• বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

প্রস্রাবের দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ শিক্ষার্থীরা, অচল ওভারব্রিজ

  জিবিসি প্রতিনিধি

০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৪:১৫
সরকারি বাঙলা কলেজ
বাঙলা কলেজের পরিত্যাক্ত প্রায় ওভারব্রিজ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

রাস্তা পারাপারের সুবিধার জন্য ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ করা হলেও অব্যবস্থাপনা এবং অসচেতনতার কারণে রাজধানীর ঢাকার অনেক ফুটওভার ব্রিজই অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে। এর মধ্যে অন্যতম একটি হলো রাজধানী মিরপুরের সরকারি বাঙলা কলেজ (জিবিসি) সংলগ্ন ফুটওভার ব্রিজ।

কলেজের শিক্ষার্থী এবং আশেপাশের মানুষদের নিরাপদে রাস্তা পারাপারের জন্য নির্মাণ করা হলেও বর্তমানে এর অবস্থা খুবই নগণ্য। প্রস্রাবের দুর্গন্ধে কেউই এই ব্রিজ ব্যবহার করতে পারছেন না।

সরকারি বাঙলা কলেজের মূল গেটের পাশেই ব্রিজটির অবস্থান। এটি নির্মাণের ফলে শিক্ষার্থীদের উপকার হলেও বর্তমানে এটি কারও কাজেই আসছে না। ফুটপাতের আশেপাশে কিছু অসচেতন মানুষ প্রতিনিয়ত ব্রিজের নিচে প্রস্রাব করছে। আর প্রস্রাবের দুর্গন্ধ হাজারও শিক্ষার্থীর বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ফুটওভার ব্রিজের আশেপাশের স্থানগুলোতে প্রস্রাবের বন্যা। মনে হয় যেন সে স্থানে মাত্রই বৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া দুর্গন্ধ ও প্রস্রাবের পরিমাণ এতই যে সেখানে হাঁটাচলা করা খুবই মুশকিল। যার কারণে এখন অধিকাংশ শিক্ষার্থীই ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করে না। তারা তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হয়।

যানজট দূরীকরণ আর পথচারীদের রাস্তা পারাপার নিরাপদ করতেই লাখ লাখ টাকা ব্যয়ে যে ওভারব্রিজটি তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু সেখানে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ বিরাজ করার কারণে, এই ওভারব্রিজ তেমন কোনো কাজে আসছে না।

এ ব্যাপারে সজিব নামের এক শিক্ষার্থী জানান, ‘আমরা প্রস্রাবের দুর্গন্ধে ফুটপাত ব্যবহার করতে পারছি না। আর দুর্গন্ধের পরিমাণ এতটাই যে বমি চলে আসে। আমরা সিটি করপোরেশন ও কলেজ প্রশাসনের নিকট নিবেদন করি যেন, উনারা এই বিষয়টিতে কঠোরভাবে হস্তক্ষেপ করেন।’

বাঙলা কলেজের আরেক শিক্ষার্থী সবুজ আহমেদ দৈনিক অধিকারকে বলেন, ‘আমাদের ক্যাম্পাসের সামনে এই ধরনের পরিবেশ খুবই জঘন্য। এই কারণে আমাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার করতে হয়। ক্যাম্পাসের সামনে আমরা এই ধরনের পরিবেশ দেখতে চাই না। আমরা খুব শিগগিরই এর থেকে মুক্তি চাই।’

দৈনিক অধিকারের প্রতিনিধি ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করা জাকির নামের একজনকে এমনটি করার কারণ জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, ‘আমরা কি করমু ভাই, বলেন? প্রস্রাবের বেগ কী আটকায় রাখা যায়? তাই আমরা রাস্তায় প্রস্রাব করি। আমাদের কিছুই করার নাই। কারণ আশেপাশে কোনো পাবলিক বা মোবাইল টয়লেট নাই। আর থাকলে আমরা রাস্তায় প্রস্রাব করতাম না।’

ক্যাম্পাসের সামনে যেখানে বিরাজ করার কথা ছিল সুন্দর পরিবেশ, সেখানকার অবস্থা দেখে মনে হয় এই স্থানটি ফুটপাত নয়। এটা হচ্ছে খোলা বাথরুম। অথচ এই ব্যাপারে ক্যাম্পাস প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনকে কোনো ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যাচ্ছে না বলে অভিযোগ অধিকাংশ শিক্ষার্থীর।

ওডি/এসএসকে/এমএ

jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড