• বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ফয়জুন নেছা উচ্চ বিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী ও পুনর্মিলনী

  অধিকার ডেস্ক

২২ নভেম্বর ২০২২, ১২:৩১
ফয়জুন নেছা উচ্চ বিদ্যালয়
ফয়জুন নেছা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রবেশদ্বার। ছবি: বছির আহমেদ

বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী আব্দুল আওয়াল খান মজলিশ (ঘটু মিয়া) কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত মানিকগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফয়জুন নেছা উচ্চ বিদ্যালয় ৫০ বছর পূর্ণ করেছে। স্বনামধন্য এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে আগামী ২৪ ডিসেম্বর বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা বসতে চলেছে ধলেশ্বরী তীরের এ স্কুল প্রাঙ্গণে।

নানা আয়োজনে মুখর করে প্রাক্তন-প্রাক্তনীদের অনন্য স্মরণীয় দিন হিসেবে উপহার দেওয়ার জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন আয়োজক কর্তৃপক্ষ। প্রথমবারের মতো এ পুনর্মীলনীতে সারাদেশে ছড়িয়ে থাকা অন্তত ৩ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী এতে অংশ নিবেন বলে প্রত্যাশা করছেন আয়োজকরা। আগামী ১৬ ডিসেম্বর রেজিষ্ট্রেশনের শেষ সময় বলে ঘোষণা করেছে তারা মনে করছেন স্কুল-কলেজ জীবনের হারিয়ে যাওয়া বাঁধভাঙা বন্ধুত্বের এক একটা পরিচ্ছেদকে আরেকবার ঝালিয়ে নেওয়ার সুযোগ মিলবে এই আয়োজনে।

প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও পুনর্মিলনী আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক মহিদুর রহমান বলেন, আমরা গত কয়েক বছর ধরেই এই প্রাক্তন-প্রাক্তনীদের মিলিত করার চিন্তা। অবশেষে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ আসছে। আমার বিশ্বাস সবাইকে ফেলে যাওয়া শৈশব একদিনের জন্য হলে ফিরিয়ে দিতে পারবো আমরা।

জানা যায়, ২৪ ডিসেম্বর সকালে এক আনন্দ র‍্যালির মাধ্যমে দিনটি শুরু হবে। এরপর সারাদিন আলোচনা সভা, স্মৃতিচারণ, মধ্যাহ্ন ভোজ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ হবে এ আয়োজন। সকল ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে আয়োজক কমিটিকে সাহায্য করছে বিদ্যালয়ের গভর্নিং বডিও।

দিনটি নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন প্রাক্তন শিক্ষার্থী ফয়জুল ইসলাম নাজমুল। তিনি বলেন, ফয়জুন নেছা উচ্চ বিদ্যালয় আমাদের শেকর। মানুষ শিখরে পৌঁছে গেলেও শেকড়ই তাকে আগলে রাখে। তাই এখানে ফিরে আসা আমাদের জন্য খুবই অবশ্যম্ভাবী ছিল। ওই দিন প্রত্যেকের ব্যস্ত সময় ভুলে পুরনো দিনের স্মৃতিচারণ করা একটা সুযোগ পাবে সবাই।

বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও বর্তমান ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আমিনুর রহমান খান মজলিশ বলেন, আমাদের প্রাণপ্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন এবং বর্তমান সকল শিক্ষার্থীর আনন্দঘন উপস্থিতির মাধ্যমে আগামী ২৪ ডিসেম্বর প্রথমবারের মতো জাঁকজমকপূর্ণ এক পুনর্মিলনী হতে যাচ্ছে। আমি সবাইকে অনুরোধ করবো রেজিষ্ট্রেশনের মাধ্যমে পুনর্মিলনীতে অংশগ্রহণ করে অভূতপূর্ব এক আনন্দঘন পরিবেশে শামিল হতে। বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাতা আবদুল আউয়াল খান মজলিশ ( ঘটুমিয়া) এর ত্যাগের প্রতি আনুষ্ঠানিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে চাই আমরা।

প্রধান শিক্ষক মো. শামসুল হক বলেন, আমিও এই বিদ্যালয়ের একজন প্রাক্তন শিক্ষার্থী। সুবর্ণ জয়ন্তীর এমন আনন্দঘন মুহুর্তে আমি এই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছি, যেটা আমার জন্য নিঃসন্দেহে গর্বের। স্বাধীনতা উত্তর সময়ে প্রতিষ্ঠিত এই বিদ্যালয়টি শুরু থেকেই এই অঞ্চলের মানুষদের আলোকিত করতে ভূমিকা রেখে চলছে এবং আমি চাই আগামী দিনগুলোতেও সুনামের সাথে শিক্ষা সেবা দিয়ে যাবে।

অনুষ্ঠান আয়োজনে বিন্দুমাত্র খামতি রাখতে চান না আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব মোশারফ তাজ। এই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এই পুনর্মীলনীর এই দিনটিকে বড় স্মৃতি হিসেবে উপহার দিতে চেয়ে তিনি বলেন, আমরা মিলিত হব আমাদের প্রাণের বিদ্যাপীঠে, যেখানে ফেলে এসেছিলাম আমাদের কৈশোরের কতশত মধুর স্মৃতি, যে মাটির গন্ধের উন্মাদনা আজও খুঁজে পাই আমার রক্তে, যেখানে আমার -আপনার শেকড়।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড