্রিজ (ছবি : সংগৃহীত)

রাজধানী ঢাকার সরকারি তিতুমীর কলেজ। প্রায় ৬৩ হাজার শিক্ষার্থী নিয়ে কলেজ পরিবার। হাজার হাজার শিক্ষার্থীর পদচারণায় প্রত্যহ মুখরিত হয় কলেজ ক্যাম্পাসে। কলেজের প্রধান ফটকের সামনেই আমতলী থেকে বনানী প্রধান সড়ক। যানবাহন চলাচলে কোনো বিরাম নেই। প্রধান ফটকের বাম পাশেই দাঁড়িয়ে আছে ফুটওভার ব্রিজ। কিন্তু সেটির ব্যবহারের কথা যেন ভুলেই গেছে সাধারণ মানুষ। নিরিবিলি পরিবেশ থাকায় এটি বেশিরভাগ সময় শিক্ষার্থীদের আড্ডার জায়গা হিসেবেই পরিচিত।

ব্যাগ কাঁধে তরিকুল ইসলাম। তিতুমীরেরই ছাত্র। এক হাতে ফোনে কথা বলছেন এবং আরেক হাতে বাস থামাতে থামাতে রাস্তা পার হচ্ছেন। তখনও গাড়ি থামবে কি না এমন কোনো সিগন্যাল পায়নি তরিকুল। চলন্ত রাস্তায় যেকোনো মুহূর্তে ঘটে যেতে পারত দুর্ঘটনা। অথচ পাশেই রয়েছে যাতায়াতের ফুটওভার ব্রিজ।

রাস্তা পার হয়ে তিনি বলেন, 'সময় কম তো তাই ওঠা হয় না। এভাবেই যাতায়াত করি, অভ্যস্ত হয়ে গেছি।' এতে নিজের জীবন ঝুঁকিতে কী না সে প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে নীরবে চলে যান এই শিক্ষার্থী।

মোবাইল হাতে রাস্তা পারাপার (ছবি : সংগৃহীত)

ফুটওভার ব্রিজের সিঁড়িতে আড্ডারত অবস্থায় ছিলেন কয়েকজন ছাত্রছাত্রী। এগিয়ে গিয়ে তাদের অবস্থানের কারণ জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী জানান, 'যেখানে তিতুমীর কলেজে ঢাকার মধ্যে সর্বোচ্চ শিক্ষার্থীর আনাগোনা সেখানে নামমাত্র একটা ফুটওভার ব্রিজ আছে। ফুটওভার ব্রিজের এক পাশে ভেঙে নিচের অবস্থা দেখা যায়, পা বেরিয়ে যায় নিচে।'

আরেক শিক্ষার্থী দৈনিক অধিকারের প্রতিনিধিকে জানান, 'এত অধিক সংখ্যক শিক্ষার্থী যে কলেজে সেখানে চলন্ত ফুটওভার ব্রিজ দেয়াটা খুব বেশি প্রয়োজন বলে আমি মনে করি।'

রাজধানীর অধিকাংশ ফুটওভার ব্রিজের চিত্রই এমন। সরকার লাখ লাখ টাকা খরচ করে রাজধানী জুড়ে ফুটওভার ব্রিজ তৈরি করলেও অসচেতনতার কারণে তা ব্যবহার করছে না নগরবাসী। ফলে প্রতিনিয়ত ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা, প্রাণ হারাচ্ছেন অনেকেই। কেউ কেউ পঙ্গুত্ব বরণ করছেন। অথচ নগরবাসীর একটু সচেতনতাই পারে এসব অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা কমাতে।

ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে অনেকেই জরিমানা দিয়েছেন। কিন্তু এরপরেও ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহারের চিত্র খুবই কম। এর ব্যবহার বাড়াতে জনগণের সচেতনতার অধিক প্রয়োজন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট ও বিশেষজ্ঞরা।

কলেজের প্রধান ফটকের সামনে দায়িত্বরত এক ট্রাফিক পুলিশ দৈনিক অধিকারকে জানান, 'বর্তমানে ঢাকা শহরের অধিকাংশ সড়ক দুর্ঘটনা জনগণের অসচেতনতার কারণেই হয়ে থাকে।'

এমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড