আসলের ভিড়ে নকল ইলিশ কিনে ঠকছেন ক্রেতারা !

প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:০১

  তারিন ফাহিমা

সারাদেশে ইলিশের নামে একই আদলের মাছ ‘সার্ডিন’ ও ‘চৌক্কা’ বিক্রি করা হচ্ছে। ইলিশের নামে ক্রেতাদের কাছ থেকে বেশি দাম নিয়ে একটি অসাধু চক্র এই ভিন্ন প্রজাতির মাছ বিক্রি করছে।  

এদিকে ক্রেতাদের অভিযোগ, বাজার থেকে ইলিশ মাছ কিনে নিয়ে রান্না করার পরও তারা ইলিশের সেই ঘ্রাণ বা স্বাদ পাচ্ছেন না।এই মাছগুলো দেখতে ইলিশের মত হলেও এগুলোতে খুব বেশি কাটা। আর ভাজলে তাতে ইলিশের মতো তেলও বের হয় না। 

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, নকল ইলিশ বিক্রির প্রতারক চক্রটি সারাদেশে সক্রিয়। ফেরিওয়ালারা  অ্যালুমিনিয়ামের বাসনে মাথায় করে এসব মাছ বিক্রি  করছে। আর আসল ইলিশের দামও হাঁকাচ্ছেন তারা। তবে মাছ  বিক্রেতারা ইলিশ বলে যে মাছ বিক্রি করছে, সেগুলো প্রকৃতপক্ষে ‘সার্ডিন’, ও ‘চৌক্কা’। এগুলো দেখতে ইলিশের মতো হলেও এতে ইলিশের স্বাদ-গন্ধ কিছুই নেই।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের তথ্যানুসারে, ‘সার্ডিন’ দেখতে আকারে জাটকার মতো হলেও ‘চৌক্কা’ মাছ আকারে বেশ বড়। এটি লম্বায় ইলিশের অনেকটাই কাছাকাছি। তবে ইলিশের চেয়ে চওড়ায় কম। আর ইলিশের চেয়ে সার্ডিন ও চৌক্কার চোখের আকার বড়।অনেকেই তাই ইলিশের মত দেখতে এসব মাছ কিনে প্রতারিত হচ্ছেন। 

চাঁদপুরের নদীকেন্দ্র ইনস্টিটিউটের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আনিছুর রহমান বলেন, ‘সার্ডিন ও চৌক্কা  সমুদ্রের মাছ হলেও অনেক সময় নদীর মোহনায় চলে আসে। জেলেদের জালে ইলিশের সঙ্গে এসব মাছও ধরা পড়ে। চেহারায় কিছুটা সাদৃশ্য থাকায় অনেকেই মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেন। তবে ভালো করে খেয়াল করলে পার্থক্য বোঝা যায়।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘পরিপূর্ণ ইলিশ লম্বায় ৫০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত হয়। সার্ডিন ও চৌক্কা আকারে ইলিশের ধারে-কাছে যেতে পারে না।’সাগরে সারা বছরই কম-বেশি সার্ডিন ও চৌক্কা ধরা পড়ে। বিদেশ থেকেও আমদানি হয় সার্ডিন। তবে নববর্ষের আগে বেশি আমদানি হয়। তবে অনেক ধরনের মাছ একসঙ্গে আমদানি হয় বলে কী পরিমাণ সার্ডিন আসে সেই পরিসংখ্যান নেই।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ মৎস্য আমদানিকারক সমিতির সভাপতি আশরাফ হোসেন মাসুদ বলেন, ‘ আমাদের দেশে ওমান থেকে সার্ডিন মাছ আসে। আর দামে কম বলে গরিবের মাছ হিসেবেই আমদানি করেন ব্যবসায়ীরা।’ 

ওডি/টিএফ