• সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৬ আশ্বিন ১৪২৭  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

যানজটে ভোগান্তিতে ঢাবি শিক্ষার্থীরা

  হাসান বিশ্বাস, ঢাবি প্রতিনিধি

১৫ জানুয়ারি ২০২০, ০৯:৪২
ঢাবি
বহিরাগত যানবাহনের অবাধ চলাচল (ছবি : সংগৃহীত)

অনিয়ন্ত্রিত এবং বহিরাগত যানবাহনের কারণে দিন দিন নষ্ট হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ। সেই সঙ্গে বাড়ছে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি। ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম।

সমস্যা সমাধানে ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী প্রশাসনের সাহায্য চেয়ে অনুরোধ জানান। কিন্তু এরপরেও শিক্ষার্থীরা বাস্তবিক কোনো পরিবর্তন দেখেননি। তবে এই সমস্যার সমাধানে প্রক্টরিয়াল টিম কাজ করে যাচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

গত ১২ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অনুরোধ জানিয়ে গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ করছি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাতে তীব্র যানজট এবং উচ্চস্বরে হর্নের উপদ্রবে শব্দ দূষণের মাত্রা একটি প্রকট আকার ধারণ করেছে। এতে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। এমতাবস্থায় ক্যাম্পাসের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় উচ্চস্বরে হর্ন না বাজাতে বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে। এছাড়া বহিরাগত যানবাহনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক পরিবেশ নষ্ট হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থীরা।’

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটে চলেছে। এসব বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরিয়াল টিমের সাইফুল ইসলাম জানান, প্রক্টরিয়াল টিম এই সমস্যার সমাধানে সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে।

তিনি আরও বলেন, ‘যানজট সমস্যা সমাধানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের কোথাও রিকশা/সিএনজিকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেওয়া হয় না। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কিছু শিক্ষার্থী স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে এই সমস্যা সমাধানে এখন থেকে কাজ করবেন। আশা করি দ্রুত এর সমাধান হবে।’

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ট্রাফিক পুলিশ না থাকায় শিক্ষার্থীদের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হতে হয়। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে লিখিত আবেদন করা হলে অতিরিক্ত ট্রাফিক পুলিশের ব্যবস্থা করা হবে।’

ক্যাম্পাস অভ্যন্তরে পার্কিং করা বহিরাগত গাড়ি (ছবি : সংগৃহীত)

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশের সকল গেট দিয়ে বিভিন্ন ধরনের গাড়ি প্রবেশ করায় নিয়মিত যানজট লেগে থাকে ক্যাম্পাসে। এতে শিক্ষার্থীদের ৮ মিনিটের রাস্তা অতিক্রম করতে ৩০ মিনিট সময় চলে যায়। যা শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনকে ব্যাহত করছে। সময়মতো ক্লাসে পৌঁছতে যা সবচেয়ে বড় বাধা।

ক্যাম্পাসের মধ্য দিয়ে যানবাহনের অবাধ চলাচল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে। তারা বলছেন, বিশ্ববিদ্যালয় শুধু পড়ার জায়গা নয়, চিন্তা করার জায়গাও। এর জন্য একটি ভালো ও সুস্থ পরিবেশ দরকার। কিন্তু বহিরাগত যানবাহনের অবাধ চলাচলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সে পরিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব স্বকীয়তায়ও বিনষ্ট হচ্ছে।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি, দোয়েল চত্বর, নীলক্ষেত মোড়, শহীদ মিনার চত্বর এবং পলাশী মোড়ে দিন-রাত সবসময়ই সাধারণ শিক্ষার্থী ও পথচারীদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হতে হয়। রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় চলে মোটরসাইকেলের মহড়া। বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকা, ফুলার রোড, দোয়েল চত্বর ও মল চত্বরে প্রতিনিয়তই চলে গাড়ি প্রশিক্ষণ। এ কারণে ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনার মতো নানা অপ্রীতিকর ঘটনা।

সমাজ কল্যাণ বিভাগের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘মাঝে মাঝে মনে হয় এটা ক্যাম্পাস না, গুলিস্তানের কোনো সড়ক। অবাধ যান চলাচলের কারণে ক্যাম্পাসেও যানজটের কবলে পড়তে হয়। এমন কোনো দিন নেই, নীলক্ষেত মোড়ের জ্যাম ভি.সি চত্বর পর্যন্ত আসে না।’

শুধু ক্যাম্পাসই নয়, অনেক হলের মাঠে নিয়মিত বহিরাগত গাড়ি পার্ক করা হচ্ছে। শুধু পার্কিং নয়, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিভিন্ন রাজনৈতিক সমাবেশের কারণেও বিশ্ববিদ্যালয়ের রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। এতে ভোগান্তিতে পড়তে হয় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের। রাজনৈতিক সমাবেশের দিন টিএসসিসহ আশপাশের রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় গাড়ি পার্কিং করা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে। এতে দুর্ভোগে পড়তে হয় বাইরে থেকে ক্লাস করতে আসা শিক্ষার্থীদের।

আরও পড়ুন : প্রাথমিকে নতুন শিক্ষকদের যোগদান ১৬ ফেব্রুয়ারি

এই বিষয়ে ডাকসুর ছাত্র পরিবহন সম্পাদক শামস ঈ নোমান বলেন, ‘এই সমস্যা সমাধানে গত ৫-৬ মাস ধরে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এখন বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে ট্রাক ও ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়েছে। অনিয়ন্ত্রিত কোনো যানবাহন পেলেই প্রক্টর বডির কাছে হস্তান্তর করা হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সমস্যা সমাধানে প্রক্টরিয়াল টিমকে আরও সজাগ থাকতে হবে। সেই সঙ্গে টিমকে আরও সমৃদ্ধ করতে হবে। আস্তে আস্তে সকল সমস্যার সমাধান হবে।’

ওডি/এমএ

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড