• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মজলুম জননেতার প্রয়াণের ৪৫তম বার্ষিকীতে মাভাবিপ্রবির আয়োজন

  মাভাবিপ্রবির প্রতিনিধি

১৭ নভেম্বর ২০২১, ১১:৩৯
মাভাবিপ্রবি
দেশের বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন তার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

কৃষক, শ্রমিক ও গণমানুষের প্রাণপ্রিয় নেতা এবং আওয়ামী মুসলিম লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মজলুম জননেতা মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৭৬ সালের ১৭ নভেম্বর ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। পরে টাঙ্গাইলের সন্তোষে (বর্তমানে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) তাকে সমাহিত করা হয়।

মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী ১৮৮০ সালের ১২ ডিসেম্বর সিরাজগঞ্জের ধানগড়া পল্লীতে জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন বিংশ শতাব্দীর ব্রিটিশ ভারতের অন্যতম তৃণমূল রাজনীতিবিদ ও গণআন্দোলনের নায়ক। দীর্ঘদিন তিনি তৎকালীন বাংলা-আসাম প্রদেশ মুসলিম লীগের সভাপতি ছিলেন।

১৯৪৭-এ সৃষ্ট পাকিস্তান ও ১৯৭১-এ প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশের রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন ভাসানী। ১৯৫৪ সালে নির্বাচনে যুক্তফ্রন্ট গঠনকারী প্রধান নেতাদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায়ও বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধ চলাকালে গঠিত প্রবাসী সরকারের উপদেষ্টামন্ডলীর সভাপতিও ছিলেন এই নেতা।

রাজনৈতিক জীবনের বেশিরভাগ সময়ই তিনি মাওপন্থী কম্যুনিস্ট রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। তার অনুসারীরা অনেকে এজন্য তাকে ‘লাল মওলানা’ নামেও ডাকতেন। তিনি কৃষকদের জন্য পূর্ব পাকিস্তান কৃষক পার্টির করা জন্য সারাদেশব্যপী ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেন।

তিনি ছিলেন একজন দূরদর্শী নেতা। তিনি পঞ্চাশের দশকেই নিশ্চিত হয়েছিলেন যে, পাকিস্তানের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ একটি অচল রাষ্ট্রকাঠামো। ১৯৫৭ খ্রিষ্টাব্দের কাগমারী সম্মেলনে তিনি পাকিস্তানের পশ্চিমা শাসকদের ‘আসসালামু আলাইকুম’ বলে সর্বপ্রথম পূর্ব পাকিস্তানের বিচ্ছিন্নতার ঐতিহাসিক ঘণ্টা বাজিয়েছিলেন।

মজলুম জননেতার ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (মাভাবিপ্রবি) উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। এ দিন সকাল ৭.৩০ মিনিটে মজলুম জননেতার মাজারে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এ আর এম সোলাইমান। বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বিভিন্ন বিভাগ, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

এর আগে মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে “মাওলানা ভাসানীর অসাম্প্রদায়িক চেতনা” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়, ঐ দিন বিকালে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং বাদ মাগরিব ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। সেই সঙ্গে মাওলানা ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পুরো বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এছাড়াও মজলুম জননেতা মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন তার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

ওডি/নিমি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড