• রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

তবুও আজ বিশ্ববিদ্যালয় দিবস

  আহমেদ ইউসুফ, কুবি প্রতিনিধি

২৭ মে ২০২০, ২১:০৭
কুবি
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (ছবি : নিজস্ব)

প্রতি বছর বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন সংগঠনের বিচিত্র আয়োজনে যে ক্যাম্পাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হত, করোনার ক্রান্তিলগ্নে তা আজ জনমানবহীন, রঙহীন, ভূতের আড্ডাখানা। নেই কোনো আয়োজন, নেই তার প্রাণ হাজারো শিক্ষার্থীদের আনাগোনা। তবুও আজ বিশ্ববিদ্যালয় দিবস।

বলছি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের কথা। ২০০৬ সালের ২৮ মে কুমিল্লা শহর থেকে মাত্র ১১ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে কোটবাড়ির শালবন বিহার এবং ময়নামতি জাদুঘর সংলগ্ন পাহাড় আর সমতল ভূমির পাদদেশে দেশের ২৬তম পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে দেশের উচ্চশিক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে শালবনের এই ক্যাম্পাসটি। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আনন্দঘন পরিবেশে চলত নানা আয়োজন। কিন্তু করোনার এই দিনে নিরানন্দ দিবস উদযাপন যেন তার আকাশে সত্যিই মেঘ ঘন চিত্র দাঁড় করায়। কে ভেবেছিল এমন দিবস উদযাপিত হবে? সচিত্র অনুষ্ঠানে ক্যাম্পাস মেতে থাকবে এটাই ছিল নিত্য চাওয়া।

তাই অনেকটা আক্ষেপ প্রকাশ করেই অ্যাকাউন্টিং ইনফেরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সিনিয়র শিক্ষার্থী ইমরান মাহমুদ জীবন বলেন, ‘নানা আয়োজনে দিনটি প্রতিবার ঘটা করে আয়োজন হত। অথচ আজ আমরা বাঁচতে মরিয়া। প্রাণের ক্যাম্পাসে নেই কোনো প্রাণ। নেই কোনো আয়োজন। তবুও আমরা ফিরতে চাই। প্রিয় শিক্ষক শিক্ষিকাদের মূল্যবান লেকচারগুলো শুনতে চাই। প্রিয় বন্ধুদের সঙ্গে চায়ের আসর জমাতে চাই।’

লোক প্রশাসন বিভাগের আরেক শিক্ষার্থী শাকিল রেজা জানান, ক্যাম্পাস থেকে আসার সময় ভাবি নি এতদিন বাড়ি থাকতে হবে। স্বাভাবিক সময়ে বাড়ি আসার জন্য সুযোগ খুজতাম কখন মায়ের মুখখানা দেখতে পাব। অথচ আজ ক্যাম্পাসে যেতে প্রাণটা বড় চাতুরী করছে। অনেক মিস করছি প্রিয় প্রাঙ্গণকে।

আরও পড়ুন : ক্যাম্পাসের মোড়ে মোড়ে নেই চায়ের আড্ডা

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. মো. আবু তাহের জানান, প্রতিবার এই দিনটিকে ঘিরে নানা আয়োজন থাকত আমাদের। কিন্তু করোনা দুর্যোগে তেমন কোনো আয়োজন নেই আমাদের। বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ, দেশজুড়ে লকডাউন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরে আমরা সবার মতামতের ভিত্তিতে যদি সম্ভব হয়, তাহলে দিবসটি পালনের কথা ভেবে দেখব। আপাতত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য বলব তোমরা ঘরে থাকো, সাবধানে থাক।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে সাতটি বিভাগে ৩০০ জন শিক্ষার্থী ও ১৫ জন শিক্ষক নিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম চালু হয়।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড