• বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে হাবিপ্রবি প্রশাসনকে শিক্ষার্থীদের স্মারকলিপি

  হাবিপ্রবি প্রতিনিধি

১২ জানুয়ারি ২০২১, ১৩:৫৭
হাবিপ্রবি
হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) মূল ফটক (ছবি : দৈনিক অধিকার)

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে স্থগিত থাকা পরীক্ষাসহ চলমান সেমিস্টারের পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে স্মারকলিপি দিয়েছে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) বেলা ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুক হক বরাবর এই স্মারকলিপি জমা দেওয়া হয়।

স্মারকলিপিতে শিক্ষার্থীরা উল্লেখ করেন, ‘আমরা অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা অত্যন্ত দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে, বিগত কয়েক বছরে সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা সময়মতো দিতে না পারায় দীর্ঘ সেশন জটের সম্মুখীন হয়ে পরেছি। কেননা আমরা আমাদের শিক্ষাবর্ষ ২০১৭ সালের এপ্রিলে শুরু করেছিলাম। করোনার সময়ে তাল মিলিয়ে আমরাও অনলাইন ক্লাস শুরু করেছি। তাই বর্তমান সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় যখন আমাদের শিক্ষাবর্ষের রুটিন প্রকাশ করেছে সেখানে যে আমরা পিছিয়ে পরছি তা বলার অবকাশ রাখে না। এমতাবস্থায় আগামী ৭ দিনের মধ্যে আমাদের ২০১৭ ব্যাচের চলমান সেমিস্টারের ফাইনাল পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করে সেশন জটের হুমকি থেকে আমাদের রক্ষা করার জন্য অনুরোধ করছি।’

বিষয়টিতে ১৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ইমরান হোসাইন আকাশ বলেন, আমরা ২০১৭ সালে হাবিপ্রবিতে ভর্তি হই। সে হিসেবে ২০২০ সালের ডিসেম্বরে আমাদের অনার্স শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নানাবিধ কারণে আমরা এখনো তৃতীয় বর্ষ শেষ করতে পারিনি। আমরা যে অনেক পিছিয়ে আছি, সেটা প্রশাসনসহ সকলেই জানেন। এমন অবস্থায়, আমাদের পরীক্ষার ডেট না দিলে আমরা আরও পিছিয়ে পড়ছি।

তিনি বলেন, ক্যাম্পাস খোলার পর আবারও যদি একই সেমিস্টারের ক্লাস নেন, এতে করে আমরা দেড় বছরের সেশনজটে পড়ার হুমকির মুখে আছি।

অন্যদিকে ফিশারিজ অনুষদের ১৭তম ব্যাচের অপর শিক্ষার্থী ইয়াছির আরাফাত বলেন, ‘আমাদের সাথে ভর্তি হওয়া অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অনার্স চতুর্থ বর্ষে উঠলেও আমাদের এখনো তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী হিসেবে পরিচয় দিতে হচ্ছে। তাই আমাদের শিক্ষকমণ্ডলীদের কাছে অনুরোধ থাকবে, আমাদের সেশনজট কমিয়ে এনে শিক্ষা-কার্যক্রম ত্বরান্বিত করতে যে যে পদক্ষেপ নিতে হয়, আপনারা দয়া করে তাই করুন।’

আরও পড়ুন : নর্থ ইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপাচার্য শাবি অধ্যাপক ইলিয়াস

সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুল হক বলেন, ‘আমরা আপাতত লেভেল-৪, সেমিস্টার-২ এর শিক্ষার্থীরা যেন বিসিএসসহ অন্যান্য চাকরির পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারে সে জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের পরীক্ষা নিচ্ছি। কিন্তু ১৭ ব্যাচ এখন লেভেল ৩/১ বা ৩/২ তে থাকায় গত অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলে ১৭ ব্যাচের পরীক্ষার বিষয়টি উত্থাপিত হয়নি।

তিনি বলেন, পরীক্ষা নিতে হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু নিয়ম কানুন আছে। এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলে নেওয়া হয়। আমরা পরবর্তী অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলে এ বিষয়টি উত্থাপন করব। তবে এর আগে সংশ্লিষ্ট ডিন মহোদয় যারা আছেন, তারা যদি কোন কোন ডিপার্টমেন্ট পরীক্ষা নেওয়ার জন্য উপযোগী- তা উপাচার্য মহোদয়কে জানায় তাহলে উনি অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল ডেকে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে পারবে।’

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড