• শনিবার, ২১ মে ২০২২, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৭তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন 

  নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

১০ মে ২০২২, ১৫:১৪
নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৭তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন 
নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে র‍্যালিতে উপাচার্যসহ অন্যান্যরা (ছবি : সংগৃহীত)

১৭তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী আয়োজিত অনুষ্ঠানমালার প্রথমদিন উদযাপন করেছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সোমবার (৯ মে) সকাল ১০টায় জাতীয় ও বিশ্ববিদ্যালয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন শুরু হয়।

এরপর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও কাজী নজরুল ইসলামের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে র‍্যালী করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। বাদক দলের বাজনার তালে র‌্যালিটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে গাহি সাম্যের গান মঞ্চে এসে শেষ হয়।

বেলা সাড়ে ১০টায় গাহি সাম্যের গান মঞ্চে কেক কাটার পরপর শুরু হয় আলোচনা সভা। সভাস্থলে পায়রা এবং বেলুন উড়ানো হয়।

আয়োজক কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. আহমেদুল বারীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ট্রেজারার প্রফেসর মো. জালাল উদ্দিন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. নজরুল ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. শেখ সুজন আলী, প্রক্টর প্রফেসর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধান, কর্মকর্তা পরিষদের সভাপতি প্রকৌশলী মো. জোবায়ের হোসেন প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য দেন রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ ড. মো. হুমায়ুন কবীর।

উপাচার্য ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, আমরা জানি শিক্ষা আলো। কিন্তু সে শিক্ষা তখনি আলো হবে যখন তা অর্জন করে প্রয়োজনীয়ভাবে ব্যবহারের দক্ষতা থাকবে। দক্ষতা না থাকলে শিক্ষা লাইব্রেরি ভবনের বুক সেল্ফের বইয়ের মলাটেই আবৃত থেকে যাবে। তাই কম্পিউটারে যেমন হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার থাকে তেমনি সেটি ব্যবহারের জন্য দক্ষ অপারেটর থাকতে হবে। ঠিকভাবে কাজ করার এই দক্ষ অপারেটর আমাদের তৈরি করতে হবে। আমাদের ছোট্ট একটি ক্যাম্পাস। এই ক্যাম্পাসকে একটি স্মার্ট বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার জন্য দরকার দক্ষ জনবল তৈরি করা। শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়ন এই তিনটি লক্ষ্য নিয়ে আমরা আমাদের অভিযাত্রা শুরু করেছি। আমাদের শুধু যার যা কাজ সেটি করলেই আমরা অনেক দূর এগিয়ে যাবো। সেজন্য আসুন আমরা দক্ষতা অর্জন করি। আসুন আমরা একসাথে এই বিশ্ববিদ্যালয়টিকে গড়ে তুলি।

এছাড়া দিবসটি জাঁকজমক করে তুলতে ক্যাম্পাসে বিভিন্ন ব্যানার, তোরণ স্থাপন করা হয়েছে, গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে করা হচ্ছে আলোকসজ্জা।

দু’দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার অংশ হিসেবে বুধবার (১১ মে) শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে আসবেন। এসময় তিনি বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। তার সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত থাকবেন ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) সাংসদ আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা মো. রুহুল আমীন মাদানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) প্রফেসর ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল ও পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. মো. কাউসার আহাম্মদ।

উল্লেখ্য, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় বিদ্রোহী কবির নামে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশের প্রথম ও একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয়। কবি নজরুল নামাপাড়া গ্রামের যে বট গাছের নিচে বাঁশি বাজাতেন সেই বটতলার কাছেই ২০০৬ খ্রিষ্টাব্দের ৯ মে এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়টি উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে অগ্রসরমান বিশ্বের সাথে সংগতি রক্ষা ও সমতা অর্জন এবং জাতীয় পর্যায়ে উচ্চ শিক্ষা ও গবেষণা, বিশেষ করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে আধুনিক জ্ঞান চর্চা ও পঠন-পাঠনের সুযোগ সৃষ্টি ও সম্প্রসারণের রূপকল্প নিয়ে কাজ করছে। চারটি বিভাগ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি যাত্রা শুরু করলেও বর্তমানে বিভাগের সংখ্যা ২৪টি।

ওডি/ইমা

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড