• বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ১৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নিজ ক্যাম্পাসে ‘অবাঞ্ছিত’ জাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক

  জাবি প্রতিনিধি

২৪ জানুয়ারি ২০২৪, ১৪:৫৫
ছাত্রলীগ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শাখা ছাত্রালীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান লিটনের বিরুদ্ধে অনুসারীদের অবহেলা ও জমি দখলসহ একাধিক অভিযোগ তুলে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের একটি অংশ।

মিছিলে অংশগ্রহণকারী সবাই ক্যাম্পাসে হাবিবুর রহমান লিটনের অনুসারী বলে পরিচিত।

আজ মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুর পৌনে ২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বর থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন রেজিস্ট্রার ভবনের সামনের সড়ক দিয়ে শহীদ মিনার ঘুরে পুনরায় পরিবহন চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পর সেখানে একটি সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন তারা।

সমাবেশে লিখিত বক্তব্যে শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সাজ্জাদ শোয়েব চৌধুরী বলেন, ‘আমরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা, বিভিন্ন হলের নেতাকর্মীরা আজকে এখানে একত্রিত হয়েছি এই মর্মে যে, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়া থেকে আজ অবধি কর্মীদের খোঁজ না রাখা, কমিটির ২ বছর অতিক্রান্ত হবার পরেও বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতিতে সমন্বয় না করা, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়া সত্ত্বেও রাজনীতি বিকেন্দ্রীকরণ না করে নিজ হলকেন্দ্রিক চিন্তাচেতনা পোষণ করা, প্রত্যেকটি হলের কর্মাসভা করেও দীর্ঘদিন যাবৎ হল কমিটি না দেওয়া, হল কমিটির বিষয়ে কথা বলতে চাইলে বিভিন্ন সময়ে নেতাকর্মীদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করা এবং নানা ব্যস্ততার অজহাত দেখানো, সংগঠনের কর্মীদের নিয়ে চিন্তা না করে বিশ্ববিদ্যালয় পার্শ্ববর্তী ও একাকার ‘জমি দখল’ এর মতো ব্যক্তিগত স্বার্থ নিয়ে বেশি ব্যস্ত থাকেন। তাই এসকল গুরুতর অভিযোগ এবং নৈতিক স্খলনের প্রতিবাদে আমরা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা তাকে এই মুহূর্ত থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবাঞ্চিত ঘোষণা করছি।’

মিছিল ও সমাবেশে নেতৃত্ব দেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক লেলিন মাহবুব ও আরাফাত ইসলাম বিজয়, সাংগঠনিক সম্পাদক চিন্ময় সরকার, সহসভাপতি জাহিদুজ্জামান শাকিল ও ফয়সাল খান রকি এবং অর্থ সম্পাদক তৌহিদুল আলম তাকিদ।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর থেকে নানা অপকর্ম-অনিয়ম ও বিভ্রান্তি কর তথ্য প্রচারের অভিযোগ ওঠে হাবিবুর রহমান লিটনের বিরুদ্ধে।

২০২২ সালের ৩ জানুয়ারি আকতারুজ্জামান সোহেলকে সভাপতি ও হাবিবুর রহমান লিটনকে সাধারণ সম্পাদক করে দুই সদস্যবিশিষ্ট জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কমিটি দেয় কেন্দ্রীয় সংসদ। লিটন সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর থেকেই সংগঠনটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা আপত্তি তুলতে থাকেন ক্যাম্পাসে তার সক্রিয়তার বিষয় নিয়ে। নেতাদের অভিযোগ ছিল, তার বাড়ি ক্যাম্পাসের পাশের এলাকায় হওয়ায় স্থানীয় রাজনীতিতে তার বেশি সম্পৃক্ততা নিয়ে।

শাখা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর কিছুদিনের মধ্যেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন হাবিবুর রহমান লিটন।

ক্যাম্পাসের সংবাদ প্রকাশের জন্য ক্যাম্পাস প্রতিনিধিকে গালিগালাজের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। ক্যাম্পাসে বাস আটকে ও বহিরাগতকে অপহরণ করে চাঁদা আদায়ের অভিযোগও।রয়েছে হাবিবুর রহমান লিটনের বিরুদ্ধে।

শাখা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হওয়ার আগেও অপহরণ করে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। ২০১৯ সালের ২৭ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মোশাররফ হোসেন হলের কক্ষে ডেকে এক ট্রাভেল এজেন্সির মালিকের কাছ থেকে ৯৫ হাজার ৫০০ টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগ ওঠে হাবিবুর রহমান লিটন ও সৈয়দ লায়েব আলীর বিরুদ্ধে। লিটন তৎকালীন শাখা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক এবং লায়েব আলী কর্মী ছিলেন।

ক্যাম্পাসে বিরোধী দলের কর্মীকে মারধরের জন্য অনুসারীদের প্ররোচিত করার অভিযোগ রয়েছে লিটনের বিরুদ্ধে। গত বছরের ১ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন আমবাগানের বাসা থেকে তুলে ক্যম্পাসর ভেতরে এনে নিজের উপস্থিতিতে অনুসারীদের দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের ৪৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ও শাখা ছাত্রদলের কর্মী মিজানুর রহমানকে মারধরের অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। তবে পরে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সংশ্লিষ্টদের প্রভাবিত করার অভিযোগও রয়েছে এই নেতার বিরুদ্ধে। গত ১৪ ডিসেম্বর রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু তুলনামূলক সাহিত্য ও সংস্কৃতি ইনস্টিটিউটে প্রভাষক পদে চাকরিপ্রত্যাশী শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি ও দর্শন বিভাগের ৪৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী আনিকা সুবাহকে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসানের উপস্থিতে উপাচার্য অধ্যাপক ড. নূরুল আলমের বাসভবনে বৈঠক করার অভিযোগ ওঠে হাবিবুর রহমান লিটনের বিরুদ্ধে।

বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান লিটনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান লিটন বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ে আসার পর আমি সার্বক্ষণিক ক্যাম্পাসেই অবস্থান করি। শুধু নিজের স্বার্থের কথা ভাবি, এমন কথা যুক্তিহীন। তাছাড়া জমি দখলের অভিযোগের বিষয়েও কেউ কোনো উপযুক্ত প্রমাণ দিতে পারবে না। এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন।”

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড