• শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বাদুড়ঝোলা হয়ে বাসে চলাচল শিক্ষার্থীদের

  চুয়েট প্রতিনিধি

১৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬:৪০
বাদুড়ঝোলা হয়ে বাসে চলাচল শিক্ষার্থীদের

যাতায়াতের জন্য বাসের সংখ্যা কম থাকায় দীর্ঘদিন ধরে চরম পরিবহন ভোগান্তিতে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) শিক্ষার্থীরা। বাসের আসনের চেয়ে বেশি শিক্ষার্থী নিয়েই চলাচল করছে বাসগুলো। এমনকি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাসগুলোর দরজায় ঝুলে ঝুলে চুয়েট আসা যাওয়া করে অনেক শিক্ষার্থী।

সরেজমিনে দেখা যায়, বাসের জন্য দাঁড়িয়ে থেকে তাড়াহুড়ো করে বাসে উঠতে না পারায় অনেক শিক্ষার্থী লোকাল বাস কিংবা সিএনজি যোগে ক্লাসে যাচ্ছে। ফলে সকালের ক্লাস-পরীক্ষায় সঠিক সময়ে উপস্থিত হতে পারেন না অনেকে।

এ দিকে শীতের সকালে লোকাল বাস এবং সিএনজির সংখ্যা কম থাকায় দুর্ভোগে নতুন মাত্রা যোগ হয়।

দীর্ঘদিনেও বাসের সমস্যা সমাধান না হওয়ায় প্রতিনিয়ত ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের। ফলে শিক্ষার স্বাভাবিক কার্যক্রম নষ্ট হচ্ছে বলেও অভিযোগ করছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

যদিও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বলছে, শিক্ষার্থীদের এই সমস্যা সমাধানের জন্য নতুন বাস ক্রয় করা হয়েছে। তবে চালক সংকটের কারণে নিয়মিত শিডিউলে নতুন বাস সংযোগ করা যাচ্ছে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ১৩টি বাসের মধ্যে রোস্টার করে দুটি বাস শিক্ষক এবং দুটি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়। তবে চট্টগ্রাম শহর থেকে চলাচল করা প্রায় ৬০০-৭০০ শিক্ষার্থীদের জন্য বাস বরাদ্দ দেওয়া হয় পাঁচটি আবার কখনো ছয়টি। ১৩টি বাসে মধ্যে গত নভেম্বরের শুরুতে তুরাগ নামে একটি নতুন বাস যুক্ত হলেও আড়াই মাসে এখনো বাসটি পরিবহনে যুক্ত করতে পারেনি চুয়েট প্রশাসন। বাকি দুই বা তিনটি বাসের যান্ত্রিক সমস্যা রয়েছে এমন বরাতে তথ্য দিয়েছে বাস চালক ও সংশ্লিষ্টরা।

তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহের জন্য চুয়েট যানবাহন পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে একাধিকবার মুঠোফোনে কল করেও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

চুয়েট বাসে ভোগান্তির কথা বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ ও তড়িৎকৌশল বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আশিকুর রহমান বলেন, বাস সংকটের কারণে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি তীব্র আকার ধারণ করেছে। সিএনজি এবং লোকাল বাসে ক্যাম্পাসে সময়মত ক্যাম্পাসে পৌঁছাতে না পারায় ক্লাস-পরীক্ষায় সময়মত পৌঁছাতে পারি না। কখনো বাসে উঠতে পারলেও দাঁড়িয়ে এমনকি অনেক সময় ঝুঁকিপূর্ণভাবে দরজার সামনে ঝুলে যেতে হয়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ দপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, যানবাহন সমস্যা আমরা দ্রুত সমাধান করার চেষ্টা করছি। নতুন বাসে চালক এবং সহকারী নিয়োগ এখনো হয়নি। নিয়োগ হলেই বাসটি পরিবহনে যুক্ত করব।

চট্টগ্রাম শহর থেকে চুয়েট ক্যাম্পাস প্রায় ২৭ কিলোমিটার দুর। চুয়েট থেকে শহরের উদ্দেশ্য ভোর ছয়টায় এবং শহর থেকে চুয়েটের উদ্দেশ্য সেই বাস সকাল ৭টা, চুয়েট থেকে কাপ্তাই রাস্তার মাথা পর্যন্ত বাস শিডিউল দুপুর ১টা ৪৫ মিনিট এবং শহরের উদ্দেশ্য বিকেল ৪টা ১৫ মিনিট এবং তা রাত ৯টায় শহর থেকে চয়েটের উদ্দেশ্য রওনা হয়ে মোট চার শিফটে ক্যাম্পাস এবং চট্টগ্রাম শহরের রুটে নিয়মিত চলাচল করে চুয়েট বাস।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড