• শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আইন পেশায় রয়েছে উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গড়ার হাতছানি

  জাহিদুল ইসলাম

২০ অক্টোবর ২০২০, ২০:৪৩
আইন পেশায় রয়েছে উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গড়ার হাতছানি
আইন পেশায় রয়েছে উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গড়ার হাতছানি

আইন পেশায় নিজেকে দেখতে চান অনেকেই। নামের আগে বিচারপতি, অ্যাটর্নি জেনারেল, অধ্যাপক (আইন), ব্যারিস্টার, অ্যাডভোকেট পদবিগুলো দেখতে কার না ভালো লাগে? এ পদবিগুলো আকর্ষণীয়, এবং এ পেশাগুলো আপনাকে নিয়ে যেতে পারে ক্যারিয়ারের অনন্য উচ্চতায়। যারা ধৈর্য-একাগ্রতা নিয়ে আইন বিষয়ে পড়েন এবং পরে প্র্যাকটিসে সততা ন্যায়নিষ্ঠা বজায় রাখেন তাদের জন্য এ পেশায় রয়েছে উজ্জ্বল ক্যারিয়ার ও বৈচিত্র্যময় জীবন গড়ার হাতছানি।

আইন বিষয়ে লেখাপড়ার একটি বড় সুবিধা হচ্ছে- যে কোনো ব্যাকগ্রাউন্ডের শিক্ষার্থী বা পেশাজীবীর আইন পড়ার সুযোগ আছে। সে বিজ্ঞানের ছাত্র, মানবিক, বাণিজ্য কিংবা মাদ্রাসা ব্যাকগ্রাউন্ডের হোক না কেন। বিসিএস ও অন্য যে কোনো নন ক্যাডারের চাকরি, ব্যাংক, স্বায়ত্তশাসিত ও বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে চাকরির ক্ষেত্রে আইনের শিক্ষার্থীদের অন্য ব্যাকগ্রাউন্ডের শিক্ষার্থীদের মতো সমান সুযোগ আছে। বিশেষ কিছু পেশা আছে যেখানে শুধু আইনের শিক্ষার্থীরাই কাজ করতে পারবেন। যেমন- ওকালতি, জুডিসিয়াল সার্ভিস কমিশনের অধীনে জাজশিপ, ব্যাংকসহ সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও সশস্ত্র বাহিনীতে ল' অফিসার হিসেবে শুধু এ বিষয়ের শিক্ষার্থীদেরই নিয়োগ দেওয়া হয়ে থাকে। এছাড়া সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, আইন কলেজে এই বিভাগের গ্র্যাজুয়েটদের শিক্ষকতার সুযোগও রয়েছে।

আমাদের দেশে আত্মনির্ভরকেন্দ্রিক যত পেশার দেখা মেলে, তার মধ্যে আইন পেশা সর্বজন পরিচিত এবং গুরুত্বপূর্ণ একটি পেশা। এ পেশায় এসে আপনি যেমন অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারবেন, তেমনি সমাজে সবার কাছে নিজেকে উপস্থাপন করার সুযোগ পাবেন। তাছাড়া সম্মান ও সুনিশ্চিত ভবিষ্যতের জন্য বর্তমান সময়ে আইন পেশার প্রতি সবার আগ্রহ বেড়েই চলছে। এ পেশার সুযোগ প্রতিনিয়ত নতুন নতুন মাত্রা ও সম্ভাবনা যোগ করছে।

জেনে নিন কী পড়ানো হয়

দেশের প্রায় প্রতিটি পাবলিক কিংবা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়েই অন্যতম চাহিদাসম্পন্ন বিষয় আইন। বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন কোর্স পড়ানো হয়। তবে সার্বিকভাবে আইন পড়তে হলে কিছু বিষয় একজনকে জানতেই হবে। এর মধ্যে অন্যতম ‘জুরিসপ্রুডেনস’যা একাধারে আইনের বিজ্ঞান, দর্শন ও ব্যাকরণ। আইনের প্রাথমিক ধারণাগুলো এখানে আলোচনা করা হয়। তা ছাড়া পড়ানো হয় সাংবিধানিক আইন, যা ছাড়া আমরা এ দেশের আইনগুলো বুঝতেই পারব না। বাংলাদেশে পারিবারিক আইনগুলোতে ধর্মীয় আইনের যে গভীর প্রভাব রয়েছে, তা আমরা বুঝি মুসলিম ও হিন্দু আইন পড়তে গেলে। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সদস্য হিসেবে বাংলাদেশকে কী কী আইন মেনে চলতে হবে, তা পড়ানো হয় আন্তর্জাতিক আইনে। তা ছাড়া স্নাতক পর্যায়ে ভূমি আইন, ক্রয়বিক্রয়–সংক্রান্ত আইন, পরিবেশ আইন, ক্রিমিনোলজি, সিপিসি, সিআরপিসি ইত্যাদি সবখানেই পড়ানো হয়। স্নাতকোত্তর পর্যায়ে আরও কিছু বিশেষায়িত বিষয়ে ধারনা দেওয়া হয়।

যেখানে পড়া যাবে

আইন বিষয়ের ব্যাপক চাহিদা থাকায় বাংলাদেশের প্রায় সব বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বিষয়ে পড়ার সুযোগ রয়েছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অন্যতম হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রভৃতি।

তবে আপনি যদি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিষয়ে অধ্যয়ন করতে চান তবে আপনার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত হবে রাজধানীর অন্যতম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি। কারণ দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার লক্ষ্যে ২০১২ সালে যাত্রা শুরু করে অদ্যবধি সুনামের সঙ্গে শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনা করছে প্রতিষ্ঠানটি। বিশ্ববিদ্যালয়টি বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ও শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত। এছাড়া রাজধানী ঢাকার গ্রিনরোডে বিশ্ববিদ্যালয়টির মূল ক্যাম্পাস হওয়ায় শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্যও যথেষ্ট উপযোগি।

যেসব সুবিধা পাবেন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের স্বনামধন্য বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থায়ী নিয়োগপ্রাপ্ত ও দক্ষ শিক্ষকরা সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির ক্লাস পরিচালনার করেন। এছাড়া এখানে পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের বিভিন্নভাবে প্রফেশনাল ফিল্ডের জন্য উপযোগী করে গড়ে তোলা হয়। যেমন- প্রত্যেক সেমিস্টারে বাধ্যতামূলক অ্যাসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশন এবং বিভিন্ন ধরনের ওয়ার্কশপ, সেমিনার ও ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে। এতে শিক্ষার্থীদের আত্মবিশ্বাস অনেকাংশেই বেড়ে যায়। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষত্ব হলো এখানে যোগ্যতার ভিত্তিতে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়। এছাড়া এখানে টিউশন ফি কম হওয়ায় গরিব মেধাবীদের লেখাপড়ার সুযোগ রয়েছে। রয়েছে প্রতিটি বিভাগে অত্যাধুনিক ল্যাবের সুব্যবস্থা। শিক্ষার্থীদের জন্য আছে ফ্রি যানবাহনের ব্যবস্থা।

শিক্ষার্থীদের মানোন্যয়নে প্রতিষ্ঠানটি গবেষণা খাতে বিপুল অর্থ ব্যয় করে থাকে। ২০১৮ সালে গবেষণা খাতে ব্যয়ের দিক থেকে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে চতুর্থ স্থান অর্জন করে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে করপোরেট জবে যোগ্য করে গড়ে তুলতে ভিন্ন ভিন্ন বিষয়ে হাতে-কলমে শিক্ষা দিয়ে থাকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি। এর মধ্যে রয়েছে- ক্যারিয়ার গোলস, পাবলিক স্পিকিং, সিভি ও রিজিউম রাইটিং, জব ইন্টারভিউ, কোয়ানটেটিভ অ্যানালাইসিস ও অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটি, আইকিউ, লেখার দক্ষতা ও লিখিত পরীক্ষা, কাস্টমার সার্ভিস স্কিল এবং ডেমো ইন্টারভিউ ও অ্যাসেসমেন্ট ইত্যাদি। এছাড়া আরও রয়েছে বিষয় সংশ্লিষ্ট পাঠ্যবইয়ে সমৃদ্ধ গ্রন্থাগার, অত্যাধুনিক ক্লাসরুম, ডিবেটিং ক্লাব, কালচারাল ক্লাব ও স্পোর্টস ক্লাব।

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটিতে অধ্যায়নের ক্ষেত্রে চতুর্থ বিষয় ব্যাতিত আপনার যদি এসএসসি ও এইচএসসিতে জিপিএ ৫ থাকে তবে আপনি ১০০ ভাগ ওয়েভার পাবেন। যদি ৪.৮০ স্কোর থাকে তবে আপনি ওয়েভার পাবেন ৫০ ভাগ। এভাবে ক্রমান্নয়ে ৩.৫ পর্যন্ত আপনি ওয়েভার পেতে পারেন। এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব (http://www.su.edu.bd/) ওয়েবসাইটে।

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটিতে ভর্তির সেশন : এখানে স্প্রিং (জানুয়ারি-এপ্রিল), সামার (মে-আগস্ট) ও ফল (সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর) এ তিনটি সেশনে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়।

যোগাযোগ :

১৪৭/১, গ্রিন রোড, তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫। ফোন : ৪৮১১২২৪৭ মোবাইল : ০১৯৫৫৫২৯৭১৫, ০১৯৫৫৫২৯৭১৬, ০১৯৫৫৫২৯৭১৭, ০১৯৫৫৫২৯৭২০, ০১৯৫৫৫২৯৭০৯ জিপি জেএ -১৪৬ ওয়ার্লেস গেট, মহাখালি ঢাকা। মোবাইল : ০১৯৫৫৫২৯৭০২, ০১৯৫৫৫২৯৭০৮, ০১৯৫৫৫২৯৭২২, ০১৯৫৫৫২৯৭২১

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড