• সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকের নম্বর জালিয়াতি নিয়ে হাইকোর্টের রুল 

  নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:

০৩ আগস্ট ২০২২, ১১:৩৮
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের এক শিক্ষার্থীর করা নম্বর জালিয়াতির অভিযোগের বিষয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। অভিযুক্ত শিক্ষক হলেন সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন ও অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. নজরুল ইসলাম।

নাম্বার জালিয়াতি সংক্রান্ত রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে সোমবার (১ আগস্ট) বিচারপতি জাফর আহমেদ ও বিচারপতি মো. আখতারুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। রিটের পক্ষে আদালতে শুনানি করেন ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান।

জানা যায়, চলতি বছরের ২৭ মার্চ প্রকাশিত অর্থনীতি বিভাগের ২০১৮ সালের স্নাতকোত্তর পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল ঘোষণা এবং পুনঃপরীক্ষণ/পুনঃমূল্যায়নপূর্বক ফের ফল প্রস্তুতের ব্যর্থতা কেন অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে হাইকোর্টের রুলে। সেইসঙ্গে বিবাদীর (জারমিন রহমান) কেন ২০১৮ সালের স্নাতকোত্তর পরীক্ষার ফল পুনঃপরীক্ষণ/পুনঃমূল্যায়নের নির্দেশ দেওয়া হবে না সেটিও জানতে চেয়েছেন আদালত।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান, কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, রেজিস্ট্রার, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন, অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি এবং ২০১৮ সালের স্নাতকোত্তর পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে ৪ সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলেছে আদালত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের ২০২১ সালে প্রকাশিত স্নাতকোত্তর পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল ঘোষণায় নম্বর টেম্পারিং এবং অনিয়মের অভিযোগের বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে রিট দায়ের করেন জারমিন রহমান।

ইচ্ছাকৃত ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে নম্বর কম দেওয়া, বহিঃস্থ পরীক্ষক দ্বারা মূল্যায়ন ব্যতিরেকে শুধু অভ্যন্তরীণভাবে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার ফল প্রস্তুত ও অনিয়ম করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষার জন্য প্রণীত অর্ডিনেন্সের বিভিন্ন ধারা লঙ্ঘন করে নম্বর জালিয়াতি ও অনিয়ম করার অভিযোগ রয়েছে রিটে।

আইনজীবী ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান গণমাধ্যমকে জানান, রিটকারী অনার্সে সর্বোচ্চ ৩.৮২ সিজিপিএ অর্জন করে প্রথম হলেও মাস্টার্সে তাকে মাত্র ৩.৪৫ সিজিপিএ প্রদান করা হয়েছে। এতে করে পিটিশন দায়েরকারী ছাত্রী উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে আবেদন করার নূন্যতম যোগ্যতা হারিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবং উক্ত পরীক্ষা কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে এই নম্বর জালিয়াতি ও অনিয়মের অভিযোগ করা হয়। ইতোপূর্বে, ফল ঘোষণার পর মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরা ফল পুনঃমূল্যায়ন চেয়ে অবস্থান কর্মসূচি ও আন্দোলন করলে এবং প্রতিকার চেয়ে কর্তৃপক্ষ বরাবর আবেদন করে প্রতিকার না পাওয়ার প্রেক্ষিতে এই রিট পিটিশন দায়ের করা হয়।

হাইকোর্টের রুলের বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করা শিক্ষার্থী জারমিন রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজের অর্থনীতি বিভাগ ও প্রশাসনের কাছে প্রথমে আমাদের ফলাফল পুনঃমূল্যায়নের আবেদন জানাই কিন্তু কোন পদক্ষেপ দৃশ্যমান করেননি তারা। আমার সহপাঠিরাও অভিযোগ জানিয়েছিল কিন্তু আদালতে তারা যেতে পারেননি কেননা অনেকেরই চাকুরির বয়সসীমা শেষ হয়ে যাচ্ছে তাই। সেই সঙ্গে সকল সহপাঠীদের সম্মতিতেই ন্যায় বিচারের জন্যে উচ্চ আদালতে রিট করি। আমি মহামান্য আদালতের কাছে সুবিচার প্রত্যাশা করি।

ইতোপূর্বে বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. নজরুল ইসলামের কক্ষে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ করে ২০২১ সালে স্নাতকোত্তর শ্রেনীর ফলাফল প্রকাশিত হওয়া শিক্ষার্থীরা। তার বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ তোলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখরের সঙ্গেও স্বাক্ষাৎ করে শিক্ষার্থীরা।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড