• রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীর ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

  বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি

১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২১:১৭
বশেমুরবিপ্রবি
শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

শিক্ষার্থীর ওপর স্থানীয়দের হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা। 

রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে এ মানববন্ধন করে তারা। এ সময় তারা শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি জানায়।

মানববন্ধনে মাকসুমুল আরিফিন অভি বলেন, ‘প্রায়ই বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা অন্যায়ভাবে স্থানীয়দের হামলার শিকার হচ্ছে। কিন্তু বারবার এসব অন্যায়-জুলুম চলতে থাকলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তা বরদাশত করবে না।’

হামলার শিকার হওয়া শিক্ষার্থীর নাম মেহেদী হাসান মারুফ। তিনি আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রাজিউর রহমান বলেন, ‘শিক্ষার্থীর ওপর স্থানীয়দের হামলার ঘটনা জানার পর তাৎক্ষণিক সেখানে পুলিশ পাঠিয়েছি। পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। আহত শিক্ষার্থীর পক্ষ থেকে লিখিতভাবে অভিযোগপত্র পাওয়া গেলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন হামলাকারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।’

জানা যায়, শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাত আনুমানিক ৮টা ৩০ মিনিটে মোবাইল থেকে টাকা উত্তোলনের জন্য স্থানীয় একটি দোকানে যায় মারুফ। পরে তিনি ওই দোকান থেকে ৬ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। এ সময় স্থানীয় ওই ব্যবসায়ী লিটন তাকে ১হাজার টাকা ৬টি নোট দিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন : স্থানীয়দের হামলার শিকার বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থী  

ভুক্তভোগী মারুফ আরও জানান, এর ঘণ্টাখানেক পরে পুনরায় একই দোকানে যান তিনি। এ সময় তিনি তার মোবাইল নাম্বারে ১০৯ টাকা ফ্লেক্সিলোড করেন এবং দোকানদারকে ১ হাজার টাকার ১টি নোট দিলে দোকানদার ভাংতি টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এতে মারুফ নিজের কাছে থাকা সব মিলিয়ে ১১০ টাকা দোকানদার লিটনকে দেন। এ ঘটনায় মারুফ কেন আগেই ভাংতি টাকা দেননি, তা নিয়ে মারুফ এবং দোকানদার লিটনের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে দোকানদার লিটন মারুফকে মারধর করতে শুরু করেন। এতে আশেপাশে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এগিয়ে আসলে দোকানদার লিটন মারুফকে চোর অপবাদ দেন এবং ৭-৮ জন স্থানীয় মিলে এলোপাথাড়ি আঘাত করেন।

ওডি/এমআরকে 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড