• মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইবিতে র‍্যাগিং সংক্রান্ত ঘটনার তথ্য চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি

  ইবি প্রতিনিধি

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২০:৩৩
ইবিতে র‍্যাগিং সংক্রান্ত ঘটনার তথ্য চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) লালন শাহ্ হলের গণরুমে নবীন এক শিক্ষার্থীকে র‍্যাগিং সংক্রান্ত ঘটনার তথ্য চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে গঠিত যাচাই-বাছাই কমিটি।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) লালন শাহ্ হলের র‍্যাগিং সংক্রান্ত ঘটনার যাচাই-বাছাই কমিটির আহ্বায়ক ও শেখ রাসেল হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. দেবাশীষ শার্মা স্বাক্ষরিত এ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বলা হয়, গত ৭ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাতে লালন শাহ্ হলের ১৩৬ নং কক্ষে ঘটে যাওয়া র‍্যাগিং সংক্রান্ত ঘটনার যাচাই-বাছাইকল্পে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। উক্ত ঘটনার বিষয়ে যদি কারো কোন বক্তব্য থাকে বা কেউ প্রত্যক্ষদর্শী হয়ে থাকেন, আগামী ৫ মার্চ তারিখের মধ্যে কমিটির আহ্বায়কের নিকট মৌখিক বা লিখিতভাবে জানানোর জন্য সবিশেষ অনুরোধ করা হচ্ছে। তথ্য প্রদানকারীর পরিচয় গোপন রাখা হবে বলে জানানো হয়।

উল্লেখ্য, গত ৭ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের লালন শাহ হলের ১৩৬ নং রুমে বিশ্ববিদ্যালয়ের আল-ফিকহ এবং লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের এক নবীন শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতনের ঘটনা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এতে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের মোহাম্মদ সাগর এবং শারীরিক শিক্ষা বিভাগে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের মুদাসসির খান কাফির বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠে আসে। অভিযুক্তরা সবাই শাখা ছাত্রলীগের কর্মী বলে জানা যায়।

জানা যায়, অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা নবীন শিক্ষার্থীদের পরিচয় নিতে এসে এক পর্যায়ে ভুক্তভোগীকে উলঙ্গ হতে বলে। এসময় ওই ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী উলঙ্গ হতে অস্বীকৃত জানালে তার উপর মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়।

নির্যাতনের একপর্যায়ে তাঁকে রড় দিয়ে আঘাত করতে থাকেন অভিযুক্তরা। পরে তাকে জোরপূর্বক বিবস্ত্র করে হাত উপরে উঠিযে টেবিলের উপর দাঁড় করে রাখা হয়। এভাবে রাত ৪টা পর্যন্ত তাকে নির্যাতন করা হয়।

তবে এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী কোন লিখিত অভিযোগ দেয়নি। সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি শেখ রাসেল হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. দেবাশীষ শর্মাকে আহ্বায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মিথুন বৈরাগীকে সদস্য সচিব করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কমিটির অপর সদস্য হলেন, ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. শেলীনা নাসরীন।

এদিকে এ ঘটনায় চার সদস্য বিশিষ্ট আরোও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে লালন শাহ্ হল প্রশাসন। এতে হলটির আবাসিক শিক্ষক ড. আলতাফ হোসেনকে আহ্বায়ক ও হলের সহকারী রেজিস্ট্রার জিল্লুর রহমানকে সদস্য সচিব করা হয়। চার সদস্য বিশিষ্ট কমিটির অন্যরা হলেন, আবাসিক শিক্ষক আব্দুল হালিম ও ড. হেলাল উদ্দিন।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড