• বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

তিতুমীরের হল খোলার ব্যাপারে এখনই কোনো সিদ্ধান্ত নয়

  মোহাম্মদ রায়হান, সরকারি তিতুমীর কলেজ

১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:০৬
তিতুমীর কলেজ
সরকারী তিতুমীর কলেজ মূল ফটক (ফাইল ছবি)

তিতুমীর কলেজের আবাসিক হলগুলো খোলার ব্যাপারে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক তালাত সুলতানা।

গেলো ২ অক্টোবর থেকে সশরীরে শুরু হয়েছে ঢাবির অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের স্নাতক (সন্মান) শ্রেনির চূড়ান্ত পরীক্ষা। ২ অক্টোবর স্নাতক ১ম বর্ষ এবং ৪ঠা অক্টোবরে শুরু হয়েছে ৩য় বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা, পাশাপাশি ১৮ অক্টোবর থেকে ২য় বর্ষের পরীক্ষা শুরু হয়। তবে এখনো খুলেনি কোনো আবাসিক হল বা ছাত্রাবাস। এতে রীতিমতো ভোগান্তিতে পড়ে গেছে হলে থাকা শিক্ষার্থীরা।

হল কখন খুলবে এই নিয়ে সরকারি তিতুমীর কলেজের নবনিযুক্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক তালাত সুলতানার সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন, এখনো হল খোলার ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ছাত্র ছাত্রীরা অন্তত ১ ডোজ টিকা নিশ্চিত না করলে তো হল খোলা যাবে না।

এ দিকে হল না খোলায় শিক্ষার্থীদের মাঝেও কিছুটা মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে।

হাসান সিকদার নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, ছাত্রাবাস না খুলে পরীক্ষা নেওয়ায় শুরুতেই শিক্ষার্থীরা অনেক ভোগান্তিতে পড়েছে। বাসা, মেসগুলোতে শিক্ষার্থীরা দ্বিগুণ ভাড়া দিয়ে উঠেছে, অনেক শিক্ষার্থী পরীক্ষার জন্য ১ মাসের জন্য থাকার জন্য মেসে উঠেছে। কিন্তু পরীক্ষার পিছিয়ে নিতে নিতে পরবর্তী মাস অব্দি চলে যাওয়ায় পরবর্তী মাসের জন্যও বাড়তি ভাড়া গুনতে হচ্ছে। বাসা খোঁজার ঝামেলা তো রয়েছে। এতে পরীক্ষার্থীদের আবাসন সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে হরহামেশাই। কলেজ প্রশাসনের সদিচ্ছা থাকলেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে হল খুলে দেওয়া সম্ভব।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেকজন ছাত্রী বলেন, যখন হল খোলা ছিল তখন টিউশন করিয়ে নিজের পড়ালেখার পাশাপাশি পরিবারকেও সাপোর্ট দিতে পেরেছি। কিন্তু হল বন্ধ থাকার কারণে তাও সম্ভব হচ্ছে না৷ তাছাড়া বাহিরে থাকলে নিরাপত্তা নিয়েও সংকোচ বোধ করি। সেই ক্ষেত্রে হল খুলে দিলে আমার মতো একজন শিক্ষার্থীর সব দিক দিয়েই উপকার হয়।

উল্লেখ্য, সরকারি তিতুমীর কলেজে সর্বমোট তিনটি হল রয়েছে। ছেলেদের জন্য ১টি; আক্কাসুর রহমান আঁখি ছাত্রাবাস, ছাত্রীদের জন্য দুটি ছাত্রীনিবাস আছে। এর মধ্যে সুফিয়া কামাল ছাত্রীনিবাসটি কলেজের মূল ভবনের পাশেই অবস্থিত। এই ছাত্রীনিবাসে প্রায় দুইশ আসন আছে। বাকি আরেকটি সিরাজ ছাত্রী নিবাস, যা বনানীতে অবস্থিত।

প্রসঙ্গত, উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেনীর পাঠদান হয় বিধায় শিক্ষার প্রতিষ্ঠান খোলার পর পরই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোর মধ্যে বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ ও ঢাকা কলেজের ইন্টারমিডিয়েটের শিক্ষার্থীদের জন্য হল খুলে দেওয়া হয়েছিলো। তবে, শুরুর দিকে বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীদের সুবিধা বিবেচনায় গেলো ১০ অক্টোবর থেকেই ইডেন মহিলা কলেজের আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়া হয়েছে এবং ঢাকা কলেজের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য ২৪ অক্টোবর থেকে হল খুলে দেওয়ার কথা রয়েছে।

ওডি/নিমি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড