• শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা : বিকালে ইউজিসির বৈঠক

  শিক্ষা ডেস্ক

১৫ অক্টোবর ২০২০, ১২:১১
ইউজিসি
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা : বিকালে ইউজিসির বৈঠক (ছবি : সংগৃহীত)

মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতির মাঝে চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা না হলেও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার প্রক্রিয়া শুরু করতে কাজ করছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি গুচ্ছ নাকি কেন্দ্রীয় (ক্যাট) পদ্ধতিতে হবে, তা চূড়ান্ত হবে আজ বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর)।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতি এড়াতে সর্বোচ্চ দেড় ঘণ্টার মধ্যে এই পরীক্ষা শেষ করার পরিকল্পনা করছেন তারা।

জানা গেছে, শীর্ষস্থানীয় কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাট পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার পক্ষে। আর ইউজিসি গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিতে চায়। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে আজ সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের নিয়ে বৈঠকে বসছে ইউজিসি। বিকাল ৩টার দিকে অনুষ্ঠেয় সভায় এসব বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বিষয়টিতে ইউজিসির সদস্য (পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়) অধ্যাপক দিল আফরোজা বেগম বলেন, ‘গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন হবে। এজন্য প্রস্তুতিও অনেক এগিয়েছে। সশরীরে ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন হবে আগামী বছরের শুরুতে।’ অল্প সময়ের মধ্যে পরীক্ষা গ্রহণ ও ফল প্রকাশের চেষ্টা চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

একই সাথে তিনি দাবি করেন, আগে বুয়েট, ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি প্রক্রিয়ায় আসতে না চাইলেও এখন তারা আগ্রহ দেখাচ্ছে। তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। ১৫ অক্টোবর এ সংক্রান্ত সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এ সময় এক থেকে দেড় ঘণ্টার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হবে বলেও জানান তিনি।

এ দিকে, সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আগামী জানুয়ারি মাসে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হতে পারে। তবে শীতে করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতি খারাপ হলে পরীক্ষাও পেছাবে। সেক্ষেত্রে ফেব্রুয়ারি বা মার্চে এই পরীক্ষা নেওয়া হতে পারে। আর যদি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অপেক্ষা করতে না চায় তাহলে জানুয়ারি বা ফেব্রুয়ারিতে শিক্ষার্থীদের সশরীরে উপস্থিত করে পরীক্ষা নেওয়া হতে পারে।

আরও পড়ুন : ফের ভিকারুননিসায় ভর্তি বাণিজ্যের অভিযোগ

জানা গেছে, এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার প্রায় ১৪ লাখ পরীক্ষার্থী অটোপাস পাচ্ছেন। তবে দেশে উচ্চশিক্ষায় সে সংখ্যক আসন নেই। এ জন্য সবার উচ্চ শিক্ষার সুযোগ নিশ্চিত করা কঠিন হবে বলে মত অনেকের। সারাদেশে বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল, ডেন্টাল, এমআইএসটি ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ১২ লাখের মতো আসন রয়েছে। ফলে দুই লাখ শিক্ষার্থীর উচ্চ শিক্ষা অনিশ্চিত হয়ে পড়বে। প্রতি বছর ১০ থেকে ১৫ শতাংশ শিক্ষার্থী ফেল করলেও এবার শতভাগ পাস হওয়ায় এই জটিলতা তৈরি হয়েছে।

অবশ্য উচ্চ শিক্ষায় অতিরিক্ত আসন রয়েছে বলে দাবি করেছেন ইউজিসি’র সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলমগীর। বিষয়টিতে তিনি বলেন, ‘পর্যাপ্ত আসন রয়েছে। সব শিক্ষার্থী ভর্তির পরও কিছু আসন শূন্য থাকবে, কেউ বাদ যাবে না। আমরা গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি করাব।’

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড