• শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

গ্যাস বিস্ফোরণে দগ্ধ জবি শিক্ষার্থী শাওন আর নেই

  জবি প্রতিনিধি

০৬ মে ২০২৩, ১৩:২৪
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

গ্যাস বিস্ফোরণে দগ্ধ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। দগ্ধ শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান শাওন বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। মেহেদীর শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে যায়।

শনিবার সকাল ৬টা বেজে ১৫ মিনিটে রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে চিকিৎসা চলাকালীন সময়ে তার মৃত্যু হয়। হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ও মেহেদীর মামা বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মেহেদীর মামা আলমাস হোসেন বলেন, আগুনে পুড়ে অনেক কষ্ট সহ্য করেছে মেহেদী। রাতে শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। আজ সকালে মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে ১লা মে সোমবার সকাল ৯ টার দিকে রাজধানীর পুরান ঢাকার ধূপখোলা বাজারের রাস্তার পাশের গ্যাসলাইন মেরামতের সময় বিস্ফোরণে তিনি গুরুতর আহত তিনি। এ ঘটনায় শাওনসহ ৮ জন দগ্ধ হয়। তার গ্রামের বাড়ি নাটোরের বাগাতিপাড়ায়। ঈদের ছুটি শেষে শনিবার ঢাকায় ফেরেন তিনি। সোমবার পার্শ্ববর্তী বাজার ধূপখোলায় বাজার করতে গেলে এ ঘটনার শিকার হন।

মেহেদীর মেস সঙ্গী ও বন্ধু হাসান আলী জানান, ঘটনার দিন সকালে মেসে কে প্রথম বাজার করবে তা নিয়ে কথা উঠলে শাওনই প্রথম বাজার করার জন্য রাজী হয়। এরপর সকাল দশটার দিকে সে ধূপখোলা মাঠের পাশে বাজারের জন্য চলে যায়। এর কিছুক্ষণ পরে মেসের নীচে থাকা সেলুন দোকানি হাসানকে খবর দেন মেহেদি দগ্ধ হয়েছে। এরপর তাড়াহুড়া করে হাসপাতালে আনা হয়। টানা ৫ দিন মৃত্যুর সাথে লড়ার পর মৃত্যু হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড মোস্তফা কামাল বলেন, মেহেদীর মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। এঘটনায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ব্যবস্থা নিবে।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড