• বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

খুলছে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, এইচএসসির সিদ্ধান্তও চূড়ান্ত নয়

  শিক্ষা ডেস্ক

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:০২
এইচএসসি পরীক্ষার
খুলছে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, এইচএসসির সিদ্ধান্তও চূড়ান্ত নয় (প্রতীকী ছবি)

বিশ্বব্যাপী ভয়াবহ আগ্রাসন চালানো প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘ প্রায় ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ রয়েছে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। একই কারণে গত এপ্রিলে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত হয়ে গেছে। কবে নাগাদ এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে তাও কারও জানা নেই।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খুললে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠান কবে খুলবে তাও এখনো অনিশ্চিত।

এ দিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, দেশে করোনা পরিস্থিতি এখনও অনুকূলে নয়। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শীতে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে।

আবার শিক্ষাবোর্ড বলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খুললে পরীক্ষা আয়োজন সম্ভব নয়। এ কারণে শিগগিরই এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এমতাবস্থায় বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বসছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সাব-কমিটি। তবে এই বৈঠক থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা কিংবা এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে না বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো। এমনকি একাধিক বোর্ড চেয়ারম্যানও একই বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন।

তারা বলছেন, সবাই এখন করোনা পরিস্থিতির দিকে নজর রেখেছে। ফলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুব সহজে খুলছে না। আর পরীক্ষা নিতে আরও দেরি হতে পারে। কবে এই পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে সে বিষয়েও স্পষ্ট করে কিছু বলতে পারেননি তারা। তবে পরীক্ষা নেওয়ার সব প্রস্তুতি রয়েছে জানিয়ে তারা বলেছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার অন্তত ১৫ দিন পর এই পরীক্ষা আয়োজন করা যাবে।

বিষয়টিতে ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান ও আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয়ক মু. জিয়াউল হক গণমাধ্যমকে বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে এইচএসসি পরীক্ষা হবে না, তা চূড়ান্ত। আর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার মতো পরিস্থিতিও এখনও তৈরি হয়নি।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবারের বৈঠকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার বিষয়ে আলোচনা হবে না। এটি বোর্ড চেয়ারম্যানদের নিয়মিত বৈঠকের অংশ। পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার অবস্থা সৃষ্টি হয়নি। করোনার কারণে যে সংকট, তার মধ্যে আমরাও আছি। এখন পরীক্ষা কীভাবে হবে? এমন প্রশ্নও রাখেন তিনি।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয়ক জিয়াউল হক বলেন, পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। বৈঠকেও এ বিষয় চূড়ান্ত করার জন্য নয়। পরীক্ষার বিষয়ে এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত একটাই। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খুললে পরীক্ষা হচ্ছে না। আর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে পরীক্ষা হবে না বলেও জানান তিনি।

এর আগে গত সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় প্রসঙ্গক্রমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘করোনার সংক্রমণ থাকায় এখনই এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে না। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমি সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেব।’ এ সময় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তিনি সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে দলের শীর্ষ নেতাদের জানিয়েছেন।

বৈঠকের একটি সূত্র জানায়, মনোনয়ন বোর্ডের সভায় এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক। তবে তার এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করেন অপর প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান।

আরও পড়ুন : হলিক্রসের অধ্যক্ষকে ঢাকা বোর্ডের শোকজ, কারণ দর্শানোর নির্দেশ

পরে প্রধানমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাককে লক্ষ্য করে বলেন, ‘এখনই পরীক্ষা নিতে হবে কারণ কী? কলেজ তো চলছে না। আমি সামগ্রিক চিন্তা করে কাজ করি। ইউরোপ-আমেরিকা, ভারতে এখন করোনার কী অবস্থা? ওরা ভেবেছিল কমে যাবে।’

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১ এপ্রিল থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর কথা ছিল। তবে গত ৮ মার্চ থেকে দেশে করোনার প্রকোপ শুরু হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য এই পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ ঘোষণা করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড