• রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৫ ফাল্গুন ১৪২৫  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ : মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে বিপুল পরিমাণ বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ ১ জনকে আটক করেছে র‍্যাব

পাঁচকান্দি ডিগ্রী কলেজে নবীনবরণ ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান

  নিজস্ব প্রতিনিধি ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৮:৩৫

নবীনবরণ
শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুনকে ক্রেস্ট তুলে দিচ্ছেন থার্মেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান আ. কাদির মোল্লা (ছবি : সংগৃহীত)

নরসিংদী জেলার অন্যতম বিদ্যাপীঠ পাঁচকান্দি ডিগ্রি কলেজে ২০১৮-১৯ সেশনের নবীনবরণ, অভিভাবক সমাবেশ ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

অনুষ্ঠানে কলেজটির পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি, থার্মেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান আ. কাদির মোল্লার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিল্পমন্ত্রী অ্যাড. নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন।

প্রধানমন্ত্রীর অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী বলেন, আমাদের বিশাল বিজয়, আমাদের কাছে জনগণের বিশাল প্রত্যাশা। আমি আমার নির্বাচনি অঙ্গীকার পূরণ করব। আমার নরসিংদীকে শিক্ষা নগরী গড়ে তুলব। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমার আমার ব্যক্তিগত ক্যারিয়ারকে উৎসর্গ করেছি। মাদক বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স, সুশাসন, সুনীতি বাস্তবায়ন করা হবে। পাঁচকান্দি গ্রামের এই কলেজের মতো আর কোনো গ্রামে এমন মানসম্মত কলেজ বাংলাদেশে আছে বলে মনে হয় না।

তিনি আরও বলেন, আমি আমার বাগানবাড়িতে আসলে শিয়ালের ডাকে ঘুমাই আর মুরগের ডাকে ঘুম থেকে উঠি। আমি যেখানে থাকি না এ গ্রামে আমিসহ আমার পরিবার আসবে। ঢাকার পার্শ্ববর্তী জেলা গাজীপুরের মতো নরসিংদীতেও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি  বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজসহ সিটি কর্পোরেশন করার প্লান নিয়ে আমি সামনে এগিয়ে যাচ্ছি। শিক্ষা ও শিল্প নগরী হবে নরসিংদী। মিনি স্টেডিয়াম ও শিল্পকলা একাডেমীও করা হবে। আমি শিল্পমন্ত্রী আর আমার আরেক ভাই দানবীর আব্দুল কাদির মোল্লা শিল্প উদ্যোক্তা। আমরা দুই ভাই মিলে শিক্ষা ও শিল্প দিয়ে নরসিংদীকে সাজাব।

কলেজটির প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি দানবীর আব্দুল কাদির মোল্লা বলেন, এই কলেজ প্রতিষ্ঠিত না হলে হয়তো অনেক আলোকিত মুখ দেখতে পেতাম না। ড.আওলাদের মতো জাবির শিক্ষক পেতাম  না, অনিকের মতো ঢাবির শিক্ষক পেতাম না, ইভার মতো লোক কর কমিশনার হিসেবে পেতাম না। এই কলেজ ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠিত করেই আমি শিক্ষাঙ্গনে প্রবেশ করি। মানের ব্যাপারে আমি কৃতজ্ঞ। প্রায় ১৮ কোটি ৬৬ লক্ষা টাকা ব্যয়ে এই কলেজ নির্মাণ করি। এটিসহ মোট ৪টা প্রতিষ্ঠান সরাসরি চলে মজিদ মোল্লা ফাউন্ডেশন। ৩৬৫ টাকার জন্য যাতে কেউ আমার মতো উচ্চ শিক্ষা থেকে বঞ্চিত না হয়।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- কলেজটির অধ্যক্ষ শহীদুজ্জামান, উপাধ্যক্ষ একেএম তোফাজ্জল হোসেন, ঢাবির দর্শন বিভাগের প্রভাষক বেলাল আহমেদ অনিক, মনোহরদী উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক বাবু প্রিয়াশিষ রায়, বেলাব উপজেলা চেয়ারম্যান আহসান হাবিব বিপ্লব, মনোহরদী পৌর মেয়র আমিনুর রশিদ সুজনসহ জেলার বিভিন্ন স্কুল-কলেজের প্রধান শিক্ষক, অধ্যক্ষরা, রাজনীতিক নেতারা, কলেজের সাবেক-বর্তমান শিক্ষার্থীসহ তাদের অভিভাকরা।

আরও পড়ুন : ঢাকা কলেজে বার্ষিক মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড