• রোববার, ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

তৌহিদ হত্যাকাণ্ডের মূল ঘাতক গ্রেফতার, বক্তব্যে অমিল

  জাককানইবি প্রতিনিধি

০৪ মে ২০২০, ২২:১৩
হত্যাকাণ্ড
গ্রেফতারকৃত আতিকুজ্জামান আশিক (টি-শার্ট পরিহিত)

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাককানইবি) শিক্ষার্থী তৌহিদুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত মূল ঘাতককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  

হত্যাকাণ্ড নিয়ে পুলিশের তদন্তের সর্বশেষ অবস্থা জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার।

সোমবার (৪ মে) দুপুর সাড়ে ৩টায় পুলিশ সুপার কার্যালয়ের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে তদন্ত শেষে খুনের ঘটনার বর্ণনায় জেলা পুলিশ সুপার মো. আহমার উজ্জামান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী তৌহিদুলের সঙ্গে ঘাতক আতিকুজ্জামান আশিক (২৭) এর কথা কাটাকাটি হয়। আতিক এলাকার পেশাদার চোর ও মাদকসেবী। ঘটনার দুইদিন আগে ওই মেসের রাস্তার মোড়ে রমজান মাসে সিগারেট খাওয়া নিয়ে ঘাতক আশিককে  করেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র তৌহিদ। তখন এনিয়ে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় তৌহিদের হাতে থাকা মোবাইলের প্রতি লোভ হয় আশিকের। পরে তৌহিদকে অনুসরণ করে বাসায় গিয়ে তার রুম দেখে আসে ঘাতক আশিক। 

তিনি আরও জানান, ঘটনার সময় শুক্রবার (১ মে) রাত ৩ টার দিকে সে বাসার ছাদ হয়ে মোবাইল চুরি করতে গেলে তৌহিদ তাকে দেখে ফেলে। এ সময় উভয়ের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এক পর্যায়ে পাশে থাকা রড দিয়ে তৌহিদকে আঘাত করে রক্তাক্ত করে পালিয়ে যায় ঘাতক আশিক। পরবর্তী সময়ে মেস মালিক এসে তৌহিদকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

প্রাথমিকভাবে সংঘটিত ঘটনাটি চুরি সম্পর্কিত হওয়ায় থানা পুলিশ এবং ডিবি যৌথ অভিযানের ভিত্তিতে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে মূল ঘাতক আতিকুজ্জামান আশিককে ঘটনার দুদিন পর রবিবার (৩ মে) বিকেলে নগরের আকুয়া বোর্ডঘর এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। পরবর্তী সময়ে তার দেখানো মতে হত্যাকাণ্ডের সময় পরিহিত রক্তমাখা প্যান্ট ও টিশার্ট গাজীপুরের শ্রীপুর এমসি বাজার থেকে এবং হত্যায় ব্যবহৃত রডটি ওই মেসের পাশের পুকুর থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

সোমবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত আসামি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বলেও জানান পুলিশ সুপার মো. আহমার উজ্জামান। 

এ বিষয়ে প্রক্টর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধান বলেন, ‘পুলিশ প্রশাসনের চেষ্টা এবং পরিশ্রমের ফলে দ্রুততম সময়ে আমাদের সন্তানকে যে হত্যা করেছিলো তাকে গ্রেফতার করা গেছে। খুনীকে গ্রেফতারের ব্যাপারে সর্বশেষ খবর জানতে বিশ্ববিদ্যালয়য়ের উপাচার্য পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখেছেন। এখন দ্রুত শাস্তি নিশ্চিত করার জন্যে কাজ করতে হবে।’

অন্যদিকে নিহত তৌহিদের মামা ফারুখ আহমেদ বলেন, ‘আমরা এই তদন্তে সম্পূর্ণভাবে সন্তুষ্ট নই। একা এই কাজ সম্ভব নয়। এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আরও কেউ যুক্ত আছে। আমি আরও ভালো করে তদন্তের দাবি জানাই।’

আরও পড়ুন : হোস্টেল ভাড়া মওকুফের ঘোষণা দিলেন রাজশাহী কলেজ অধ্যক্ষ

তিনি আরও বলেন, ‘পুলিশ সংবাদ সম্মেলনে রড দিয়ে আঘাতের কথা বললেও তৌহিদ এই কথা বলে যায় নি। তার কথা অনুযায়ী উপর থেকে এসে তাকে আঘাত করে উপরদিকে চলে যায়। যেখানে পুলিশের দেওয়া বক্তব্য এবং তৌহিদের কথায় ঘোর অমিল রয়েছে।’

গ্রেফতারকৃত আসামি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বলেও জানান পুলিশ সুপার। পুলিশের তদন্ত নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এই তদন্তকে অস্বচ্ছ বলে দাবি করছেন।

প্রসঙ্গত, ময়মনসিংহ শহরের তিনকোনা পুকুরপাড় এলাকার মো. সোলায়মান এর বাসার ভাড়াটিয়া (মেস) জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাককানইবি) ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী তৌহিদুল ইসলাম খান কে গত ১ মে ভোরে অজ্ঞাত ব্যক্তি কর্তৃক আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে ময়মনসিংহ হাসপাতাল মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকালে মৃত্যুবরণ করেন।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: in[email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড