• রোববার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জাককানইবির উন্নয়ন প্রকল্প বন্ধের ঘোষণা!

  জাককানইবি প্রতিনিধি

১৩ জুলাই ২০২০, ২২:৪৯
মানববন্ধন
ছবি : সংগৃহীত

বিশ্ববিদ্যালয়ের আশেপাশে অবস্থানরত সাধারণ শিক্ষার্থীর ব্যানারে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাককানইবি) নির্মাণাধীন উন্নয়ন প্রকল্পের দুটি হলের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে মানববন্ধনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীবৃন্দ।

সোমবার (১৩ জুলাই) বেলা ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জয় বাংলা ভাস্কর্যের সামনে মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন থেকে সাত (৭)দফা দাবি তুলে ধরেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমিটির সদস্য শাহীন হোসাইন সাজ্জাদ।

দফাগুলোর মধ্যে রয়েছে- ৭ দিনের মাঝে নিম্ন মানের কাজ ও সময় ক্ষেপণের জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তদন্ত ও রিপোর্ট পেশ, আগামী ১৫ দিনের মধ্যে হলগুলো বুঝিয়ে দেওয়ার মুচলেকা দিতে হবে অন্যথায় সকল কাজ বন্ধ করা দেওয়া হবে, এলেমেলো ও পরিবেশ ধ্বংসকারী মাস্টার প্ল্যান পরিবর্তন করে শিক্ষার্থীদের সমর্থন নিয়ে সুপরিকল্পিত প্ল্যান গ্রহণ করতে হবে, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ঢেকে যায় বা আড়াল হয় এমন কোনো স্থাপনা করা যাবেনা, নবনির্মিত গেস্ট হাউজের স্থান পরিবর্তন করতে হবে, মসজিদের কাজ দ্রুত শুরু করতে হবে, ঠিকাদারদের সঙ্গে যোগসাজশ ও অনৈতিক সুবিধা নেওয়ার অভিযোগ ওঠায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপিডি হাফিজের বিরুদ্ধে দ্রুত তদন্তে কমিটি গঠন ও ব্যবস্থা করতে হবে।

এ ব্যাপারে পরিকল্পনা দপ্তর প্রধান প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের দুটি হলের নির্মাণ কাজ আটকে রেখেছে শিক্ষার্থীরা।’ তবে কারা বন্ধ করেছে তাদের নাম বলতে চাননি তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘এর আগেও অনেকবার কাজ বন্ধ করা হয়েছে। আর এই করোনার সময় সম্পূর্ণ শক্তিতে কাজ করা যাচ্ছে না। সামাজিক নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই কাজ করতে হচ্ছে। তবে আমাদের কাজ শেষ পর্যায়ে। এখন বাঁধা আসলে কাজের শক্তি থেমে যাবে। যারা আটকে রেখেছে তাদের প্রতি অনুরোধ থাকবে আমাদের কাজ করতে দিন অতি দ্রুতই সম্পন্ন করতে পারবো আমরা। আমার বিষয়ে তদন্ত হোক তাতে আমার কোনো বাঁধা নেই আমাদের কাজ করতে দিলেই শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধান সম্ভব। সরকারের নির্দেশনা মেনে কাজ করলে পনেরো (১৫) দিনে শেষ করা যাবে না।’

কাজ কারা বন্ধ করেছে, কেন বন্ধ করেছে প্রশ্নের জবাবে রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) কৃষিবিদ ড. হুমায়ুন কবীর বলেন, ‘কারা এমন করছে তাদের অনুসন্ধান চলছে। করোনার এই সময়ে সরকারি কাজ বন্ধ করা উচিত নয়। এতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ভোগান্তিতে পড়বে।’

আরও পড়ুন : ইদের সাত দিন আগে বোনাস পাবেন বেসরকারি শিক্ষকরা

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন অগ্নিবীণা হল ছাত্রলীগের সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক আশরাফুজ্জামান পারভেজ, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমিটির সদস্য শাহীন হোসাইন সাজ্জাদ প্রমুখ। অন্যদিকে মানববন্ধনে ঘোষণা দেওয়ার পর থেকেই উন্নয়ন প্রকল্পের দুটি হলের কাজ বন্ধ রয়েছে বলে জানায় সংশ্লিষ্ট দপ্তর।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে দুটি হলের নির্মাণ কাজ শুরু হয়ে ১৮ সালে শেষ হওয়ার কথা ছিলো। হল নির্মাণে কাজ করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ভাওয়াল কন্সট্রাকশন। এর পূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণেও আটকে রাখার অভিযোগ উঠেছিল শিক্ষার্থীদের নামে। তবে কোন শিক্ষার্থীরা আটকিয়ে রেখেছিলো প্রশাসন তাদের নাম বলেনি। অন্যদিকে পরিকল্পনা দপ্তর প্রধানের নামে পূর্বেও অভিযোগ করেছিলো শিক্ষার্থীরা।

jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড