• বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

এবার দুর্নীতি বিরোধী ক্যাম্পেইন করছেন সেই সাইফুল

  সাদিকুর রহমান, হাবিপ্রবি প্রতিনিধি

০২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:৫০
হাবিপ্রবি
দুর্নীতি বিরোধী ক্যাম্পেইন করছেন হাবিপ্রবি শিক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম শান্তি (ছবি : সংগৃহীত)

এবার মাসব্যাপী দুর্নীতি বিরোধী ক্যাম্পেইন শুরু করেছেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) সেই শিক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম শান্তি। রবিবার (১ ডিসেম্বর) পঞ্চগড় সদরের আমলাহার গ্রাম থেকে তার এই ক্যাম্পেইন শুরু করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম শান্তির বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার আমলাহার এলাকায়।

সাইফুল ইসলাম শান্তি জানান, ‘প্রধানমন্ত্রীর দুর্নীতি বিরোধী অভিযানকে আমি পূর্ণসমর্থন ও অভিনন্দন জানাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রীকে আহ্বান করব, প্রিয় প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে আপনার চলমান অভিযান অব্যাহত রাখুন এবং অভিযানটি সচিবালয় থেকে শুরু করে ইউনিয়ন ও প্রত্যন্ত গ্রাম পর্যন্ত প্রসারিত করুন।’

‘প্রধানমন্ত্রীর এই দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের সমর্থন আদায় করতে ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য আমি মাসব্যাপী এই প্রচারণায় নেমেছি।’

‘সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জনগণের করের টাকায় বেতন ভাতা পান। তাদের দায়িত্ব হলো জনগণকে সেবা দেওয়া। অসচেতন জনগণ ঘুষ দেন বলেই অফিসের বড় কর্তা থেকে শুরু করে পিয়ন চাপরাশিও রাতারাতি বড়লোক হয়ে যাচ্ছে- জমি কিনছে, বাড়ি কিনছে, বড় বড় ভবন নির্মাণ করছে। আর জনগণ সরকারের আয়ের উৎস হয়েও কষ্টে দিন যাপন করছেন, ঝুপড়িতে ও কুঁড়ে ঘরে থাকছেন।’

‘সকলের প্রতি আহ্বান এই ঘুষ দেওয়ার মন-মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে, ঘুষকে না বলতে হবে। প্রিয় দেশবাসী, আপনারা যদি সুখে-শান্তিতে থাকতে চান, ছেলে মেয়েদেরকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে চান তবে সবাইকে একজোট হয়ে দুর্নীতিকে না বলতে হবে, ঘুষ দেওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।’

‘যে দেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, যে দেশে বিশ্বনন্দিত প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় সেদেশে আপনারা স্বাধীন, আপনারা মুক্ত। সুতরাং আপনারা নির্ভয়ে চলবেন, নির্ভয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলবেন। ঘুষ ছাড়াই রাষ্ট্রীয় সেবা গ্রহণ করবেন। বঙ্গবন্ধু নিজেও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আজীবন লড়াই করেছেন। আপনাদেরও বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে লানন করে দুর্নীতির বিরুদ্ধে হুংকার দিতে হবে, প্রয়োজন হলে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করে বঙ্গবন্ধুর মতো দেশের জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করতে হবে। আর এটাই হলো দেশপ্রেম। মনে রাখবেন ঘুষ দেওয়া যদি আপনারা বন্ধ না করেন তবে নিজ ঘরে বসবাস করতে গেলেও আপনাদের একদিন ঘুষ দিতে হবে, নিজের জমিতে ফসল ফলাতে গিয়েও একদিন আপনাদের ঘুষ দিতে হতে পারে। তখন আপনাদের জীবনেও নেমে আসবে অবর্ণনীয় দুঃখ-দুর্দশা, পেট পুড়ে তখন দু-মুঠো ভাতও খেতে পারবেন না, দেশে নেমে আসবে চরম অস্থিরতা। সুতরাং এখন থেকেই সবাইকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলতে হবে। দুর্নীতিবাজদের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে।’

‘এ সরকার সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন কয়েকগুণ বাড়িয়েছে। তারপরও যদি কেউ আপনাদের কাছে ঘুষ চায় তবে চুপ করে থাকবেন না, আপনারা তাকেই ধরবেন, ধরে গণধোলাই দেবেন। যে কোনো সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা-ভূমি, বিদুৎ অফিস, পুলিশ, ইউনিয়নের মেম্বার-চেয়ারম্যান, এমপি-মন্ত্রী যে কেউ ঘুষ চাইলে সঙ্গে সঙ্গে প্রতিবাদ করবেন। এমনভাবে প্রতিবাদ করবেন ঘুষ চাওয়া ওই কর্মকর্তা যেন ভবিষ্যতে আর কারও কাছে কোনো দিন ঘুষ চাইতে না পারে।’

‘সকলেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন। দোকানদার ভাইদের বলছি, আপনারা দুর্নীতিবাজদের কাছে আপনাদের পণ্য বিক্রি করবেন না, নাপিত ভাইদের বলছি, আপনারা দুর্নীতিবাজদের চুল কেটে দেবেন না, রিকশাচালক ভাইদের বলছি, দুর্নীতিবাজদের আপনাদের রিকশায় উঠাবেন না,  চা বিক্রেতাদের বলছি, আপনারা দুর্নীতিবাজদের হোটেলে প্রবেশ করতে দেবেন না। আপনারা কেউ দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে আত্মীয়তা করবেন না। তাদেরকে একঘরে করে রাখুন। যখন দুনীর্তিবাজদের আমরা সামাজিকভাবে পুরোপুরি বয়কট করতে পারব তখনই এ দেশ থেকে দুর্নীতি একেবারে কমে যাবে।’

‘আপনি আমি যদি চুপ থাকি তবে দুর্নীতিবাজরা সাহস পেয়ে যাবে এবং একের পর এক দুর্নীতি করে যাবে। আর আপনি আমি যদি প্রতিবাদ করি তবে দুর্নীতিবাজরা ভয় পেয়ে যাবে এবং কেউ আর দুর্নীতি করার সাহসই পাবে না। আসুন আমরা সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলি এবং নিজেরাও ঘুষ দেওয়া থেকে বিরত থাকি। কবি নজরুলের ভাষায়, ‘আমরা যদি না জাগি মা কেমনে সকাল হবে?’ মনে রাখবেন, আপনি আমি জেগে উঠলে জেগে উঠবে পুরো বাংলাদেশ। আর বাংলাদেশ জেগে উঠলে এ দেশ থেকে দুর্নীতি চিরতরে বিদায় নেবে।’

এর আগে গুজব, প্রকাশ্য দিবালোকে রিফাত হত্যাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে তেঁতুলিয়া থেকে টেকনাফ পর্যন্ত পদযাত্রা কর্মসূচি পালন করেন এই শিক্ষার্থী। পদযাত্রায় প্রায় ১ হাজার কিলোমিটার পথ পায়ে হেঁটে হাট-বাজার, রাস্তা-ঘাটে মানুষকে সচেতন করেছেন তিনি।

ওডি/আরএআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড