• বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ২ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সংক্রমণ রেকর্ডের মাঝে মেডিকেল ‘ভর্তিযুদ্ধ’ অনুষ্ঠিত

  শিক্ষা ডেস্ক

০২ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৫৩
পরীক্ষা কেন্দ্র
প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনের স্থান পরিণত হয় জনসমুদ্রে। ছবি : সংগৃহীত

মহামারি করোনার সংক্রমণ রেকর্ডের টালমাটাল সময়ের মাঝেই অনুষ্ঠিত হলো মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা। শুক্রবার (২ এপ্রিল) সকাল ১০টা থেকে শুরু হয় ভবিষ্যৎ এমবিবিএসদের এই ‘ভর্তিযুদ্ধ’।

নানা আলোচনা-সমালোচনা, উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা নিয়ে এ দিন সকাল ৭টা থেকেই কেন্দ্রগুলোতে ভিড় জমাতে থাকেন পরীক্ষার্থী আর অভিভাবকরা। ফলে ৮টার মধ্যেই প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনের স্থান পরিণত হয় জনসমুদ্রে, যেখানে হদিস মেলেনি স্বাস্থ্যবিধির।

শুক্রবার সারাদেশের ৫৫টি কেন্দ্রে একযোগে সকাল ১০টায় শুরু হয় পরীক্ষা। প্রতিটি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করেছে কর্তৃপক্ষ। কেন্দ্রে প্রবেশের কড়াকড়ি থাকলেও বাইরে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র।

সরেজমিনে রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজ, ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, টিচার্স ট্রেনিং কলেজ, গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, ডিএমপির নির্দেশনা অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই স্ব-স্ব পরীক্ষাকেন্দ্রের সামনে ভিড় জমান পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী পরীক্ষা শুরু হওয়ার দুই ঘণ্টা পূর্বে কেন্দ্রে প্রবেশ করেন পরীক্ষার্থীরা। এ সময় শিক্ষার্থীদের তাপমাত্রা পরিমাপ ও হাতে স্যানিটাইজার দেওয়া হয়। কিন্তু বাইরে পরীক্ষার্থীর অভিভাবকরা গাদাগাদি করে দাঁড়িয়ে আছেন। মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব। উপেক্ষিত থাকছে স্বাস্থ্যবিধিও।

অভিভাবকরা বলছেন, কেন্দ্রের ভেতরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে লাভ কী? বাইরেই তো বিপুল পরিমাণ মানুষের ভিড়। এখানে করোনা সংক্রমণ হওয়া স্বাভাবিক।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পরীক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে। আগেই জানিয়ে দিয়েছি, প্রত্যেক পরীক্ষার্থীকে মাস্ক পরে কেন্দ্রে আসতে হবে। এক ঘণ্টা পরীক্ষার পুরো সময় মাস্ক পরে থাকতে হবে। মাস্ক পরে আসার বাধ্যবাধকতার বিষয়টি পরীক্ষার প্রবেশপত্রে উল্লেখ করা আছে। তবু যারা ভুল করে মাস্ক না পরে এসেছেন, পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে তাদের মাস্ক সরবরাহ করা হয়েছে।

সংক্রমিতদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যাদের মধ্যে করোনা উপসর্গ আছে তাদের আলাদাভাবে বিশেষ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে প্রথমবারের মতো প্রতিটা কেন্দ্রে আইসোলেশন কক্ষের ব্যবস্থা ছিল। পাশাপাশি তাপমাত্রা পরিমাপ করে সবাইকে পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশ করানো হয়েছে।

আরও পড়ুন : কুবি কর্মকর্তা পরিষদের নেতৃত্বে তাহের-লতিফ

উল্লেখ্য, চলতি বছর মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে আবেদন করেন ১ লাখ ২২ হাজার শিক্ষার্থী। স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হয়ে চলে ১১টা পর্যন্ত। আগের নিয়মেই এবারের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলো। ১০০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষার ফলাফলের সাথে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার জিপিএর ১০০ নম্বরসহ মোট ২০০ নম্বরের ভিত্তিতে জাতীয় মেধা তালিকা করে শিক্ষার্থীদের ভর্তি করা হবে মেডিকেল কলেজগুলোয়।

ওডি/আইএইচএন

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড